ভারতে ইলিশ রপ্তানি বন্ধে রিট আবেদন

প্রতিবেশী দেশটিতে ইলিশ রপ্তানি স্থায়ীভাবে বন্ধের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে এ রিট মামলায়।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 Sept 2022, 11:32 AM
Updated : 20 Sept 2022, 11:32 AM

ভারতে ইলিশ পাঠানো বাংলাদেশের রপ্তানি নীতির ‘পরিপন্থি’ দাবি করে সরকারকে উকিল নোটিস পাঠানোর পর এবার রপ্তানি বন্ধে হাই কোর্টে রিট আবেদন করা হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. মাহমুদুল হাসান মঙ্গলবার হাই কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ আবেদন করেন।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, মৎস ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, বেসরকারি বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব, রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান, আমদানি ও রপ্তানি প্রধান নিয়ন্ত্রকের দপ্তর এবং বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যানকে এ মামলায় বিবাদী করা হয়েছে।

ভারতে কম দামে ইলিশ রপ্তানি বন্ধে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, প্রতিবেশী দেশটিতে ইলিশ রপ্তানি স্থায়ীভাবে বন্ধের নির্দেশনা কেন দেওয়া হবে না, সেই মর্মে রুলও চাওয়া হয়েছে আবেদনে।

সেখানে বলা হয়, “ইলিশ মাছ বাংলাদেশের জাতীয় মাছ হ‌ওয়া সত্ত্বেও অত্যাধিক দামের কারণে বাংলাদেশের দরিদ্র জনগোষ্ঠী এই ইলিশ মাছ কেনার কথা চিন্তাও করতে পারে না। অন্যদিকে দেশের মধ্যবিত্ত জনগণ‌ও এই ইলিশ মাছ কিনতে হিমশিম খাচ্ছে।

”ইলিশ নিয়ে সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনের কথা তুলে ধরে আবেদনকারী বলেছেন, “দরিদ্র কৃষক দুই মণ ধান বিক্রি করেও এক কেজি ইলিশ মাছ কিনতে পারছেন না। ইলিশ মাছের দাম ১ হাজার ৬০০ থেকে ১ হাজার ৮০০ টাকা পর্যন্ত কেজিতে গিয়ে ঠিকেছে। অপরদিকে বাংলাদেশের এই ইলিশ মাছ ভারতে মাত্র ১০ ডলার (প্রায় ৯৫০ টাকা) কেজি দরে রপ্তানি হচ্ছে। অর্থাৎ বাংলাদেশের বাজার মূল্যের চেয়ে প্রায় অর্ধেক দামে ভারতে ইলিশ রপ্তানি হচ্ছে।

”রিটে বিবাদীদের বিরুদ্ধে সংবিধান লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে বলা হয়, “বাংলাদেশের সংবিধান অনুযায়ী জনসাধারণের জন্য খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সরকারের অন্যতম প্রধান কর্তব্য। অপরদিকে জনগণের স্বার্থে সর্বদা নিয়োজিত থাকা বিবাদীদের সাংবিধানিক দায়িত্ব।

“দেশের বাজারের চেয়ে কম মূল্যে ভারতে ইলিশ রপ্তানি করার মাধ্যমে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্টরা দেশের সংবিধান লঙ্ঘন করেছেন। তারা দেশের মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা ধ্বংস করেছেন এবং জনগণের স্বার্থবিরোধী কাজ করেছেন।

”রপ্তানি নীতি ২০২১-২৪ অনুযায়ী ইলিশ মাছ ‘মুক্তভাবে রপ্তানিযোগ্য পণ্য নয়’ দাবি করে এ মাছ রপ্তানি স্থায়ীভাবে বন্ধের আবেদন জানানো হয়েছে।

Also Read: ভারতে ইলিশ রপ্তানি বন্ধের দাবিতে উকিল নোটিস

Also Read: ইলিশের প্রথম চালান গেল ভারতে

এছাড়া পর্যটন কর্পোরেশনকে ইলিশ মাছকেন্দ্রিক পর্যটনের বিকাশে কাজ করতে নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে রিট আবেদনে।আইনজীবী মাহমুদুল হাসান বলেন, “রিট আবেদনের ওপর শিগগিরই হাই কোর্টে শুনানি হবে।”

এর আগে গত ১১ সেপ্টেম্বর ভারতে ইলিশ পাঠানো বাংলাদেশের রপ্তানি নীতির ‘পরিপন্থি’ দাবি করে সরকারকে উকিল নোটিস পাঠিয়েছিলেন এই আইনজীবী।উকিল নোটিস পাওয়ার সাত দিনের মধ্যে ভারতে ইলিশ রপ্তানি স্থায়ীভাবে বন্ধ করতে বিবাদীদের অনুরোধ জানানো হলেও এ বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় রিট আবেদন করা হয়েছে বলে জানান আইনজীবী মাহমুদুল হাসান।

এবার দুর্গাপূজা উপলক্ষে বাংলাদেশ থেকে দুই হাজার ৪৫০ টন ইলিশ ভারতে রপ্তানির অনুমোদন দিয়েছে সরকার, যার প্রথম বেনাপোল বন্দর দিয়ে যায় ৫ সেপ্টেম্বর।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক