পাকিস্তানে আইএমএফের ঋণ বন্ধ করাতে চান ইমরান খান

কেবল সুশাসন থাকলেই আইএমএফ, ইইউ এবং অন্যান্য সংস্থাগুলো সেদেশে ঋণ দিতে পারে- বলেন ইমরানের দল পিটিআইয়ের এক নেতা।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 Feb 2024, 05:58 PM
Updated : 22 Feb 2024, 05:58 PM

পাকিস্তানের নির্বাচনে ভোট জালিয়াতির কারণে দেশটিতে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) যাতে ঋণ সহায়তা বন্ধ করে দেয়, সেটিই চাইছেন কারান্তরীণ সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) এর প্রতিষ্ঠাতা ইমরান খান।

পাকিস্তানের জিও নিউজ জানায়, বৃহস্পতিবার পিটিআই নেতা আলি জাফর বলেছেন, 'আইএমএফ এর কাছে এই দাবি জানিয়ে আজ একটি চিঠি লিখবেন ইমরান খান'।

রাওয়ালপিণ্ডির আদিয়ালা জেলে ইমরানের সঙ্গে দেখা করার পর সাংবাদিকদের জাফর বলেন, “আইএমএফ, ইইউ এবং অন্যান্য সংস্থাগুলোর সনদে এই শর্তের উল্লেখ আছে যে, একটি দেশে কেবল সুশাসন থাকলেই সেদেশে তারা কাজ করতে পারে বা ঋণ দিতে পারে।”

তাদের সনদের “সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অনুচ্ছেদে” একটি দেশকে গণতান্ত্রিক হতে হবে, সেটিও বলা আছে বলেও দাবি করেন জাফর। তিনি বলেন, “কোনও গণতন্ত্র না থাকলে এই প্রতিষ্ঠানগুলো সেসব দেশে কাজ করতে পারে না, করা উচিতও না।

“গণতন্ত্রের মৌলিক ভিত্তি হচ্ছে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন। গোটা বিশ্বই দেখেছে জাতির জনরায় কিভাবে চুরি করা হয়েছে। ভোটের আগে যে ডাকাতি করা হয়েছে সেকথা নাহয় ছেড়েই দিন। ভোটের পরে ডাকাতি করে পিটিআই এর জয়ী প্রার্থীদের বিজয় ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে। রাতের অন্ধকারে মানুষের ভোট চুরি করা হয়েছে।”

নির্বাচনী ফলের অডিট না করেই এখন আইএমএফ এর কাছে অর্থনীতি পুনরুদ্ধার প্যাকেজ (বেইলআউট) এর জন্য চলে যাওয়াটা দেশের জন্য ক্ষতিকর হবে বলেই মন্তব্য করেন জাফর।

পাকিস্তানি গণমাধ্যম জি নিউজের প্রদর্শিত ফলাফল অনুযায়ী, গত ৮ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনে কারাগারে থাকা সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দল পাকিস্তান-তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা পার্লামেন্টে ৯২টি আসন পেয়েছে, আর পিএমএল-এন পেয়েছে ৭৯টি ও পিপিপি ৫৪টি।

দেশটিতে ইতোমধ্যে জোট সরকার গঠনে একমত হয়েছে পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) এবং পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি)। ক্ষমতা ভাগাভাগি নিয়ে কয়েক দিনের দর-কষাকষির পর দুইদলের মধ্যে এ সমঝোতা হয়।

কিন্তু ইমরানের দল পিটিআই ও অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলো একযোগে এই নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করে দেশজুড়ে বিক্ষোভের ডাক দেয়।

এর মধ্যেই গত বুধবার পাকিস্তান তেহরিক–ই–ইনসাফ (পিটিআই) সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা আনুষ্ঠানিকভাবে সুন্নি ইত্তেহাদ কাউন্সিল দলে যোগ দিয়েছে। তারা এখন পার্লামেন্টের বিরোধী দল হতে চলেছে।

বিরোধী দলের নেতাও তাদের মধ্য থেকে নির্বাচিত হবেন। ৩ মার্চে নতুন করে পিটিআইয়ের অন্তর্দলীয় নির্বচন হবে।