মানবপাচারকারীদের কাছে আরও উন্নত প্রযুক্তি থাকতে পারে: মোমেন

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কোনো একটি দেশে যে প্রযুক্তি নেই, পাচারকারীদের কাছে তার চেয়ে উন্নত প্রযুক্তি থাকতে পারে।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 July 2022, 05:32 PM
Updated : 30 July 2022, 05:32 PM

মানবপাচার ঠেকাতে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারে জোর দিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন সতর্ক করে বলেছেন, পাচারকারীদের কাছে আরও উন্নত প্রযুক্তি থাকতে পারে।

‘বিশ্ব মানবপাচার প্রতিরোধ দিবস’ উপলক্ষে শনিবার ঢাকায় আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা- আইওএম আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘প্রযুক্তির ব্যবহার এবং অপব্যবহার’।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “আমাদের মনে রাখতে হবে মানবপাচার একটি আন্তঃরাষ্ট্রীয় অপরাধ। কোনো একটি দেশে যে প্রযুক্তি নেই, পাচারকারীদের কাছে তার চেয়ে উন্নত প্রযুক্তি থাকতে পারে।

“মানবপাচার ঠেকাতে আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক আইনগুলোর প্রয়োগে আমরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।”

এ বিষয়ে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতির কথা তুলে ধরে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি রাখার ওপর জোর দেন আব্দুল মোমেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মানবপাচারকে গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘন উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন,”এমন জঘন্য অপরাধ ঠেকাতে আমরা সক্রিয় পদক্ষেপ নিচ্ছি।

“পাচারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিভিন্ন পক্ষের সম্পৃক্ততা প্রয়োজন। ডিজিটাল বলয়ে মানবপাচার নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে আমরা নিরলসভাবে কাজ করে যাব।”

বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী গোয়েন লুইস বলেন, “পাচারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অনেক প্রযুক্তির অনেক সম্ভাবনাও রয়েছে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এবং বিচার ব্যবস্থায় প্রযুক্তির ব্যবহার ভবিষ্যতে মানবপাচার নির্মূলে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

আইওম বাংলাদেশের মিশন প্রধান আব্দুসাত্তার এসোয়েভ বলেন, “ইন্টারনেট ও সোশ্যাল মিডিয়ায় সচেতনতা বাড়ানোর মাধ্যমে পাচারের ঝুঁকি কমানো সম্ভব।

“মানবপাচার ঠেকাতে এবং এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বেসরকারি খাতের উদ্যোগ এবং দক্ষতাকে কাজে লাগাতে টেকসই প্রযুক্তিভিত্তিক সমাধান বের করার জন্য তাদের সহযোগিতাও গুরুত্বপূর্ণ।”

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে ব্রিটিশ হাই কমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন, বাংলাদেশে সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ড, ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধি জেরেমি ওপ্রিটেসকো, বাংলাদেশে মার্কিন দূতাবাসের ভারপ্রাপ্ত ডেপুটি চিফ অব মিশন স্কট ব্র্যান্ডন উপস্থিত ছিলেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক