গাইবান্ধায় বিনামূল্যের ১১ হাজার পাঠ্যপুস্তক ‘পাচার’, গ্রেপ্তার ৩

“চালক ও সহকারী জানান, অফিস সহকারীর কাছ থেকে তারা এসব বই পেয়েছেন।”

গাইবান্ধা প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Jan 2023, 02:56 PM
Updated : 16 Jan 2023, 02:56 PM

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার চলতি শিক্ষাবর্ষের মাধ্যমিক স্তরে বিনামূল্যে বিতরণের বিপুল পরিমাণ সরকারি পাঠ্যপুস্তক পাচারের অভিযোগে মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।  

সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মাহমুদ হোসেন মণ্ডল বাদী হয়ে তিনজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত পরিচয় কয়েকজনকে আসামি করে মামলাটি করেন বলে সুন্দরগঞ্জ থানার ওসি সরকার ইফতেখারুল মোকাদ্দেম জানান।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- সুন্দরগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কার্যালয়ের অফিস সহায়ক মাজেদুর রহমান মাজেদ (৪৫), বই পরিবহনের ব্যবহৃত পিকআপ ভ্যানের চালক শ্যামল মিয়া ও চালকের সহকারী রাসেল মিয়া।

মামলার বরাতে পুলিশ জানায়, সিরাজগঞ্জ জেলার বঙ্গবন্ধু যমুনা সেতু পশ্চিম থানা পুলিশ রোববার একটি পিকআপ আটক করে তল্লাশি করে এসব বইয়ের সন্ধান পায়। এ সময় পিকআপ চালক শ্যামল মিয়া এবং চালকের সহকারী রাসেল মিয়াকে আটক করা হয়। তারা জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, সুন্দরগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কার্যালয়ের অফিস সহায়ক মাজেদের কাছ থেকে বই সংগ্রহ করেছে।

বিষয়টি বঙ্গবন্ধু যমুনা সেতু পশ্চিম থানা কর্তৃপক্ষ সুন্দরগঞ্জ থানা পুলিশকে অবহিত করে। রোববার রাতেই মাজেদকে আটক করা হয়।

মামলায় বলা হয়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মাজেদ জানান, বিতরণের জন্য মজুত করে রাখা সুন্দরগঞ্জ ডি ডাব্লিউ সরকারি ডিগ্রি কলেজের হলরুম হতে এই বইগুলো রোববার তিনি পাচার করেন।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মাহমুদ হোসেন মণ্ডল বলেন, “মাজেদ গোডাউন থেকে বই বিতরণ করে আসছেন। তার কাছে গোডাউনের চাবি থাকে।”

সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ আল মারুফ বলেন, খবর পেয়ে রাতেই সংশ্লিষ্টদের নিয়ে বইয়ের গোডাউন তল্লাশি করা হয়। এতে চলতি বছরের যষ্ঠ হতে নবম শ্রেণির ১১ হাজার ৫০০ বই কম পাওয়া গেছে।

এর মধ্যে শিক্ষাবর্ষের যষ্ঠ শ্রেণির ৩০০ বই, সপ্তম শ্রেণির সাত হাজার ৮০০ বই, অষ্টম শ্রেণির দুই হাজার ৬০০ বই এবং নবম শ্রেণির ৮০০ বই রয়েছে।

সুন্দরগঞ্জ থানার ওসি সরকার ইফতেখারুল মোকাদ্দেম বলেন, মামলায় অফিস সহায়ক, চালক ও চালকের সহকারীকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। বই ও দুই আসামিকে সুন্দরগঞ্জ নিয়ে আসার জন্য রাতেই পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, “প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অফিস সহায়ক মাজেদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে পুলিশকে অনেক তথ্য প্রদান করেছেন। যা তদন্তের স্বার্থে বলা যাচ্ছে না। তবে তদন্তে এই ঘটনার সাথে জড়িত সকলকেই চিহিৃত করা সম্ভব হবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক