ইসরায়েলের বিমান হামলায় সিরিয়ায় ইরানের কনস্যুলেট ধ্বংস

ইরানের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, রেভল্যুশনারি গার্ড বাহিনীর একজন ঊর্ধ্বতন কমান্ডার এবং কয়েকজন কূটনীতিক এ হামলায় নিহত হয়েছেন।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 April 2024, 06:15 PM
Updated : 1 April 2024, 06:15 PM

সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে ইসরায়েলের বিমান হামলায় সেখানে অবস্থিত ইরানি কনস্যুলেট ভবন ধ্বংস হয়েছে। কয়েকজন মানুষও হতাহত হয়েছে বলে জানিয়েছে সিরিয়া কর্তৃপক্ষ।

ইরানের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে আছেন রেভল্যুশনারি গার্ড বাহিনীর বিদেশি অভিযান পরিচালনা শাখা কুদস ফোর্সের এক ঊর্ধ্বতন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার-জেনারেল মোহাম্মদ রেজা জাহেদি।

গণমাধ্যমে আসা ছবিতে বহুতল ওই কনস্যুলেট ভবন থেকে ধোঁয়া এবং ধুলো উড়তে দেখা গেছে। পশ্চিমাঞ্চলীয় মেজেহ জেলার একটি মহাসড়কে ইরানি দূতাবাসের ঠিক পাশেই রয়েছে এই কনস্যুলেট ভবন।

ইসরায়েলের সেনাবাহিনী বিদেশি গণমাধ্যমের এমন খবরের বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

বিবিসি জানায়, সিরিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রণালয় বলেছে, ইসরায়েলের বিমান অধিকৃত গোলান মালভূমি থেকে কনস্যুলেট ভবনকে হামলার নিশানা করেছিল। সিরিয়ার বিমান প্রতিরক্ষা বাহিনী ইসরায়েলের ছোড়া কিছু ক্ষেপণাস্ত্র গুলি করে ভূপাতিত করেছে। কিন্তু অন্য আরও ক্ষেপণাস্ত্র কনস্যুলেটে আঘাত হেনে গোটা ভবনই ধসিয়ে দিয়েছে এবং ভেতরে থাকা প্রত্যেকেই হতাহত হয়েছে।

ধ্বংসস্তুপের ভেতর থেকে মৃতদেহ এবং আহতদের উদ্ধারের কাজ চলছে বলে জানিয়েছে মন্ত্রণালয়। তবে হতাহতদের পরিচয় কী সে সম্পর্কে কোনও তথ্য জানায়নি তারা। ইরানের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে কয়েকজন কূটনীতিক আছেন।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস বলছে, হামলায় নিহত হয়েছে ৮ জন। এরা হলেন, কুদস ফোর্সের ঊর্ধ্বতন একজন কমান্ডার, দুই ইরানি উপদেষ্টা এবং রেভল্যুশনারি গার্ডের পাঁচ সদস্য।

ইসরায়েল গত কয়েকবছরে সিরিয়ায় ইরান-সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন লক্ষ্যে শত শত হামলা চালিয়েছে। কিন্তু এসব হামলার কথা তারা স্বীকার করে না বললেই চলে।