কামিন্সের কৌশলের কাছে ধরাশায়ী ভারত, মনে করেন অশ্বিন

বিশ্বকাপ ফাইনালে মিড-অফ ফিল্ডার ছাড়াই অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়কের দুর্দান্ত বোলিংয়ে মুগ্ধ ভারতীয় অফ স্পিনার।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 23 Nov 2023, 01:56 PM
Updated : 23 Nov 2023, 01:56 PM

বিশ্বকাপে শুরু থেকে দাপুটে পারফরম্যান্সের কারণে ফাইনালে ভারতের পক্ষে বাজি ধরা লোকের সংখ্যাই ছিল হয়তো বেশি। রবিচন্দ্রন অশ্বিন তো ধরেই নিয়েছিলেন, চ্যাম্পিয়ন হবেন তারা। কিন্তু তাদের সঙ্গী হয় একরাশ হতাশা। দুর্দান্ত বোলিং-ফিল্ডিংয়ের পর ট্রাভিস হেডের অসাধারণ শতকে ষষ্ঠ বিশ্বকাপ ট্রফি ঘরে তোলে অস্ট্রেলিয়া। ফাইনাল নিয়ে অশ্বিনের মূল্যায়ন, অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক প্যাট কামিন্সের কৌশল এবং এর সফল বাস্তবায়নের কাছেই মূলত হেরে গেছে স্বাগতিক দল।

আহমেদাবাদে গত রোববারের ফাইনালে কামিন্স শুরুতেই চমকে দেন টস জিতে বোলিং নিয়ে। তবে তার সিদ্ধান্ত যে ভুল ছিল না, সেটা প্রমাণ হয়ে যায় তাদের বোলিংয়ে। শক্তিশালী ব্যাটিং লাইনআপের ভারতকে ২৪০ রানেই আটকে রাখে তারা।

১০ ওভারে স্রেফ ৩৪ রান দিয়ে শ্রেয়াস আইয়ার ও ভিরাট কোহলির গুরুত্বপূর্ণ দুটি উইকেট নেন ৩০ বছর বয়সী কামিন্স। ফাইনালে ভারতের বেঞ্চে বসে থাকা অফ স্পিনার অশ্বিন নিজের ইউটিউব চ্যানেলে বললেন, লেগ সাইডে ফিল্ডার নিয়ে যেভাবে বোলিং করেছেন কামিন্স, পথ খুঁজে পাননি ব্যাটসম্যানরা।

“বিশ্বকাপের আগে প্যাট কামিন্স ওয়ানডেতে বোলিংয়ে সংগ্রাম করছিল। কিন্তু ফাইনালের পথে শেষ চার-পাঁচটি ম্যাচে যেভাবে সে বল করেছে, প্রায় ৫০ ভাগই ছিল কাটার।”

“ফাইনালে…জানি না টিভিতে কতজন লোক এটি ব্যাখ্যা করেছেন, কামিন্স অফ স্পিনারের মতো লেগ-সাইডে চার-পাঁচ জন ফিল্ডার নিয়ে বোলিং করছিল, স্টাম্প লাইন বরাবর বোলিং করছিল। কিন্তু ১০ ওভারের স্পেলে সে মাত্র তিনটি বল ৬ মিটার দাগে বা পিচের আরও ওপরে করেছে। দুটি গুরুত্বপূর্ণ উইকেট নিয়েছে। পাঁচ জন ফিল্ডার ছিল স্কয়ার লেগ, মিডউইকেট, মিড-অন, ডিপ স্কয়ার লেগ এবং লং লেগে। নিজের ১০ ওভারে মিড-অফ ফিল্ডার ছাড়াই সে বোলিং করেছে।"

মিড-অফ ফিল্ডার ছাড়া বোলিং করলেও কামিন্সের ১০ ওভারে কোনো বাউন্ডারিই মারতে পারেননি ভারতের ব্যাটসম্যানরা! এখানে তাই কামিন্সের কৃতিত্ব প্রাপ্য বলে মনে করেন অশ্বিন।

"কামিন্সের পরিকল্পনার বাস্তবায়নকে সাধুবাদ জানানো উচিত। লেগ-সাইডে ফিল্ডার নিয়ে বোলিং করার পরিকল্পনা সহজ। টেস্ট ম্যাচে এভাবে বল করা সহজ, কারণ লেগ সাইডের বাইরে কয়েকটি বল করলেও আম্পায়াররা ওয়াইড ডাকবেন না।”

"কিন্তু ওয়ানডেতে এভাবে বোলিং করে লেগ সাইডে কোনো ওয়াইড না দেওয়া, পরিকল্পনার বাস্তবায়ন করা এবং ব্যাটারদের বল ড্রাইভ করতে না দেওয়া দুর্দান্ত…আমি এই প্রথম একজন ফাস্ট বোলারকে ওয়ানডে ম্যাচে মিড-অফ ফিল্ডার ছাড়াই বোলিং করতে দেখেছি।”