সাইবার হামলায় ব্যবহার বাড়ছে ‘ডিপফেইক’-এর

তথ্য-প্রযুক্তি, প্রোগ্রামিং ও অন্যান্য সফটওয়্যার খাতে কর্মস্থল থেকে দূরে বসে বা ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ চাকরিগুলোর ক্ষেত্রে ভিডিও ইন্টারভিউতে চাকরিদাতাদের বোকা বানাতে ডিপফেইক প্রযুক্তি ব্যবহার করছে প্রতারকরা।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 August 2022, 01:54 PM
Updated : 8 August 2022, 02:06 PM

সাইবার হামলায় ‘ডিপফেইক’ প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ছে বলে উঠে এসেছে সাম্প্রতিক এক গবেষণা প্রতিবেদনে। গেল বছরেই ডিজিটাল কনটেন্টে মানুষের মুখাবয়ব আর কণ্ঠ পাল্টে দেওয়ার এ প্রযুক্তির অপব্যবহার বেড়েছে ১৩ শতাংশ।

সোমবার প্রকাশিত মার্কিন ক্লাউড কম্পিউটিং কোম্পানি ভিএমওয়্যার-এর ‘গ্লোবাল ইনসিডেন্ট রেসপন্স থ্রেট রিপোর্ট’-এর প্রশ্ন-উত্তরে অংশ নেওয়া সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের মধ্যে ৬৬ শতাংশ বলেছেন, গত এক বছরে সাইবার হামলার ঘটনাগুলোতে অন্তত একবার হলেও ডিপফেইক প্রযুক্তির ব্যবহার দেখেছেন তারা।

এ প্রসঙ্গে ভিএমওয়্যারের প্রধান সাইবার নিরাপত্তা কৌশলবিদ রিক ম্যাকএলরয় এক বিবৃতিতে বলেছেন, “ভবিষ্যতে সাইবার হামলায় ডিপফেইকের ব্যবহার হবে, বিষয়টা এমন নয়। এর ব্যবহার এরইমধ্যে শুরু হয়ে গেছে।”

ডিপফেইক প্রযুক্তিতে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স বা এআই প্রযুক্তির সহযোগিতা নিয়ে কোনো ব্যক্তি যে কাজগুলো করেননি বা যা কখনোই বলেননি, এমন সব করিয়ে নেওয়া যায়। এই প্রযুুক্তি ২০১৯ মূল ধারায় যোগ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রযুক্তি শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা আশঙ্কা করছিলেন, প্রতারণা ও মিথ্যাচারের কাজে ব্যবহার হবে এই প্রযুক্তি।

প্রথমদিকের ডিপফেইক ছবি ও ভিডিও চিহ্নিত করা সহজ হলেও সার্বিক প্রযুক্তি বাজারের অগ্রগতির সঙ্গে সঙ্গে এই প্রযুক্তিও সামনে এগিয়েছে; ডিপফেইক প্রযুক্তি এখন এতোটাই নিখুঁত যে ভুয়া ছবি বা ভিডিও চিহ্নিত করাই কঠিন কাজ।

এ বছরের মার্চ মাসেই সামাজিক মাধ্যমগুলোতে ভাইরাল হয়েছিল ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির একটি ডিপফেইক ভিডিও। ভিডিওতে নিজ দেশের সৈনিকদের রাশিয়ার কাছে আত্মসমর্পন করতে বলেছিলেন ভুয়া জেলেনস্কি। পরবর্তীতে ভিডিওটি নিজস্ব প্ল্যাটফর্ম থেকে মুছে দেয় সামাজিক মাধ্যমগুলো।

ডিপফেইক নিয়ে সম্প্রতি সতর্কবার্তা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল বুরো অফ ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই)। তথ্য-প্রযুক্তি, প্রোগ্রামিং ও অন্যান্য সফটওয়্যার খাতে কর্মস্থল থেকে দূরে বসে বা ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ চাকরিগুলোর ক্ষেত্রে ভিডিও ইন্টারভিউতে চাকরিদাতাদের বোকা বানাতে ডিপফেইক প্রযুক্তি ব্যবহার করছে প্রতারকরা।

গবেষণার অংশ হিসেবে ১২৫ জন সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞের সাক্ষাৎকার নিয়েছিল ভিএমওয়্যার। গেল বছরের যে সাইবার হামলাগুলোতে ডিপফেইক প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে তার ৭৮ শতাংশের বেলায় হামলা চালানো হয়েছে ভুক্তভোগীর ইমেইল ঠিকানা ব্যবহার করে।

প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট সিনেট বলছে, এ ধরনের সাইবার হামলা সবচেয়ে বেশি নজরে আসছে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে; বিশ্বস্ত কারও ছদ্মবেশে ভুক্তভোগীর কাছ থেকে স্পর্শকাতর তথ্য জেনে নিতে ইমেইলের মাধ্যমে ভুক্তভোগীর সঙ্গে যোগাযোগ করছে হ্যাকাররা।

ভিএমওয়্যারের গবেষণায় অংশগ্রহণকারী সাইবার নিরাপত্তা গবেষকদের ৬০ শতাংশ বলেছেন, ইউক্রেইনে রাশিয়ার সামরিক আগ্রাসন শুরু হওয়ার পর থেকে সাইবার অপরাধ বেড়েছে লক্ষণীয় হারে।

অন্যদিকে, র‌্যানসমওয়্যার হামলাও কমছে না; গত ১২ মাসে র‌্যানসমওয়্যার হামলার স্বাক্ষী হয়েছেন গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে অর্ধেকের বেশি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক