মুমিনুলে ধৈর্য হারিয়ে ফেললো বাংলাদেশ?

চার বছর আগে শ্রীলঙ্কায় টেস্ট অভিষেকের পর এই সংস্করণে বাংলাদেশ দলের অবিচ্ছেদ্য অংশে পরিণত হয়েছিলেন মুমিনুল হক। সেই শ্রীলঙ্কাতে ফিরে এবার জায়গা হারিয়েছেন বাঁহাতি এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান।

অনীক মিশকাতকলম্বো থেকে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 March 2017, 06:57 AM
Updated : 15 March 2017, 03:44 PM

মাহমুদউল্লাহ নেই। চোটের জন্য ছিটকে গেছেন লিটন দাস। গলে তিন পেসার নিয়ে খেলা বাংলাদেশের তিন স্পিনারে ফেরাও অনুমতি ছিল। চমক হয়ে আসে মুমিনুলের না থাকা। ২৫ বছর বয়সী টেস্ট বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যানের জায়গা মেলেনি দেশের শততম টেস্টে।

শুরুর দারুণ গড় নেমে এসেছে পঞ্চাশের নীচে। শেষ পাঁচ ইনিংসে নেই কোনো অর্ধশতক। ফিরেছেন ২৩, ১২, ২৭, ৭, ৫ রানে। খুব একটা রান হয়তো পাননি, কিন্তু এই সংস্করণের বিশেষজ্ঞ খেলোয়াড় হিসেবে আরেকটু সুযোগ তার প্রাপ্যই। থাকতেই পারতেন কলম্বো টেস্টে।

দেশের বড় দৈর্ঘ্যের ক্রিকেটের দুই টুর্নামেন্ট জাতীয় ক্রিকেট লিগ ও বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ শেষ হয়ে গেছে। ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলে যে পরের সিরিজের প্রস্তুতি নিবেন সেই সুযোগ নেই। কদিন পরে শুরু হবে ওয়ানডে টুর্নামেন্ট ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ। ওই সংস্করণে দেশের হয়ে খেলার সুযোগ মেলে না মুমিনুলের। নেই টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটেও। নিজেকে প্রমাণ করার জন্য তাই লম্বা সময় অপেক্ষা করতে হতে পারে মুমিনুলকে।

অপেক্ষায় থাকা বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যানের জন্য নিয়মিত ব্যাপার। দেশের হয়ে ব্যাট হাতে মাঠে নামতে লম্বা সময় অপেক্ষা করতে হয় মমিনুলকে। ইংল্যান্ড সিরিজের আগে প্রায় ১৪ মাস কোনো টেস্ট ছিল বাংলাদেশের, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বাইরে ছিলেন তাই। মাঠে নামার প্রতীক্ষা শেষ ওয়েলিংটন টেস্ট দিয়ে। ৬৪ রানের চমৎকার ইনিংসে দলের বড় ইনিংসের সুর বেধে দিয়েছিলেন তিনিই।

এর আগে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ঢাকা টেস্টে দুরূহ উইকেটে খেলেছিন ৬৬ রানের চমৎকার এক ইনিংস।

ওয়েলিংটনের সেই ম্যাচের পর ব্যাটিংয়ে খানিকটা ছন্দপতন। শেষ চার ইনিংসের তিনবারই আউট হয়েছেন এলবিডব্লিউ হয়ে। সামনের পায়ে না খেলে পিছনে পায়ে সামলাতে গিয়ে আউট হয়েছেন বাজেভাবে। গল টেস্টে দুই ইনিংসের আউট প্রায় একই রকম। হায়দরাবাদ টেস্টে রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বলে ফিরেন ক্যাচ দিয়ে।

কেবল এক সংস্করণে খেলেন বলে মুমিনুলের কাজটা অন্য সব ব্যাটসম্যানের চেয়ে কঠিন। অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম কথাটা বিভিন্ন সময়ে বলেছেনও। শততম টেস্ট নিয়ে নিজের ভাবনা জানানোর সময় মুমিনুল বলেছিলেন, এই বিরতিকে অজুহাত হিসেবে দাঁড় করাতে চান না তিনি।

“বিরতি একটু সমস্যা তো হতেই পারে। আমার বিশ্বাস, এই টেস্ট দিয়েই আমি হয়তো আগের ছন্দে ফিরতে পারবো।” 

কলম্বো টেস্টের প্রথম দিনটির জন্য উন্মুখ হয়ে অপেক্ষায় ছিলেন মুমিনুল। প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন সুযোগ পেলে স্মরণীয় কিছু করার। সেই সুযোগ আর পেলেন না তিনি। কিছু দিন আগেই বাংলাদেশ দল ধৈর্য হারিয়েছে লেগ স্পিনার জুবায়ের হোসেনের ওপর। এবার বিশেষজ্ঞ টেস্ট ব্যাটসম্যানের ক্ষেত্রেও ঘটলো একই ঘটনা। টেস্টে নিজেদের জায়গা খুঁজে ফেরা দলের পক্ষে থেকে এটা ভালো ইঙ্গিত নয়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক