২০২৭ সালের মধ্যে সর্বাধুনিক চিপের উৎপাদক হতে চায় স্যামসাং

২০২৫ সালের মধ্যে ২ ন্যানোমিটার প্রক্রিয়ায় এবং ২০২৭ সালের মধ্যে ১.৪ ন্যানোমিটিার প্রক্রিয়ায় চিপ উৎপাদনের পরিকল্পনা করেছে দক্ষিণ কোরিয়ার এই ইলেকট্রনিক জায়ান্ট।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 Oct 2022, 01:15 PM
Updated : 4 Oct 2022, 01:15 PM

পাঁচ বছরের মধ্যে বৈশ্বিক সেমিকন্ডাক্টর বাজারের সিংহাসন বদলদাবা করতে চায় স্যামসাং। আর সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে ২০২৫ সালের মধ্যে ২ ন্যানোমিটার প্রক্রিয়ায় এবং ২০২৭ সালের মধ্যে ১.৪ ন্যানোমিটিার প্রক্রিয়ায় চিপ উৎপাদনের পরিকল্পনা করেছে দক্ষিণ কোরিয়ার এই ইলেকট্রনিক জায়ান্ট।

স্যামসাং আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে সর্বাধুনিক চিপ উৎপাদনের পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে বুধবার।

সেমিকন্ডাক্টর চিপে উৎপাদন খাতে ন্যানোমিটারের হিসাব দিয়ে চিপের ট্রানজিস্টরের আকারকে বোঝানো হয়। ট্রানজিস্টরের আকার যতো ছোট হবে, ততো বেশি ট্রানজিস্টর আঁটা যায় একটি সেমিকন্ডাক্টর চিপে। ন্যানোমিটার আকৃতির ট্রানজিস্টরের কারণে সাধারণত চিপের কার্যক্ষমতা আরও বাড়ে।

উদাহরণ হিসেবে বলা যেতে পারে আইফোনের সর্বশেষ সংস্করণ আইফোন ১৪ প্রো এবং আইফোন ১৮ প্রো ম্যাক্স; উভয় ফোনে ৪ ন্যানোমিটার আকারের ট্রানজিস্টর ব্যবহারে তৈরি চিপ রেখেছে অ্যাপল।

এ বছরের শুরুতেই ৩ ন্যানোমিটার ট্রানজিস্টরের সেমিকন্ডাক্টর চিপ উৎপাদন শুরু করেছে স্যামসাং।

ইলেকট্রনিক্স ভোক্তাপণ্য এবং মেমোরি চিপ উৎপাদনের মাধ্যমে সার্বিক প্রযুক্তি পণ্যের বাজারে শক্ত অবস্থান ধরে রেখেছে স্যামসাং। স্যামসাং এখন চিপ নির্মাণে সক্ষমতা বাড়িয়ে তাইওয়ানের প্রতিদ্বন্দ্বী টিএমএমসিকে টক্কর দিতে চাইছে বলে উঠে এসেছে সিএনবিসির প্রতিবেদনে।

সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, আয়ের হিসেবে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম চিপ নির্মাতা স্যামসাং; সেমিকন্ডাক্টর বাজারের ১৭.৩ শতাংশ নিজের দখলে রেখেছে কোম্পানিটি। কিন্তু বাজারের ৫২.৯ শতাংশ নিয়ে শীর্ষস্থানে আছে টিএসএমসি।

টিএসএমসিও ৩ ন্যানোমিটার প্রক্রিয়ায় চিপ উৎপাদন শুরু করবে এ বছরেই। ২০২৫ সাল নাগাদ ২ ন্যানোমিটার প্রক্রিয়ায় চিপ উৎপাদনের পরিকল্পনা করেছে এ কোম্পানিটিও। তবে এখনও ১.৪ ন্যানোমিটার প্রক্রিয়ায় চিপ নিয়ে কোনো ঘোষণা দেয়নি টিএসএমসি।

স্যামসাংয়ের ঘোষণার ব্যাখ্যা দিয়ে বাজার বিশ্লেষক দাইওয়া ক্যাপিটাল মার্কেটসের বিশ্লেষক এসকে কিম সিএনবিসিকে বলেন, “এই প্রথমবারের মতো স্যামসাং ইলেকট্রনিক্স ফাউন্ড্রি ব্যবসার দীর্ঘমেয়াদী রোডম্যাপ দিয়েছে এবং আমার মনে হচ্ছে টিএসএমসি এবং বাজারের প্রত্যাশা উভয়ের চেয়েই বেশি আক্রমণাত্মক কোম্পানিটি।”

অন্যদিকে, বিশ্ববাজারে সেমিকন্ডাক্টর ব্যবসার গতিও কমে আসছে বলে জানিয়েছে সিএনবিসি। যুক্তরাষ্ট্রের ‘সেমিকন্ডাক্টর ইনডাস্ট্রি অ্যাসোসিয়েশন’-এর দেওয়া তথ্য বলছে, জুলাই মাসের তুলনায় অগাস্ট মাসে বিশ্বব্যাপী সেমিকন্ডাক্টর চিপের বিক্রি কমেছে ৩.৪ শতাংশ।

এ পরিস্থিতিতেও ২০২৭ সালের মধ্যে সর্বাধুনিক চিপ উৎপাদনের সক্ষমতা তিনগুণ বাড়ানোর পরিকল্পনা করেছে স্যামসাং।

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের অস্টিনে ইতোমধ্যেই একটি উৎপাদন কারখানা আছে স্যামসাংয়ের; এক হাজার সাতশ কোটি ডলার খরচ করে আরেকটি কারখানার নির্মাণকাজ চলছে একই অঙ্গরাজ্যের টেইলর শহরে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক