সেসব শুধুই ‘পলিটিক্যাল হিউমার’: কাদের

বিএনপির সঙ্গে সংলাপ নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 July 2022, 01:18 PM
Updated : 25 July 2022, 01:18 PM

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে পদ্মা সেতু থেকে ‘ফেলে দেওয়া’ কিংবা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ঘেরাও করতে চাইলে তাদের ‘চা খাওয়াতে চাওয়ার’ মত বিষয়গুলো সরকারপ্রধানের ‘পলিটিক্যাল হিউমার’ বলে মন্তব্য করেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেছেন, “পলিটিক্যাল হিউমার আছে। যেমন বেগম জিয়াকে কি নেত্রী টুস করে ফেলে দিতে বলছে? এটা তো একটা হিউমার। এটা তারা ঘেরাও করবে, আন্দোলন করবে, অভ্যুত্থান করবে- এটারই একটা জবাব। হিউমারের দিক থেকে উনি বলেছেন যে ‘ঠিক আছে আসেন’।

"অবশ্য এটাও ঠিক, তারা যদি কোনো ঘেরাওটেরাও নিয়ে আসে, প্রধানমন্ত্রী বলতেও পারেন যে ‘নেতাদের নিয়ে আসেন’, এটা উনি করতেও পারেন। আসলে এটা উনার রুচিবোধের মধ্যে আছে। এটা নিয়ে অন্যকিছু ভাবার কোন কারণ নেই। ফখরুল সাহেবরা ঘেরাও করতে এলে তাদের চা খাওয়ালে অসুবিধা কী?"

তবে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ওই মন্তব্যকে বিএনপির সঙ্গে সংলাপের দলীয় বা সরকারের সিদ্ধান্ত হিসেবে ধরে না নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন কাদের।

সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদের বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপে বিষয়গুলো তিনি এভাবেই ব্যাখ্যা করেন।

শনিবার বিকালে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের যৌথসভায় শেখ হাসিনা বলেছিলেন, গণতান্ত্রিক আন্দোলনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ঘেরাও করতে চাইলেও বিএনপিকে বাধা দেওয়া হবে না, বরং তিনি তাদের (বিএনপি নেতা) চা খাওয়াবেন, কথা বলতে চাইলে শুনবেন।

প্রধানমন্ত্রীর ওই বক্তব্য তুলে ধরে বিষয়টি সংলাপের ইঙ্গিত কি না, সেই প্রশ্ন করেছিলেন সাংবাদিকরা।

উত্তরে কাদের বলেন, "এ বিষয়ে যেহেতু এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি, আমি এ বিষয়ে মন্তব্য করতে চাই না। কারণ সংলাপের বিষয়টি দলের সিদ্ধান্তের ব্যাপার, সরকারের সিদ্ধান্তের ব্যাপার। প্রধানমন্ত্রী যখন এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেবেন, তখন আপানার জানতে পারবেন। এটা তো ওপেন সিক্রেট।"

সংলাপের সুযোগ থাকছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখনও এসব নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি।

“কাজেই আমি এ সিদ্ধান্তটা আগাম কেন বলব?"

নির্বাচন কমিশনের সংলাপে বিএনপি না যাওয়া প্রসঙ্গে আবারও ‘প্রতিযোগিমূলক নির্বাচনের’ প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

তিনি বলেন, “নির্বাচন কমিশনে বিএনপির যাওয়াটা তাদের অধিকার। তারা এখন যদি নিজেরা ইচ্ছা করে না যায়, সেখানে আমরা রাজনৈতিক দল হিসাবে কী বলব…।

“আমরা তাদেরকে যদি বলি, তাহলে বলব নির্বাচন কমিশনের সংলাপে সবার যাওয়া উচিত। এবং আমরা একটা প্রতাযোগিতামূলক নির্বাচন চাই। সেজন্য বিএনপির মত একটি বড় দল বাইরে থাকবে সেটি ঠিক নয়। আমরা মনে করি তারা আসুক। আমরা মনে প্রাণে চাই নির্বাচনটা তাদের সাথে হোক।"

পরিবহনের ভাড়া বাড়ছে কি না, সেই প্রশ্নে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী কাদের বলেন, “এ কথা এখন বলতে পারব না। যখন বাড়বে তখন বলতে পারব।

“একটা ছোট কথা থেকে অনেক বড় কথা হয়ে যেতে পারে। এখন আমাদের কথাবার্তাও সতর্কভাবে বলতে হবে।”

পুরনো খবর:

Also Read: চা খাওয়াব, কথা বলতে চাইলে শুনব: শেখ হাসিনা

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক