জামালপুরে নিখোঁজের চারদিন পর সেপটিক ট্যাংকে শিক্ষার্থীর লাশ, আটক ২

জামালপুর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বলেন, মোবাইল ফোনে ছেলেটির মুক্তিপণ চেয়ে কল দেওয়া হয়েছিল। পরে ট্র্যাকিং করে নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।

জামালপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 March 2024, 05:15 PM
Updated : 31 March 2024, 05:15 PM

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে নিখোঁজের চারদিন পর সেপটিক ট্যাংক থেকে এক শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রোববার বিকালে বাড়ির সেপটিক ট্যাংক থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয় বলে সরিষাবাড়ী থানার ওসি মুশফিকুর রহমান জানান।

নিহত উজ্জ্বল মিয়া (১৪) উপজেলার চর বালিয়া পূর্বপাড়ার আছর আলীর ছেলে। সে স্থানীয় শেখ খলিলুর রহমান ভোকেশনাল ইনস্টিটিউটের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

এ ঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে একই এলাকার আবু সাঈদ ও সাদ্দাম নামে উজ্জ্বলের দুই বন্ধুকে আটক করেছে।

সরিষাবাড়ী থানার ওসি মুশফিকুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, বুধবার সন্ধ্যায় উজ্জ্বল মিয়াকে বাড়ি থেকে তার কয়েকজন বন্ধু ডেকে নেওয়ার পর নিখোঁজ হওয়ার বিষয়ে রাতেই পরিবারের লোকজন থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

নিহতের বাবা আছর আলী বলেন, “ছেলেডারে বন্ধুরা মাইরা আবার আমার বাড়ির পাশে ট্যাংকির মধ্যেই রাইখা গেছে। আমি ছেলে হত্যার উপযুক্ত বিচার চাই।”

ভাই হত্যার বিচার চান উজ্জ্বলের মামাতো ভাই মিজানুর রহমান।

নিহতের বোন অন্তরা বলেন, “ভাইকে কয়েকদিন ধরে খোঁজাখুজি করতেছি। কোনো জায়গায় পাইনি। রোববার দুপুরে বাড়ির সামনে কাজ করার সময় দুর্গন্ধ নাকে আসল। ট্যাংকির মুখ খুলতেই আমার ভাইয়ের লাশ দেখতে পাই। আমি ভাই হত্যার বিচার চাই। হত্যাকারীদের ফাঁসি চাই।”

নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।  

জামালপুর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সোহরাব হোসাইন সাংবাদিকদের বলেন, মোবাইল ফোনে উজ্জ্বলের মুক্তিপণ চেয়ে কল দেওয়া হয়েছিল। পরে নম্বরটি ট্র্যাকিং করে বন্ধ পাওয়া যায়। হঠাৎ সংবাদ আসে, বাথরুমের ট্যাংকিতে তার লাশ রয়েছে।

ওসি মুশফিকুর রহমান বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ জামালপুর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে।