থানায় নিয়ে ছাত্রলীগ নেতাদের ‘নির্যাতন’, এডিসি হারুন প্রত্যাহার, তদন্ত শুরু

দুই ছাত্রলীগ নেতা এখন হাসপাতালে ভর্তি।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 Feb 2024, 01:03 PM
Updated : 9 Feb 2024, 01:03 PM

শাহবাগ থানায় তুলে নিয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের দুই নেতাকে নির্যাতন করার অভিযোগের মুখে ঢাকা মহানগর পুলিশের রমনা বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) হারুন অর রশিদকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগটির তদন্ত করা হচ্ছে। দোষী প্রমাণ হলে আরও ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস এসেছে।

হারুনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (গোয়েন্দা) হারুন অর রশীদ আশ্বাস দেওয়ার কিছুক্ষণ পরই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়।

ঢাকা মহানগর পুলিশের উপকমিশনার মো. ফারুক হোসেন এই সিদ্ধান্ত নিশ্চিত করে বলেন, “তাকে (এডিসি হারুন) মিরপুর পাবলিক অর্ডার ম্যানেজমেন্ট (পিওএম) এ বদলি করা হয়েছে।”

রোববার দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবি) বলেন, “ডিএমপি কমিশনারসহ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বিষয়টি জানেন। এটি তদন্ত করা হবে, তদন্তে এডিসি দোষী হলে তার বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শনিবার রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের দুই নেতাকে শাহবাগ থানায় নিয়ে পেটানোর অভিযোগ উঠে পুলিশের রমনা বিভাগের এডিসি হারুন অর রশিদের বিরুদ্ধে।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী বারডেম হাসপাতালে এক নারীর সঙ্গে আড্ডা দিচ্ছিলেন হারুন। সেই নারীর স্বামী দুই ছাত্রলীগ নেতাকে নিয়ে সেখানে গেলে দুই পক্ষে কথা কাটাকাটি হয়।

পরে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক ও ঢাবির শহীদুল্লাহ হলের সাধারণ সম্পাদক শরীফ আহমেদ মুনিম এবং কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও ফজলুল হক হলের সভাপতি আনোয়ার হোসেন নাঈমকে শাহবাগ থানা ধরে নিয়ে পেটানোর অভিযোগ উঠে।

দুই ছাত্রলীগ নেতা এখন হাসপাতালে ভর্তি।

এ ঘটনার জেরে রাতেই শাহবাগ থানার সামনে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ভিড় করেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও পুলিশের কর্মকর্তারা থানায় যান।

এডিসি হারুনের বিরুদ্ধে এর আগেও নানা সময় বিরোধী রাজনৈতিক কর্মী ও সাংবাদিকদের ‘অতিরিক্ত শক্তি’ প্রয়োগের অভিযোগ ছিল। 

(প্রতিবেদনটি প্রথম ফেইসবুকে প্রকাশিত হয়েছিল ১০ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক)