জাজাই ঝড়ে রেকর্ড বইয়ে উলট-পালট

হজরতউল্লাহ জাজাইয়ের টর্নেডো ইনিংসে উলট-পালট হয়ে গেছে রেকর্ড বই। টি-টোয়েন্টির কযেকটি রেকর্ড নতুন করে লিখিয়েছেন আফগানিস্তানের বাঁহাতি এই ওপেনার।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 23 Feb 2019, 03:23 PM
Updated : 23 Feb 2019, 05:25 PM

দেরাদুনের রাজীব গন্ধী আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শনিবার আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে জাজাইয়ের সেঞ্চুরিতে ৩ উইকেটে ২৭৮ রান করে আফগানিস্তান। টি-টোয়েন্টিতে কোনো দলের এটাই সর্বোচ্চ।

আগের সর্বোচ্চ ছিল অস্ট্রেলিয়ার ৩ উইকেটে ২৬৩। ২০১৬ সালে পালেকেল্লেতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এই রান করেছিল তারা।

আফগানদের আগের সেরা ছিল আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষেই, ২০১৭ সালে গ্রেটার নয়ডায় ৮ উইকেটে ২৩৩ রান করেছিল।

দলের রানের পাহাড় গড়ার পিছনে সবচেয়ে বড় অবদান উসমান গনির সঙ্গে জাজাইয়ের রেকর্ড গড়া উদ্বোধনী জুটির। শুরুর জুটিতে ১৭ ওভার ৩ বলে তারা তুলেছিলেন ২৩৬ রান। টি-টোয়েন্টিতে যে কোনো জুটিতেই এটি সর্বোচ্চ।

আগের সেরা ছিল অ্যারন ফিঞ্চ ও ডার্সি শর্টের ২২৩। গত জুলাইয়ে হারারেতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এই রান করেছিলেন অস্ট্রেলিয়ার দুই ওপেনার। সেই রেকর্ড আরেকটু উঁচুতে নিয়ে গেলেন জাজাই-গনি।

আফগানিস্তানের আগের সেরা ছিল তৃতীয় উইকেটে গত অগাস্টে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে আসগর আফগানের সঙ্গে জাজাইয়ের ১১৬ রানের জুটি।

উদ্বোধনী জুটিতে এবারই প্রথম শতরানের জুটি পেল দেশটি। তাদের আগে সেরা ছিল ২০১৫ সালের অক্টোবরে বুলাওয়ায়োতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মোহাম্মদ শাহজাদের সঙ্গে গনির ৯৫।

ছবি: আফগানিস্তান ক্রিকেট

আফগানিস্তানের দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে সেঞ্চুরি করা জাজাই মাত্র ১০ রানের জন্য ছুঁতে পারেননি ফিঞ্চের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড। গত জুলাইয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়ান মারকুটে ব্যাটসম্যানের ১৭২ এখনও সেরা।

৬২ বলে অপরাজিত ১৬২ রান করার পথে একটি রেকর্ড অবশ্য ফিঞ্চের কাছ থেকে কেড়ে নিয়েছেন জাজাই। ১৬ ছক্কায় গড়েছেন এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ছক্কার রেকর্ড। ২০১৩ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সাউথ্যাম্পটনে ১৫৬ রান করার পথে ফিঞ্চের ১৪ ছক্কা ছিল এতো দিন রেকর্ড।

ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ছক্কার সঙ্গে হয়ে গেছে দলীয় সর্বোচ্চ ছক্কার রেকর্ডও। আফগান ব্যাটসম্যানরা সব মিলিয়ে ২২ বার উড়িয়ে সীমানা ছাড়া করেছেন বল। আগের রেকর্ড ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ভারতের অধিকারে।

২০১৬ সালের অগাস্টে ভারতের বিপক্ষে ২১ ছক্কা হাঁকিয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। পরের বছর ডিসেম্বরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২১ ছক্কায় তাদের পাশে বসেছিল ভারত। এক ইনিংসে আফগানিস্তানের সর্বোচ্চ ছক্কা ছিল স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ২০১৫ সালের ১৭ ছক্কা।

৪২ বলে তিন অঙ্ক স্পর্শ করেন জাজাই। টি-টোয়েন্টিতে তার চেয়ে কম ৩৫ বলে সেঞ্চুরি আছে কেবল দক্ষিণ আফ্রিকার ডেভিড মিলার ও ভারতের রোহিত শর্মার।

বড় লক্ষ্য তাড়ায় শতরানের জুটিতে আয়ারল্যান্ডকে ভালো শুরু এনে দেন পল স্টার্লিং ও কেভিন ও’ব্রায়েন। তবে রশিদ খানের নৈপুণ্যে এক ম্যাচ বাকি থাকতে সিরিজ নিশ্চিত করে আফগানিস্তান। ৮৪ রানে জিতে তিন ম্যাচ সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে তারা।

স্টার্লিং ৫০ বলে ১২ চার ও দুই ছক্কায় করেন ৯১। টি-টোয়েন্টিতে এটাই আয়ারল্যান্ডের কোনো ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ। ও’ব্রায়েন দুটি করে ছক্কা-চারে করেন ৩৭ রান। ভালো শুরুটা কাজে লাগাতে পারেননি পরের ব্যাটসম্যানরা।

লেগ স্পিনার রশিদ আঁটসাঁট বোলিংয়ে ২৫ রানে নেন ৪ উইকেট।

খুনে মেজাজের ব্যাটিং করা সেঞ্চুরির জন্য ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন জাজাই। 

একই ভেন্যুত রোববার আয়ারল্যান্ডকে হোয়াইটওয়াশ করার লক্ষ্যে মাঠে নামবে আফগানিস্তান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

আফগানিস্তান: ২০ ওভারে ২৭৮/৩ (জাজাই ১৬২*, গনি ৭৩, শফিকউল্লাহ ৭, নবি ১৭, জাদরান ১*; লিটল ১/৪৯, র‌্যানকিন ১/৩৫, চেইস ১/৪৩, ডকরেল ০/২৪, গেটকেট ০/৪৮, সিমি ০/১৬, স্টার্লিং ০/২৪, ও’ব্রায়েন ০/৩৫)

আয়ারল্যান্ড: ২০ ওভারে ১৯৪/৬ (স্টার্লিং ৯১, ও’ব্রায়েন ৩৭, বালবার্নি ২, টাকার ২, গেটকেট ২৪, ডকরেল ০, সিমি ১৭*, পয়েন্টার ১৫*; মুজিব ১/৩০, ফরিদ ১/৪৫, নবি ০/৩৬, জানাত ০/৩০, শিনওয়ারি ০/২৮, রশিদ ৪/২৫)

ফল: আফগানিস্তান ৮৪ রানে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: হজরতউল্লাহ জাজাই

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক