‘হাথুরু এলে ভালো হবে, এখন হয়তো আরও পরিণত’

বিসিবি পরিচালক ও টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদের বিশ্বাস, চন্দিকা হাথুরুসিংহে আবার কোচ হয়ে এলে ভালো হবে বাংলাদেশের।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 19 Jan 2023, 11:20 AM
Updated : 19 Jan 2023, 11:20 AM

পুরনো এক অধ্যায়ের নতুন পর্ব শুরুর গুঞ্জন চলছে বাংলাদেশের ক্রিকেটে। জাতীয় দলের কোচ হয়ে আবার এদেশের ক্রিকেটে ফিরতে পারেন চন্দিকা হাথুরুসিংহে। এখনও যদিও নিশ্চিত নয়। তবে বিসিবি পরিচালক ও বাংলাদেশ দলের টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদের মতে, এই দায়িত্বের জন্য হাথুরুসিংহে অনেক দিক থেকেই উপযুক্ত।

গত মাসে রাসেল ডমিঙ্গো পদত্যাগ করার পর আপাতত বাংলাদেশ দলের কোনো প্রধান কোচ নেই। সম্ভাব্য নতুন কোচ হিসেবে যারা বিবেচনায় আছেন, সেখানে হাথুরুসিংহের সম্ভাবনাই সবচেয়ে উজ্জ্বল বলে শোনা যাচ্ছে।

২০১৪ সালের জুন থেকে ২০১৭ সালের অক্টোবর পর্যন্ত বাংলাদেশের কোচের দায়িত্বে ছিলেন হাথুরুসিংহে। তার সময়ে অভাবনীয় ও স্মরণীয় কিছু সাফল্য পেয়েছে বাংলাদেশ দল। তবে নানা সময়ে তাকে ঘিরে বিতর্কও ছিল অনেক।

সেবার তার দায়িত্বে শেষটা যেভাবে হয়েছিল, বিসিবির জন্য যথেষ্ট বিব্রতকর ছিল তা। চুক্তির মেয়াদ পূরণ না করে এবং শেষ সিরিজে কোচের প্রতিবেদন জমা না দিয়েই তিনি চলে গিয়েছিলেন। বিসিবির কর্তাদের সঙ্গে আলোচনাতেও সেভাবে আন্তরিক ছিলেন না ও সাড়া দেননি বলে জানা গিয়েছিল তখন। পরে শ্রীলঙ্কা জাতীয় দলের দায়িত্ব নিয়েছিলেন তিনি বাংলাদেশের চেয়ে বেশি বড় অঙ্কের পারিশ্রমিকে।

যদিও পরে শ্রীলঙ্কাতেও তার শেষটা ভালো হয়নি। তিন বছরের মেয়াদের অর্ধেকও শেষ হয়নি তার। নানা বিতর্কিত ঘটনার পর তাকে বরখাস্ত করে বোর্ড। আর্থিক বিষয়াদি নিয়ে অবশ্য তার সঙ্গে লঙ্কান বোর্ডের টানাপোড়েন চলতে থাকে আরও অনেক দিন ধরে।

তবে হাথুরুসিংহে এখন আগের চেয়ে পরিণত বলে বিশ্বাস খালেদ মাহমুদের। চলতি বিপিএলে খুলনা টাইগার্সের কোচের দায়িত্বে থাকা এই বোর্ড পরিচালক বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বললেন, বাংলাদেশের দায়িত্বে ভালো পছন্দ হতে পারেন হাথুরুসিংহে।

“হাথুরুর ব্যাপারটা আমি এখনও নিশ্চিত বলতে পারব না আসবে কী আসবে না। তবে যদি আসে, অবশ্যই ভালো। হাথুরু এখানে কাজ করে গেছে, ওর কোচিংয়ে বাংলাদেশের অনেক পারফরম্যান্সও ছিল। আমার বিশ্বাস, হাথুরু এখন হয়তো আরও বেশি পরিণত, অবশ্যই আমাদের সেটা কাজে লাগবে। আবার যদি আসে তো ভালো।”

“(আগেরবার) ও এসে বাংলাদেশ ক্রিকেটের অনেক কিছু বদলে দিয়েছিল এবং পারফরম্যান্স তখন আমাদের ভালো হচ্ছিল। দ্বিতীয়বার আসাটা খারাপ হবে না, আমি খারাপভাবে দেখি না। যেহেতু আমাদের উপমহাদেশের মানুষ, আমাদের সম্পর্কে ভালো জানেন, বোঝেন। ওর অভিজ্ঞতা এখন অনেক, সত্যি বলতে গেলে।”

শ্রীলঙ্কার দায়িত্ব শেষে গত প্রায় সাড়ে তিন বছরে শীর্ষ পর্যায়ে কোচিংয়ের অভিজ্ঞতা নেই হাথুরুসিংহে। ২০২০ সালে অস্ট্রেলিয়ায় নিউ সাউথ ওয়েলসের ব্যাটিং কোচের দায়িত্বে ছিলেন কিছুদিন। এখন তিনি সিডনিতে ক্লাব কোচিং করান।

হাথুরুসিংহে কোচ হয়ে এলে কয়টি সংস্করণের দায়িত্বে থাকবেন এবং সেক্ষেত্রে শ্রীধরন শ্রীরামের ভূমিকা কী হবে, এসব নিয়েও নানা আলোচনা চলছে। গত ২৭ ডিসেম্বর বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান জালাল ইউনুস বলেছিলেন, টি-টোয়েন্টি দলের টেকনিক্যাল কনসালটেন্টের দায়িত্বে ফিরবেন শ্রীরাম।

এখন খালেদ মাহমুদের কথা থেকে হাথুরুসিংহে, শ্রীরামের ভূমিকা নিয়ে ইঙ্গিত পাওয়া গেল না।

“আসলে বিসিবিতে আমরা চিন্তা করি আমাদের জন্য কোনটা ভালো। বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য কে ভালো হবে। সেটা যদি হাথুরু হয় বা শ্রীরাম, বা যে কেউ হোক না কেন, বা দুইজনই যদি হয়, সেটাও ভালো, তিনজন হলেও ভালো। যেটা দেশের জন্য, দলের জন্য ভালো, সেটা চিন্তা করব। যে আসে, সে যেন দলকে, দেশকে সার্ভিস দিতে পারে। লম্বা সময় যেন কোচিং করাতে পারে, এটাও একটা গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার।”

বাংলাদেশের ক্রিকেটে নতুন একজনের আগমন অবশ্য নিশ্চিত হয়ে গেছে। ‘হেড অব প্রোগ্রাম’ হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ডেভিড মুরকে। অস্ট্রেলিয়ান এই কোচ বাংলাদেশের ক্রিকেটে ইতিবাচক অনেক কিছুই যোগ করতে পারবেন বলে মনে করেন খালেদ মাহমুদ।

“ডেভিড মুর আসছেন, এটা ভালো। তার অভিজ্ঞতা বাংলাদেশে অনেক কাজে লাগবে বলে বিশ্বাস করি। প্রোগ্রাম চিফ হিসেবে আসছেন, প্রোগ্রাম ডেভেলপ করা, পরিকল্পনা করা, আরও নানা কিছু করা… (তার দায়িত্ব)। আমরা ভালো করছি, উনার মতো অভিজ্ঞ একজনকে পাওয়াটা আরও সহায়তা করবে। ভালো উদ্যোগ এটা, উনার মতো অভিজ্ঞ কোচকে বিসিবির সঙ্গে যুক্ত করা।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক