ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক হওয়ার কারণ

শুষ্ক ত্বকের যন্ত্রণা পোহানো মানুষের সংখ্যা নেহাত কম নয়। তবে কেনো হয় ত্বক শুষ্ক, তা ভেবেছেন কী?

লাইফস্টাইল ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 6 Oct 2020, 12:22 PM
Updated : 6 Oct 2020, 12:22 PM

কোনো কারণে ত্বক ক্ষতিগ্রস্ত হলে তা নিজেরকার্যকারিতা হারায়, আর্দ্রতা বজায় রাখার জন্য ত্বকের উপরিভাগে স্বাস্থ্যকর চর্বি প্রয়োজন।

চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায়, জৈবিকভাবে ত্বকেরউপরিভাগ হল মৃতকোষ আর জৈবিক তেলের আবরণ। এই আবরণ আর্দ্রতা আটকে রেখে ত্বক মসৃণ ও নরমরাখে। তবে উপরের এই আবরণে পর্যাপ্ত পানি না থাকলে ত্বক শুষ্ক হতে থাকে।

স্বাস্থ্যবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিতপ্রতিবেদন অবলম্বনে জানানো হল যে কারণগুলো ত্বককে শুষ্ক করে সেগুলো সম্পর্কে।

সুগন্ধি: সুগন্ধিরকারণে ত্বক শুষ্ক হতে পারে এমনটা হয়ত অনেকেরই ভাবনার বাইরে। সুগন্ধি হল অ্যালার্জিজনীত‘ডার্মাটাইটিস’য়ের একটি অন্যতম কারণ। একারণেই শুষ্ক ত্বকে কিছু সুগন্ধি অস্বস্তি তৈরিকরে। তাই যেসব সুগন্ধি কড়া বা তাতে সুগন্ধির মাত্রা বেশি সেগুলো এড়িয়ে চলা উচিত।

সাবান ও শ্যাম্পু: ত্বক ও মাথার ত্বক থেকে আর্দ্রতা কেড়ে নেয় এমন সাবান ও শ্যাম্পু আছে অসংখ্য।এর কারণ হল এই প্রসাধনী তৈরিই করা হয় তেল অপসারণ করার উদ্দেশ্যে। তাই কেনার সময় সতর্কহতে হবে, কোন প্রসাধনীগুলো আপনার ত্বকের সঙ্গে মানানসই নয় সেগুলো শনাক্ত করে তা ব্যবহারবর্জন করতে হবে।

বংশগত কারণ:শুষ্ক ত্বক বাবা-মায়ের কাছ থেকেও পেতে পারেন। এই মানুষগুলো ‘একজিমা’ হওয়ার সম্ভাবনাওথাকে বেশি। আপনি যদি এদের মধ্যকার একজন হয়ে থাকেন তবে দিনের পুরো সময়টা ত্বকে কোনোনা কোনো ময়েশ্চারাইজার মাখার অভ্যাস করতে হবে।

পানির সমস্যা:ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম’য়ের মাত্রা পানিতে বেশি হলে সেই পানিকে ‘হার্ড ওয়াটার’ বলাহয়। এই পানি ব্যবহারের কারণে ত্বকের ওপর ওই খনিজ উপাদানের আস্তর পড়ে যায়। সেটা থেকেইসৃষ্টি হতে পারে শুষ্কতা। এক্ষেত্রে ঘরের সকল পানির উৎস ‘ফিল্টার’য়ের আওতাভুক্ত করতেপারেন। এতে খরচটা বেশি হলেও, তাতে পরিবারের সবার ত্বক ভালো থাকবে। পাশাপাশি ভিটামিনএ এবং ভিটামিন সি আছে এমন প্রসাধনী ত্বকের যত্নে ব্যবহার করতে হবে।

গরম পানিতে গোসল: শীতের দিনে কুসুম গরম পানিতে গোসল করার আরাম যেন স্বর্গীয়। আবার গরমের দিনগুলোতেওকুসুম গরম পানিতে গোসল করলে ক্লান্তি কমে যাবে নিমেষেই, ঘুম ভালো হবে। তবে এই অভ্যাসেরক্ষতিকর দিকও আছে। কুসুম গরম পানিতে গোসল করলে ত্বকের জৈবিক তেল ধুয়ে যায়। তাই লম্বাসময় গোসল করা কিংবা প্রতিদিন গরম পানিতে গোসল করলে ত্বক ক্রমেই শুষ্ক হতে থাকবে। এরসমাধান হল গোসল শেষ করে শরীর মোছার পরপরই ময়েশ্চরাইজার মেখে নিতে হবে।

আরও পড়ুন

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক