প্রবাসীর স্ত্রীকে গলাকেটে হত্যা, গ্রেপ্তার দুই

শনিবার গভীর রাতে রূপনগরের এক বাসা থেকে মায়া বেগম নামে ৩৭ বছর বয়সী ওই নারীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Jan 2023, 02:21 PM
Updated : 16 Jan 2023, 02:21 PM

ঢাকার রূপনগরে সৌদি প্রবাসী এক ব্যক্তির স্ত্রীকে গলাকেটে হত্যার ঘটনায় দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রোববার রাতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয় বলে ঢাকা মহানগর পুলিশের মিরপুর বিভাগের উপ-কমিশনার মো. জসীম উদ্দীন মোল্লা জানান। 

গ্রেপ্তার শিপন (৪৫) ও মো. আসাদুল ইসলামের (৩৫) কাছ থেকে ‘হত্যায় ব্যবহৃত ছুরি’ এবং একটি জ্যাকেট জব্দ করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

সোমবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে উপ-কমিশনার জসীমন মোল্লা বলেন, “গ্রেপ্তার দুজন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। তাদের আদালতে পাঠানো  হয়েছে।”

শনিবার গভীর রাতে রূপনগর 'ট' ব্লকের ৩ নম্বর রোডের ৩৬ নম্বর বাসা থেকে মায়া বেগম নামে ৩৭ বছর বয়সী এক নারীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। 

মায়ার স্বামী খোকন বিদেশে থাকেন। পাঁচ বছর বয়সী মেয়েকে নিয়ে মায়া ওই বাসার দোতলায় থাকতেন। বাড়িটি তাদের নিজেদের, অন্যান্য ফ্ল্যাটে ভাড়াটিয়া আছেন।

রুপনগর থানার ওসি আরিফুর রহমান সরদার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ফ্ল্যাটের দরজা জানালা খোলা দেখে আশপাশে মানুষ পুলিশকে খবর দেয়।

“ঘরের বিছানায় মায়ার গলাকাটা লাশ পড়ে ছিল। তার মেয়ে খাটে ঘুমিয়ে ছিল। কিন্তু সে কিছু বুঝতে পারেনি। বিছানার চাদর এলোমেলো ছিল না, শুধু রক্ত ছিল।”

গ্রেপ্তার দুজনের মধ্যে শিপন মায়ার ভাড়াটিয়া। আসাদুল পাশের আরেক বাড়িতে থাকতেন। মায়ার বাসায় তাদের আসা-যাওয়া ছিল, মায়াকে তারা মামি বলে ডাকত বলে পুলিশের ভাষ্য।

সোমবার পুলিশের সংবাদ সম্মেলনে জসীম উদ্দীন মোল্লা বলেন, “হত্যাকাণ্ডের মোটিভ আমরা খতিয়ে দেখছি। চুরি ডাকাতির উদ্দেশ্যে তারা ওই বাসায় গিয়েছিল কিনা বা পূর্ব শত্রুতা ছিল কিনা, এসব বিষয় খতিয়ে দেখা হচ্ছে। মায়ার বাসার চালের বস্তায় টাকা ছিল। টাকা আসামিরা খুঁজে পায়নি।”

এক প্রশ্নের জবাবে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, “তারা কী উদ্দেশ্যে গিয়েছে আমরা এখনই বলব না। তারা খুনের কথা স্বীকার করেছে। খুন করতে যে চাকু ব্যবহার করেছে এবং রক্তমাখা জ্যাকেট, সেগুলো উদ্ধার করা হয়েছে।"

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক