ইউরোপে ২০২৪ সালের মধ্যে ফোনে ইউএসবি-সি 'বাধ্যতামূলক'

উৎপাদন প্রক্রিয়ার জটিলতার কারণে এখন বিশ্বের সব বাজারের জন্যই ইউএসবি-সি পোর্টবাহী আইফোন নির্মাণে বাধ্য হতে পারে অ্যাপল।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 6 Oct 2022, 11:36 AM
Updated : 6 Oct 2022, 11:36 AM

স্মার্টফোনের চার্জার নিয়ে নতুন আইন পাশ হয়েছে ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টে। ২০২৪ সালের মধ্যে সকল মোবাইল ফোন এবং ছোট ডিভাইসে ইউএসবি-সি চার্জিং প্রযুক্তির ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে নতুন আইনে।

প্রযুক্তি শিল্পের সিংহভাগ হার্ডওয়্যার নির্মাতা নিজস্ব ডিভাইসে ইউএসবি-সি চার্জিং প্রযুক্তি ব্যবহার করছেন; এ ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম কেবল আইফোন নির্মাতা অ্যাপল। তাই, নতুন আইন পাশ হওয়ার পর সবার চোখ এখন অ্যাপলের দিকে বলে জানিয়েছে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট সিনেট।

ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ই-বর্জ্য কমানোর লক্ষ্যে সকল ফোনের জন্য একই চার্জিং প্রযুক্তি ব্যবহারে বাধ্যবাধকতা দেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে বছর দশেক ধরে; কিন্তু আইনটি চূড়ান্ত হয়েছে এ বছরের জুন মাসে।

সিনেট জানিয়েছে, ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টে নতুন আইনের পক্ষে ভোট পড়েছিল ৬০২টি। বিপক্ষে ভোট দিয়েছে ১৩ সদস্য, আর ভোট দেওয়া থেকে বিরত ছিলেন আটজন।

কেবল স্মার্টফোন বা মোবাইল ফোন নতুন আইনের অধীনে থাকবে এমনটা নয়। ট্যাবলেট, ডিজিটাল ক্যামেরা, হেডফোন, বহনযোগ্য গেইমিং কনসোল এবং আকারে ছোট অন্যান্য ডিভাইসের ক্ষেত্রেও কার্যকর হবে এ আইন।

সিনেট জানিয়েছে, ২০২৬ সালের বসন্ত থেকে আইনটি ল্যাপটপ কম্পিউটারের বেলাতেও কার্যকর হবে।

নতুন আইনের পেছনে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের মূল উদ্দেশ্যই ছিল প্রযুক্তি শিল্পের ই-বর্জ্য উৎপাদনের হার কমানো। এর ফলে, ব্যবহারকারীর ডিভাইসের নির্মাতা যে কোম্পানিই হোক না কেন, একই কেবল বা চার্জার দিয়ে বাজারের সকল বহনযোগ্য ডিভাইস চার্জ করার সুবিধা পাবেন তারা। আর নতুন আইনের অধীনে নতুন ডিভাইসের সঙ্গে নতুন চার্জার বা কেবল নিতে চান কি না, সে সিদ্ধান্তও থাকবে ক্রেতার হাতে।

নতুন আইন প্রসঙ্গে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের র‌্যাপোর্টিয়ার অ্যালেক্স সালিবা এক বিবৃতিতে বলেন, “এই ভবিষ্যতমুখী আইনটি উদ্ভাবনী চার্জিং প্রযুক্তি নির্মাণে ভূমিকা রাখবে ভবিষ্যতে। এতে সবাই উপকৃত হবে– হতাশ হয়ে পড়া ভোক্তা থেকে শুরু করে ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশ পর্যন্ত।”

বেশিরভাগ হার্ডওয়্যার নির্মাতা ইতোমধ্যেই নিজেদের সিংহভাগ ডিভাইসে ইউএসবি-সি পোর্ট ব্যবহার করছে, এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম কেবল অ্যাপল। কিন্তু ২০২৪ সাল থেকে অন্তত ইউরোপের বাজারের আইফোনগুলোকে ইউএসবি-সি প্রযুক্তির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ করতে অ্যাপল এখন বাধ্য।

আর সিনেট জানিয়েছে, উৎপাদন প্রক্রিয়ার জটিলতার কারণে এখন বিশ্বের সব বাজারের জন্যই ইউএসবি-সি পোর্টবাহী আইফোন নির্মাণে বাধ্য হতে পারে অ্যাপল।

অ্যাপল আইফোনে ইউএসবি-সি প্রযুক্তির ব্যবহার নিয়ে পরীক্ষা চালাচ্ছে বলেও গুজব রটেছে প্রযুক্তি পণ্যের বাজারে। অ্যাপল সম্পূর্ণ তারবিহীন চার্জিং প্রযুক্তির দিকে ঝোঁকার কথা ভাবছে, শোনা যাচ্ছে এমনটাও।

তবে, এক্ষেত্রে দিন শেষে অ্যাপলের ইচ্ছার চেয়ে আইনি বাধ্যবাধকতাই বেশি গুরুত্ব পাবে বলে মন্তব্য সিনেটের।

এ প্রসঙ্গে অ্যাপলের প্রতিক্রিয়া জানার চেষ্টা করেও আইফোন নির্মাতার কাছ থেকে কোনো উত্তর পায়নি সাইটটি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক