‘সব সময়ের সেরাদের একজন’ কোহলিকে নিয়ে সাবধানী ফিঞ্চ

নিজের টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের শেষ শিগগিরই দেখছেন না অস্ট্রেলিয়ার এই সংস্করণের অধিনায়ক।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 19 Sept 2022, 12:58 PM
Updated : 19 Sept 2022, 12:58 PM

কদিন আগেও বিরাট কোহলির পড়তি ফর্ম নিয়ে ক্রিকেট বিশ্বে ছিল আলোচনা-সমালোচনা। সবশেষ এশিয়া কাপে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে আপন চেহারায় ফেরার আভাস দিয়েছেন তিনি। ভারতীয় তারকা ব্যাটসম্যানের মুখোমুখি হওয়ার আগে তাই বেশ সতর্ক অ্যারন ফিঞ্চ। অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি অধিনায়কের মতে, কোহলির মানের ব্যাটসম্যানকে কোনো অবস্থাতেই নিঃশেষ ভাবার সুযোগ নেই। 

শুরুতে সেঞ্চুরি খরা, পরে দিনের পর দিন ফর্মের অবনতির কারণে লম্বা সময় ধরেই আলোচনায় ছিলেন কোহলি। এক মাসের বেশি সময় বিশ্রামে থেকে এশিয়া কাপ দিয়ে মাঠে ফেরে তিনি মেলে ধরেন নিজেকে। ব্যাট হাতে আলো ছড়িয়ে রাশ টানেন তাকে নিয়ে চলা চর্চার। 

আসরে একমাত্র সেঞ্চুরিটি আসে কোহলির ব্যাট থেকে। সঙ্গে দুই ফিফটিতে ১৪৭.৫৯ স্ট্রাইক রেট ও ৯২ গড়ে তিনি রান করেন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৭৬।

সেরা চেহারায় জ্বলে ওঠেন কোহলি সুপার ফোরের শেষ ম্যাচে। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৬১ বলে খেলেন তিনি অপরাজিত ১২২ রানের চমৎকার এক ইনিংস। যার মধ্য দিয়ে কাটে তার ১ হাজার ২০ দিনের সেঞ্চুরি খরা। সঙ্গে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতেও প্রথমবার পান শতকের উষ্ণ ছোঁয়া।  

এবার ভারতের সঙ্গে লড়াই হবে অস্ট্রেলিয়ার। মোহালিতে মঙ্গলবার শুরু হবে তিন টি-টোয়েন্টির সিরিজটি। কোহলিসহ নিয়মিত সদস্যদের প্রায় সবাই আছেন ভারতীয় দলে। আগের দিনের সংবাদ সম্মেলনে কোহলিকে নিয়ে নিজের ভাবনা জানান ফিঞ্চ। 

“বিরাট ফুরিয়ে গেছে, যেকোনো পর্যায়ে এমনটা ভাবতে হলে অনেক অনেক বেশি সাহসী হতে হবে। ১৫ বছর ধরে এটা দেখিয়ে আসছে যে, সব সময়ের সেরাদের একজন সে। সে অসাধারণ। তার ঝুলিতে ৭১টি আন্তর্জাতিক সেঞ্চুরি। এটা স্রেফ অবিশ্বাস্য, তাই না?” 

“বিশেষ করে টি-টোয়েন্টিতে সে এমন একজন যে কিনা লম্বা একটা সময় ধরে নিজের খেলাতে উন্নতি করেছে। ফলে সবসময়ই সেরা পরিকল্পনা ও সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিয়ে তার বিপক্ষে মাঠে নামতে হবে।” 

চলতি মাসেই ওয়ানডে ক্রিকেটকে বিদায় বলে দেন ফিঞ্চ। তবে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট ছাড়ার ভাবনা আপাতত নেই তার। ঘরের মাঠে এই সংস্করণের বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়াকে নেতৃত্ব দেবেন তিনি। বললেন, ২০ ওভারের ক্রিকেটে খেলা চালিয়ে যেতে চাওয়ার কথা।

“টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট নিয়ে এখনই কোনো শেষ সময় নির্ধারণ করছি না। এই সংস্করণ এখনও আমার কাছে রোমাঞ্চকর। অস্ট্রেলিয়া দলের সঙ্গে সফরে যেতে ভালো লাগে। মনে হচ্ছে, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বেশ কিছুদিন ধরে আমার ফর্ম সত্যিই ভালো।” 

ওয়ানডে নেতৃত্ব ছাড়ার পেছনে মূল কারণ ছিল ফিঞ্চের ধারাবাহিক বাজে ব্যাটিং ফর্ম। তবে টি-টোয়েন্টিতে ভালোই করছেন তিনি। সবশেষ চার ম্যাচের দুটিতে পেয়েছেন পঞ্চাশের স্বাদ। চলতি বছর এখন পর্যন্ত এই সংস্করণে ৯ ম্যাচ ২৪৭ রান করেছেন তিনি ১২১.৬৭ স্ট্রাইক রেট ও ৩০.৮৭ গড়ে। 

অস্ট্রেলিয়া-ভারতের বাকি দুই টি-টোয়েন্টি শুক্র ও রোববার। এরপর ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুটি ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলবে ফিঞ্চের দল। প্রতিবেশী নিউ জিল্যান্ড ম্যাচ দিয়ে আগামী ২২ অক্টোবর শুরু তাদের বিশ্বকাপ পথচলা।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক