খান ইউনিসে হাসপাতালে চড়াও ইসরায়েলি বাহিনী

গাজার দক্ষিণের প্রধান নগরী খান ইউনিসের পশ্চিমে ভূমধ্যসাগরীয় উপকূলের কাছে প্রথমবারের মতো আল-মাওয়াসি জেলায় অগ্রসর হয়েছে ইসরায়েলি সেনারা।

রয়টার্স
Published : 22 Jan 2024, 06:07 PM
Updated : 22 Jan 2024, 06:07 PM

নতুন বছরে সবচেয়ে রক্তক্ষয়ী লড়াইয়ে খান ইউনিসের পশ্চিমাঞ্চলের গভীরে অগ্রসর হতে থাকা ইসরায়েলি বাহিনী সোমবার একটি হাসপাতালে চড়াও হয়েছে এবং আরেকটি হাসপাতাল অবরুদ্ধ করেছে।

এতে ট্রমা কেয়ার থেকে আহতরা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। গাজার দক্ষিণের প্রধান নগরী খান ইউনিসের পশ্চিমে ভূমধ্যসাগরীয় উপকূলের কাছে প্রথমবারের মতো আল-মাওয়াসি জেলায় অগ্রসর হয়েছে ইসরায়েলি সেনারা।

সেখানে তারা আল-খাইর হাসপাতলে ঢুকে পড়ে চিকিৎসাকর্মীদের গ্রেপ্তার করেছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছেন গাজার স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আশরাফ আল কিদরা।

হাসপাতালের পরিস্থিতি সম্পর্কে ইসরায়েলের কাছ থেকে তাৎক্ষণিক কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি। সেনাবাহিনীর মুখপাত্রর কার্যালয় এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করেনি।

ফিলিস্তিনের রেড ক্রিসেন্ট বলেছে, খান ইউনিসের আরেকটি হাসপাতাল আল-আমাল ঘিরে রেখেছে ট্যাংক। এ হাসপাতালটি উদ্ধার সংস্থার সদরদপ্তর। সেখানে স্টাফদের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

গাজার স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আশরাফ আল কিদরা বলেছেন, রাতভর খান ইউনিসে ইসরায়েলের হামলায় অন্তত ৫০ জন নিহত হয়েছে। তার ওপর হাসপাতালগুলো ইসরায়েলি সেনারা ঘেরাও করে রাখার মানে হচ্ছে, সেখানকার বহু মৃতদেহ এবং আহতদের কাছে উদ্ধারকারীরা পৌঁছতে পারেনি।

তিনি বলেন, “ইসরায়েলি সেনাদের দখলদারিত্বের কারণে অ্যাম্বুলেন্স খান ইউনিসের পশ্চিমাঞ্চল থেকে শহীদদের লাশ কিংবা আহতদেরকে উদ্ধার করতে যেতে পারছে না।

ইসরায়েল বলছে, হামাস যোদ্ধারা হাসপাতালের ভেতর এবং বাইরে থেকে তৎপরতা চালাচ্ছে। তবে হামাস এবং হাসপাতালের কর্মীরা এমন কথা অস্বীকার করেছে।