লাঠির খেলা চলবে না, বিএনপির উদ্দেশে কাদের

“বিএনপি ইচ্ছে করে উসকানি দিচ্ছে যাতে আওয়ামী লীগ সংঘাতে জড়ায়,” অভিযোগ করেন তিনি।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 Sept 2022, 05:43 PM
Updated : 28 Sept 2022, 05:43 PM

আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপিকে রাজনৈতিকভাবে রাজপথে প্রতিহত করার হুঁশিয়ারি দিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়ুদল কাদের বলেছেন, “আন্দোলন করেন যত পারেন কিন্তু লাঠির খেলা চলবে না”।

বুধবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে দলীয় আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

আওয়ামী লীগ আয়োজিত এ সভায় তিনি বলেন, “কোমরভাঙা, হাঁটুভাঙা বিএনপি লাঠির উপর ভর করেছে। এটা আমি বলিনি ডা. জাফরুল্লা সাহেব বলেছেন। লাঠি দিয়ে বিএনপি বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা আকঁড়ে ধরেছে। আবার বলে, লাঠি আরও লম্বা হবে। বুঝছেন? কি আস্ফালন?

“বিএনপির আবাসিক প্রতিনিধি, যিনি বসে বসে বসে মিথ্যাচার করে। এই লাঠিবাজি, লাঠি নিয়ে খেলবে, প্রোগ্রাম দিয়েছেন, সমাবেশ-মহাসমাবেশ করবেন, করেন। জাতীয় পতাকার সঙ্গে লাঠি লাগাইয়েন, সামনের দিনে খবর আছে।“

বিএনপির উদ্দেশ্যে কাদের বলেন, "পরিষ্কার বলতে চাই, সামনে খবর আছে। লাঠির খেলা চলবে না। আন্দোলন করেন যত পারেন কিন্তু লাঠির খেলা চলবে না। আগুন সন্ত্রাস, আগুন নিয়ে খেলা চলবে না।"

আওয়ামী লীগ রাজপথ দখলে রাখবে জানিয়ে তিনি বলেন, "আওয়ামী লীগ রাজপথ কাউকে ইজারা দেয়নি। আওয়ামী লীগ রাজপথে আছে, থাকবে। আওয়ামী লীগ প্রয়োজনে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে দখলে নেবে, আওয়ামী লীগ রাজপথ দখল করতে জানে। রাজপথ কারও পৈত্রিক সম্পত্তি নয়।“

বিএনপি ইচ্ছে করে উসকানি দিচ্ছে অভিযোগ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “যাতে আওয়ামী লীগ সংঘাতে জড়ায়। তারা ইচ্ছে করে আওয়ামী লীগ, পুলিশকে উসকানি দেয়। আগামী সংসদ নির্বাচনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা আবারও বিজয়ের বন্দরে পৌঁছাবো ইনশাআল্লাহ্‌।"

শেখ হাসিনার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরে তিনি বলেন, "বঙ্গবন্ধু মুজিবকে হারিয়ে আমরা অমানিসার অন্ধকারে ছিলাম। এর ৬ বছর পর শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হয়ে ফিরে এসেছিলেন রক্তভেজা দুঃখিনী বাংলায়। 

"শেখ হাসিনা দেশে ফিরে গণতন্ত্রকে শৃঙ্খলমুক্ত করেছেন। তিনি দেশে এসেছিলেন বলে এসেছেন বলে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার, বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার হয়েছে। তিনি ফিরেছেন বলে দেশে উন্নয়নে অর্জনের ধারা সূচিত হয়েছে।"

আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী বলেন, "শেখ হাসিনার সাহসের অভাব নেই। শেখ হাসিনা জনগণের জন্য কাজ করেন। বঙ্গবন্ধু কন্যা ডাক দিলে জনগণ একাট্টা হয়ে পেছনে দাঁড়াবে।"

সভাপতিমণ্ডলীর আরেক সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেন, "বাঁশ নিয়ে রাস্তায় নামবেন? নামেন। খেলা কত প্রকার কী দেখাইয়া দিমু। আমরা আঙ্গুল চুষব না, যেখানে বাধা দেখব সেখানেই প্রতিহত করব।“

দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবু-উল আলম হানিফ বলেন, "আওয়ামী লীগ বহু আন্দোলন সংগ্রামের পথ পাড়ি দিয়ে এসেছে। আওয়ামী লীগকে ধমক দিয়ে লাভ নেই। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আছে, থাকবে।"

আরেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, "আওয়ামী লীগ মাঠে নামে নাই। আমরা সংযত আচরণ করছি, ধৈর্য ধরছি, রাজপথ ছেড়ে যাইনি।"

উপ প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিনের সঞ্চালনায় দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রাজ্জাক, শাজাহান খান, জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আব্দুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দীপু মনি ও আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন ও মির্জা আজম, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক আবদুস সবুর, তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক সেলিম মাহমুদ, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ চুমকি, কেন্দ্রীয় সদস্য আব্দুল আওয়াল শামীম, পারভীন জামান কল্পনা, আনোয়ার হোসেনসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক