ঋণ-আমানতের ‘স্প্রেড’ আর থাকছে না

সুদহার বাজারভিত্তিক হওয়ায় এখন আমানত ও ঋণের সুদহারের মধ্যের সীমা নির্ধারণের প্রয়োজন নেই বলে মনে করছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 Nov 2023, 06:32 PM
Updated : 29 Nov 2023, 06:32 PM

ব্যাংকের ঋণ ও আমানতের মধ্যেকার সুদহারের ব্যবধান তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বুধবার সার্কুলারে ব্যাংকগুলোকে বলা হয়েছে, সুদহার বাজারভিত্তিকভাবে নির্ধারিত হওয়ায় সুদহারের অনিয়ন্ত্রিত বৃদ্ধি রোধ করা সম্ভব হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে আমানত ও ঋণের সুদহারের মধ্যেকার সীমা নির্ধারণের প্রয়োজন নেই।

২০১৮ সালের এক সিদ্ধান্তে ক্রেডিট কার্ড ও ভোক্তা ঋণ ছাড়া অন্যান্য ঋণ বিতরণ ও আমানতের সুদহারের মধ্যে ব্যবধান ৪ শতাংশ রাখতে বলেছিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এতদিন সেই সিদ্ধান্ত মেনেই ব্যাংকগুলো ঋণ ও আমানতের সুদহার নির্ধারণ করত।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলছে, গত জুলাই থেকে ঋণের সুদহার বাজারভিত্তিক করার লক্ষ্যে ‘স্মার্ট’ (সিক্স মান্থ মুভিং অ্যাভারেজ রেট অব ট্রেজারি বিল) এর সঙ্গে নির্ধারিত মার্জিন যোগ করে সুদহার নির্ধারণ পদ্ধতি কার্যকর করা হচ্ছে। ফলে তারল্য পরিস্থিতির বিবেচনায় ঋণের সুদহারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে আমানতের সুদহার যৌক্তিক পর্যায়ে রাখা সম্ভব হচ্ছে।

বর্তমানে ‘স্মার্ট’ সুদহারের সঙ্গে ব্যাংক ঋণে সর্বোচ্চ ৩ দশমিক ৭৫ শতাংশ মার্জিন যোগ করে সুদহার নির্ধারণ করতে পারবে ব্যাংক।

গত অক্টোবর শেষে ‘স্মার্ট’ হার ৭ দশমিক ৪৩ শতাংশ। এতে ঋণের বিপরীতে গ্রাহক পর্য়ায়ে সুদহার দাঁড়াবে ১১ দশমিক ১৮ শতাংশ।

প্রি-শিপমন্টে রপ্তানি ঋণ এবং কৃষি ও পল্লী ঋণরে সুদহার নির্ধারণ করতে হবে স্মার্ট সুদহারের সঙ্গে সর্বোচ্চ ২ দশমিক ৭৫ শতাংশ যোগ করে। এ খাতের ঋণে সর্বোচ্চ ১০ দশমিক ১৮ শতাংশ সুদ নিতে পারবে ব্যাংক।

তবে কোন ব্যাংক কত সুদহারে আমানত নিতে পারবে তা নির্দিষ্ট করে দেয়নি বাংলাদেশ ব্যাংক।