বিএনপি কথায় কথায় বিভিন্ন দূতাবাসে চলে যায়: আইনমন্ত্রী

“বিএনপি আমাদেরকে অন্ধকারে রেখেছিল। আবারও অন্ধকারে রাখার ষড়যন্ত্র করতেছে।”

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 Nov 2022, 03:21 PM
Updated : 25 Nov 2022, 03:21 PM

বিএনপির নেতারা সব সময় পরনির্ভরশীল বলে মন্তব্য করেছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।  

তিনি বলেন, “তারা কথায় কথায় বিভিন্ন দূতাবাসে চলে যায়, পাকিস্তানের হুংকার দেয়। জনগণকে যে আমরা সেবা করি সেটা বিএনপি পছন্দ করে না। তাদের কথা হচ্ছে, দেশের মানুষের নামে ভিক্ষা আনবে, ভিক্ষা এনে তারা লুটপাট করবে আর মানুষের ওপর অত্যাচার করবে।

 “এটাই হচ্ছে বিএনপির নিয়ম। আমরা সেই নিয়মে বিশ্বাস করি না।“

শুক্রবার বিকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার মনকাশাইর এলাকায় দেশের `সবচেয়ে বড়’ আশ্রয়ণ প্রকল্পের চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইনমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এ সময় বিএনপির সমালোচনা করে আনিসুল হক বলেন, “বিএনপির লোকেরা বলেন রিজার্ভ অনেক কমে গেছে। উনাদেরকে মনে করিয়ে দিতে হয়, উনারা ক্ষমতা থেকে চলে যাওয়ার সময় দেশটাকে এমন ধ্বংস করেছিলেন যে, দেশের রিজার্ভ ছিল পাঁচ দশমিক তিন বিলিয়ন ডলার।

“শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ১০ বছরে সরকার বাংলাদেশের রিজার্ভ করেছিল ৪৮ বিলিয়ন ডলার। বিএনপি শাসন করে দেশটাকে বিরান করে দিয়েছে। আর শেখ হাসিনা সারা বিশ্বের কাছে দেশটাকে পরিচয় করিয়েছেন উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে।”

আইনমন্ত্রী আরও বলেন, “বিএনপির সময় বাংলাদেশ ছিল অন্ধকারে। আর আজকে সারা বাংলাদেশে শতভাগ বিদ্যুৎ পৌঁছে গেছে। বিএনপি আমাদেরকে অন্ধকারে রেখেছিল। আবারও অন্ধকারে রাখার ষড়যন্ত্র করতেছে।”

ষড়যন্ত্র যেন না করতে পারে সে ব্যাপারে জনগণকে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “যদি কোনোদিন তাদের ষড়যন্ত্র সফল হয়, তাহলে তারা এই দেশটাকে বিরান করে ফেলবে।”

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক মো. শাহগীর আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব গোলাম সারোয়ার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার, জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, কসবা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রাশেদুল কায়সার ভূঁইয়া জীবন, কসবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাসুদ উল আলম।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক