অপ্রত্যাশিত অর্থনৈতিক মন্দায় জাপান

দেশটির মোট জিডিপি একবছর আগের তুলনায় ২০২৩ সালের শেষ তিন মাসে প্রত্যাশার চেয়েও ০ দশমিক ৪ শতাংশ বেশি সংকুচিত হয়েছে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 Feb 2024, 03:54 PM
Updated : 15 Feb 2024, 03:54 PM

জাপানের অর্থনীতি টানা দুই প্রান্তিকে সংকুচিত হওয়ার পর অপ্রত্যাশিতভাবে মন্দায় পড়েছে দেশটি।

দেশটির মোট জিডিপি একবছর আগের তুলনায় ২০২৩ সালের শেষ তিন মাসে প্রত্যাশার চেয়েও ০ দশমিক ৪ শতাংশ বেশি সংকুচিত হয়েছে।

এর আগের প্রান্তিকে জাপানের অর্থনীতি ৩.৩ শতাংশ সংকুচিত হওয়ার পর এই মন্দা দেখা দিয়েছে।

জাপানের মন্ত্রিপরিষদ কার্যালয়ের পরিসংখ্যানে বলা হয়েছে, জাপান বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ হিসাবে তাদের অবস্থান হারিয়েছে। এ অবস্থানে এখন উঠে এসেছে জার্মানি।

অর্থনীতিবিদরা আশা করেছিলেন, নতুন তথ্যে হয়ত দেখা যাবে, জাপানের জিডিপি গত বছরের চতুর্থ ত্রৈমাসিকে ১ শতাংশের বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে।

কোন দেশে টানা দুই প্রান্তিকে অর্থনীতি সংকুচিত হলে তা সাধারণত মন্দা হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

অক্টোবরে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) পূর্বাভাস দিয়েছিল যে, মার্কিন ডলারে হিসেব করা হলে জার্মানি বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ হিসেবে জাপানকে টপকে যাবে।

অর্থনীতিবিদ নীল নিউম্যান বিবিসি-কে বলেছেন, সাম্প্রতিক পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, ২০২৩ সালে জাপানের অর্থনীতি ছিল প্রায় ৪ দশমিক ২ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যমানের। যেখানে জার্মানির অর্থনীতি ছিল ৪ দশমিক ৪ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যমানের।

তিনি আরও বলেন, ডলারের বিপরীতে জাপানি ইয়েনের দুর্বলতার কারণে এমন ঘটেছে। ইয়েনের মূল্য পুনরুদ্ধার করতে পারলে জাপান আবার তিন নম্বর স্থান ফিরে পেতে পারে।

এ মাসে রাজধানী টোকিওয় এক সংবাদ সম্মেলনে আইএমএফ এর উপ প্রধান গীতা গোপীনাথ বলেন, জাপানের র‍্যাংকিংয়ে পিছিয়ে যাওয়ার একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ হল গত বছর মার্কিন ডলারের বিপরীতে ইয়েনের দাম ৯ শতাংশ কমে যাওয়া।

ইয়েনের দুর্বলতা জাপানের কিছু বড় প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বাড়াতে সহায়ক হয়েছে। কারণ, এতে বিশ্ব বাজারে গাড়ির মত পণ্য রপ্তানির খরচ কমে গেছে।