গুহার সাড়ে ৩ হাজার ফুট গভীরে আটকা, এক সপ্তাহ পর উদ্ধার মার্কিন অভিযাত্রী

ডিকি আটকা পড়েছিলেন প্রায় সাড়ে ৩ হাজার ফুট গভীরে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 Feb 2024, 06:37 AM
Updated : 7 Feb 2024, 06:37 AM

তুরস্কের তৃতীয় গভীরতম গুহায় আটকে পড়ার এক সপ্তাহেরও বেশি সময় পর উদ্ধার করা হয়েছে এক মার্কিন অভিযাত্রীকে।

মার্ক ডিকি নামের ওই ব্যক্তি তুরস্কের মার্সিন প্রদেশের টরাস পর্বতমালার মরকা গুহায় আটকে পড়েছিলেন। স্থানীয় সময় সোমবার রাত ১২টার পর সেখান থেকে তাকে মাটির উপরে তুলে আনা হয়।

মরকা গুহার সবথেকে গভীরতম অবস্থান মাটির ৪ হাজার ২৬৫ ফুট গভীরে। তবে ৪০ বছর বয়সী ডিকি আটকা পড়েছিলেন প্রায় সাড়ে ৩ হাজার ফুট গভীরে। গুহাটিতে আন্তর্জাতিক অনুসন্ধান অভিযানে ছিলেন তিনি। কিন্তু ২ সেপ্টেম্বর থেকে পেটের সমস্যার কারণে সেখান থেকে আর বের হতে পারছিলেন না।

তাকে উদ্ধারের অভিযানে ছিলেন অন্তত দেড়শ জন। উদ্ধারকারীরা বলছেন, মার্কিন এই অভিযাত্রিককে বাঁচানোর চেষ্টা ছিল সবথেকে বড় এবং সবচেয়ে জটিল ভূগর্ভস্থ উদ্ধার অভিযানগুলোর একটি। তার নেতৃত্বে পরিচালিত ‘নিউ জার্সি ইনিশিয়াল রেসপন্স টিম’ এর সদস্য কার্ল হেইটমেয়ার উদ্ধার অভিযানের সঙ্গে জড়িত সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সির বাসিন্দা ডিকির গুহায় অনুসন্ধান অভিযানে ২০ বছরের অভিজ্ঞতা রয়েছে। এক দশক ধরে তিনি ইউএস ন্যাশনাল কেভ রেসকিউ কমিশনের একজন প্রশিক্ষক হিসেবেও কাজ করছেন। কিন্তু এই অভিযানে অসুস্থ হয়ে পড়লে তার বেঁচে ফেরা নিয়েই শঙ্কা তৈরি হয়। তিনি ভেবেছিলেন, এই অগ্নিপরীক্ষায় হয়ত আর উত্তীর্ণ হতে পারবেন না।

মরকা গুহায় একটি নতুন পথ খুঁজে বের করতে একটি অনুসন্ধান দলের সঙ্গে ছিলেন ডিকি। কিন্তু গুহায় গহীনে পৌঁছানোর পর তার গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল রক্তক্ষরণ শুরু হয়। তাকে উদ্ধারের অভিযানে নেম রক্ত দেওয়ার পর অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়। এরপর স্ট্রেচারে বেঁধে ধীরে ধীরে তুলে আনা হয় উপরে।

ডিকিকে উদ্ধারের অভিযান সহজ ছিল না। কঠিন শিলা আর সংকীর্ণ পথ ধরে এগোতে হয় উদ্ধারকারীদের। বিস্ফোরক ব্যবহার করে সরু পথগুলো করা হয় প্রশস্ত। ক্রোয়েশিয়া ও হাঙ্গেরিসহ আরও কয়েকটি দেশের উদ্ধারকারীরা এই অভিযানে সহায়তা করেন। সংবাদ সূত্র: বিবিসি

(প্রতিবেদনটি প্রথম ফেইসবুকে প্রকাশিত হয়েছিল ১২ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক)