কিশোরগঞ্জে বিষক্রিয়ায় আওয়ামী লীগের ২ নেতাসহ চারজনের মৃত্যু

আরও একজন ঢাকায় লাইফ সাপোর্টে আছেন।

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Jan 2023, 11:32 AM
Updated : 16 Jan 2023, 11:32 AM

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলায় বিষক্রিয়ায় অসুস্থ হয়ে আওয়ামী লীগের দুই নেতাসহ চারজনের মৃত্যু হয়েছে; সঙ্কটাপন্ন অবস্থায় রয়েছেন আরও একজন।    

সোমবার দুপুরে কুলিয়ারচর থানার ওসি মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা সাংবাদিকদের বলেন, চারজনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মেডিকেল রিপোর্ট দেখার পর মৃত্যুর কারণ বলা যাবে।

তারা হচ্ছেন- কুলিয়ারচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. গিয়াস উদ্দিন (৫৭) ও জহির রায়হান (৫৮), স্থানীয় হোমিও চিকিৎসক গোবিন্দ বিশ্বাস (৪৫) এবং গাড়ি চালক শাহজাহান মিয়া (৪৫)।

এ ছাড়া একই ঘটনায় কুলিয়ারচর পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হাবিবুর রহমানও অসুস্থ হয়ে ঢাকার একটি হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে আছেন।

কুলিয়ারচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইমতিয়াজ বিন মুছা বলেন, “গিয়াস উদ্দিন ও জহির রায়হান দলের সক্রিয় নেতা ছিলেন। হাবিবুর রহমানও সক্রিয় আছেন।”

পুলিশ ও উপজেলা আওয়ামী লীগের একাধিক নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, শনিবার রাতে পাঁচজনই এক ব্যক্তির বাড়িতে দাওয়াতে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে ফেরার পর সবাই অসুস্থবোধ করেন। 

রোববার সকালে কাউন্সিলর হাবিবুর রহমানকে বাজিতপুরের জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে গতকাল ঢাকায় পাঠানো হয়। বর্তমানে তিনি লাইফ সাপোর্টে আছেন।

এরপর রোববার রাতে আওয়ামী লীগ নেতা গিয়াস উদ্দিন ও জহির রায়হানকেও জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার ভোরে মারা যান গিয়াস উদ্দিন।

তার কিছু পরে হাসপাতালের চিকিৎসকদের পরামর্শে জহির রায়হানকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। পথেই তিনি মারা যান।

কুলিয়ারচর থানার ওসি মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা বলেন, গোবিন্দ বিশ্বাসকেও বাজিতপুরের জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখানেই তিনি মারা গেছেন। শাহজাহান মিয়া নিজ বাড়িতেই মারা গেছেন।

আওয়ামী লীগ নেতা গিয়াস উদ্দিন ও জহির রায়হান উপজেলার বড়খারচর, গোবিন্দ বিশ্বাস একরামপুর এবং শাজাহান মিয়া ভাটি দোয়ারিয়া গ্রামের বাসিন্দা।

জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হাসপাতালের পরিচালক মো. বাহার উদ্দিন বলেন, তাদেরকে হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আনা হয়েছিল। তিনজন এখানে মারা গেছেন।

কুলিয়ারচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) মিলন রায় বলেন, “তিনজনকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছিল। তাদের কথাবার্তা এলোমেলো ছিল। মাদক সংক্রান্ত বিষক্রিয়া মনে হওয়ায় দ্রুতই বাজিতপুরে স্থানান্তর করা হয়।“ 

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক