পারমাণবিক যুদ্ধের জন্য নাগরিকদের প্রস্তুত করছে রাশিয়া: জেলেনস্কি

রাশিয়ার এই পারমাণবিক হুমকি বন্ধে বিশ্বকে এখনই ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 Oct 2022, 07:33 PM
Updated : 7 Oct 2022, 07:33 PM

ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, যুদ্ধে পারমাণবিক অস্ত্রের সম্ভাব্য ব্যবহারের জন্য রাশিয়ার কর্মকর্তারা ‘তাদের সমাজকে প্রস্তুত করতে’ শুরু করেছেন।

তবে জেলেনস্কি এও বলেছেন, রাশিয়া এ অস্ত্র ব্যবহার করতে প্রস্তুত বলে তিনি বিশ্বাস করেন না।

শুক্রবার বিবিসি’র সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে জেলেনস্কি একথা বলেন। একইসঙ্গে রাশিয়ার পারমাণবিক হুমকি বন্ধে বিশ্বকে এখনই ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

১৯৬২ সালে কিউবার মিসাইল সংকটের পর রাশিয়ার পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের হুমকি সবচেয়ে বড় ঝুঁকি সৃষ্টি করেছে বলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন মন্তব্য করার কয়েকঘন্টা পরই ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি বিবিসি- কে ওই সাক্ষাৎকার দেন।

ইউক্রেইনের রাজধানী কিইভের প্রেসিডেন্ট প্রাসাদ থেকে ইংরেজি ভাষায় দেওয়া সাক্ষাৎকারে জেলেনস্কি বলেন, তারা (রাশিয়া) তাদের সমাজকে প্রস্তুত করতে শুরু করেছে। এটি খুবই বিপজ্জনক।”

“তারা এটি (পারমাণবিক যুদ্ধ) করতে প্রস্তুত নয়, তারা এটি (পারমাণবিক অস্ত্র) ব্যবহার করতে প্রস্তুত নয়। কিন্তু তারা এ ধারণা ছড়িয়ে দিতে শুরু করেছে। তারা জানে না এটি ব্যবহার করবে কিনা। আমি মনে করি এমনকী এটি (পারমাণবিক অস্ত্র) নিয়ে কথা বলাটাও বিপজ্জনক।”

জেলেনস্কি আরও বলেন, রাশিয়ার হুমকি গোটা বিশ্বের জন্যই ঝুঁকি হয়ে ওঠায় এখনই এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া দরকার। রাশিয়ার পারমাণবিক অস্ত্রের হুমকির মুখে বিশ্বের প্রতিটি দেশেরই প্রস্তুত থাকা উচিত বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

রাশিয়া এরই মধ্যে ইউক্রেইনের জাপোরিজিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র দখল করেছে এবং ইউরোপের সবচেয়ে বড় এই পারমাণবিক কেন্দ্রকে মস্কো নিজেদের সম্পত্তি বানাতে চাইছে বলে অভিযোগ করেন জেলেনস্কি।

তিনি বলেন, “বিশ্ব জরুরি ভিত্তিতে রুশদখলদ্বারদের এইসব কর্মকাণ্ড বন্ধ করতে পারে। এরকম ক্ষেত্রে বিশ্ব রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা প্যাকেজের বাস্তবায়ন করতে পারে এবং তাদেরকে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি ছেড়ে যেতে বাধ্য করতে সবকিছুই করতে পারে।”

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন হয় পারমাণবিক অস্ত্র কিংবা রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের পথে যেতে পারেন বলে ধারণা প্রকাশ করে জেলেনস্কি বলেছেন, পুতিনের কাছে ইউক্রেইনের জনগণের জীবনের মূল্য নেই। সেকারণে তিনি এমন পদক্ষেপ নিতেও পারেন।

পুতিন ইউক্রেইন যুদ্ধকে রাশিয়া এবং পশ্চিমাদের মধ্যে একটি অস্তিত্বের লড়াই হিসাবে ছুড়ে দিয়েছেন। তার অভিযোগ, পশ্চিমারা রাশিয়াকে ধ্বংস করা এবং দেশটির বিশাল প্রাকৃতিক সম্পদের ভাণ্ডারের নিয়ন্ত্রণ করতে চায়।

পুতিন পশ্চিমাদের হুঁশিয়ার করে বলেছেন, যখন তিনি বলেন রাশিয়াকে রক্ষা করতে তিনি পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার করতে প্রস্তুত আছেন সেটা যেন তারা ‘ধাপ্পা’ বলে ধরে না নেয়।

পুতিন এবং অন্যান্য ঊর্ধ্বতন রুশ কর্মকর্তারা ইউক্রেইনের কাছ থেকে দখলে নেওয়া নতুন চার অঞ্চলের সুরক্ষায় ছোটখাট পারমাণবিক অস্ত্র, ট্যাকটিকাল অস্ত্র ব্যবহার করা হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন। যদিও পশ্চিমা কর্মকর্তারা বলছেন, মস্কো সেটি করতে প্রস্তুত এমন কোনও প্রমাণ তারা এখনও পাননি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক