দিল্লির বায়ুদূষণ, বৃষ্টির আশায় নগরবাসী

দিল্লির আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে দুএক দিনের মধ্যে বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 Nov 2023, 01:20 PM
Updated : 27 Nov 2023, 01:20 PM

ধোঁয়াশার ভারী চাদর মুড়ে সোমবার সকাল এসেছে ভারতের রাজধানী দিল্লিতে। দিনের আলো ফুটে উঠলেও মেলেনি সূর্যের দেখা। বাতাসে দূষণের মাত্রা এতটাই বেশি যে নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হয়, চোখ জ্বালা করে। দৃষ্টিসীমাও অস্পষ্ট।

দিল্লির বাতাসের মারাত্মক এ দূষণ দূর করতে এখন নগরবাসী তাকিয়ে আসে আকাশের দিকে, খুঁজে বেড়াচ্ছে মেঘ। যা থেকে বৃষ্টি হলে যদি বাতাসে দূষণের মাত্রা খানিকটা কমে। ধোঁয়াশা কাটিয়ে দেখা যায় পরিষ্কার আকাশ। যেভাবে দীপাবলির দুইদিন আগে বৃষ্টি ঝরে আকাশ-বাতাস নির্মল হয়ে উঠেছিল।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো জানায়, দ্য ন্যাশনাল ক্যাপিটাল রিজন (এনসিআর) সোমবার সকালে দিল্লির বায়ু দূষণের মাত্রাকে ‘মারাত্মক’বলে নিবন্ধন করেছে। সোমবার সকাল ১০টার দিকে দিল্লির কোথাও কোথাও এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স বা ‘একিউআই’ ৪৫৪ পর্যন্ত উঠতেও দেখা গেছে বলে সেন্ট্রাল পলিউশন কন্ট্রোল বোর্ডের (সিপিসিবি) তথ্যে পাওয়া গেছে।

সিপিসিবির তথ্যানুযায়ী এদিন সবচেয়ে দূষিত ছিল দিল্লির অশোক বিহার (একিউআই ৪৫৪)। এছাড়াও সোনিয়া বিহার (একিউআই ৪৪৮),  আইটিও (একিউআই ৪৩৮), পাঞ্জাবি বাগ (একিউআই ৪৩৬), মুন্ডকা (একিউআই ৪৪৫), জাহাঙ্গীরপুরি (একিউআই ৪৩৪), রোহিনি একিউআই (৪৩১) সহ আরো অনেক এলাকার বায়ু ‘মারাত্মক’ দূষিত ছিল।

দিল্লির বাসিন্দা ডা. আরকে শর্মা এএনআইকে বলেন, “দিল্লিতে বায়ু দূষণের মাত্রা এতটাই খারাপ পর্যায়ে চলে গেছে যে মানুষের ফুসফুস মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। দূষণের কারণে আমার নিজেও নিঃশ্বাস নিতে খানিকটা কষ্ট হচ্ছে। সকালে যেহেতু দূষণের মাত্রা সবচেয়ে ভয়াবহ থাকে তাই স্থানীয় বাসিন্দাদের কয়েক দিন মর্নিংওয়াক বা সকালে শরীর চর্চার জন্য সাইকেল চালাতে যাওয়া উচিত না।”

আঞ্চলিক আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে সোমবার দিল্লিতে বৃষ্টি হওয়ার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। বৃষ্টি হলে বাতাসের অবস্থার কিছুটা উন্নতি হতে পারে বলে আশা প্রকাশ করা হচ্ছে।

দিল্লির বায়ু দূষণ নিয়ে কি করা যায় সে বিষয়ে আলোচনার জন্য স্থানীয় সরকারের পরিবেশমন্ত্রী গোপাল রাই শুক্রবার বৈঠক করেছেন। সেদিন এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে তিনি বলেন, “এখন জমিতে নাড়া পোড়ানোর ঘটনা অনেক কমে গেছে। তারপরও বাতাসে দূষণের মাত্রা বাড়ছে। বিজ্ঞানীরা এর পেছনে দুই থেকে তিনটি কারণ চিহ্নিত করেছেন। তারমধ্যে প্রথমটি হলো যানবাহনের ধোঁয়া। যেটা বায়ু দূষণের জন্য ৩৬ শতাংশ দায়ী। দ্বিতীয় স্থানে আগে জৈব জ্বালানির ব্যবহার। আজকের বৈঠকে এ বিষয়ে আমরা কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি।”

আরও পড়ুনঃ

Also Read: দিল্লির বায়ু দূষণ চরমে, নির্মাণ কাজ বন্ধের নির্দেশ

Also Read: বায়ু দূষণ: দিল্লির সব স্কুল-কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ

Also Read: দিল্লির বায়ু দূষণ চরমে, নির্মাণ কাজ বন্ধের নির্দেশ