চলে গেলেন মহাকাশে ‘দীর্ঘতম সময় কাটানো’ ভ্যালেরি পোলিয়াকভ

১৯৯৪ সালের জানুয়ারি থেকে পরের বছর মার্চ পর্যন্ত মহাকাশে ‘মির স্পেস স্টেশনে’ একটানা ৪৩৭ দিন ছিলেন পোলিয়াকভ, এ সময়ে পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করেছেন সাত হাজারেরও বেশিবার।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 Sept 2022, 11:45 AM
Updated : 20 Sept 2022, 11:45 AM

মহাকাশে টানা দীর্ঘতম সময় কাটানোর রেকর্ডধারী নভোচারী ভ্যালেরি পোলিয়াকভের জীবনাবসান হয়েছে। তার বয়স হয়েছিল ৮০ বছর।

১৯৯৪ সালের জানুয়ারি মাস থেকে ১৯৯৫ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত মহাকাশে ‘মির স্পেস স্টেশনে’ একটানা ৪৩৭ দিন ছিলেন তিনি, এ সময়ে পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করেছেন সাত হাজারেরও বেশিবার।

এক বিবৃতিতে সোমবারেই পোলিয়াকভের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে রাশিয়ার মহাকাশ গবেষণা সংস্থা রসকসমস। বিবৃতিতে সংস্থাটি বলেছে, “মানবদেহ যে কেবল পৃথিবীর কক্ষপথ ভ্রমণে নয়, গহীন মহাকাশে অভিযানের উপযোগী, সেটি প্রমাণ করতে সহযোগিতা করেছিল তার গবেষণা।”

রসকসমস এবং দ্য মস্কো টাইমস এই নভোচারীর মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করলেও কোনো কারণ উল্লেখ করেনি।

একজন ডিগ্রিধারী চিকিৎসক ছিলেন পোলিয়াকভ। মানব দেহ দীর্ঘ সময় মহাকাশে অবস্থানের উপযোগী, সেটাই প্রমাণ করে দেখাতে চেয়েছিলেন তিনি।

মহাকাশে ৪৩৭ দিন অবস্থানের পর পৃথিবীতে ফিরেও প্রথা বিরুদ্ধ কাজ করেছেন পোলিয়াকভ। নভোচারীরা পৃথিবীতে ফেরার পর তাদের পৃথিবীর মাধ্যাকর্ষণ শক্তির সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার সময় দিতে সহকর্মীরা মিলে তাদের বহন করে নিয়ে যাওয়ার চল আছে।

কিন্তু এর ব্যতিক্রম ছিলেন পোলিয়াকভ; সয়ুজ ক্যাপসুল থেকে বেরিয়ে আসার সময়ে রসকসমস কর্মীদের সহযোগিতা নিলেও নিজেই হেঁটে গিয়ে গাড়িতে বসেন তিনি।

১৯৯৪-৯৫ সালের মির মিশনের আগেও ১৯৮৮ সালের অগাস্ট মাস থেকে ১৯৮৯ সালের এপ্রিল মাস পর্যন্ত টানা ২৪০ দিন মহাকাশে ছিলেন পোলিয়াকভ।

সোভিয়েত ইউনিয়ন এবং পরবর্তীতে রাশিয়ার মহাকাশ গবেষণা প্রকল্পগুলোতে ভূমিকার জন্য একাধিক পদক ও সম্মাননা পেয়েছিলেন এই নভোচারী; যার মধ্যে আছে ‘হিরো অফ দ্য সোভিয়েত ইউনিয়ন’, ‘হিরো অফ দ্য রাশিয়ান ফেডারেশন’ পদবী এবং ‘অর্ডার অফ লেনিন’ পদক।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক