ঘাম ঝরানো জয়ে শুরু রিয়ালের

আলমেরিয়ার বিপক্ষে অনেকটা সময় পর্যন্ত পিছিয়ে থেকেও তিন পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ল কার্লো আনচেলত্তির দল।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 14 August 2022, 09:59 PM
Updated : 14 August 2022, 09:59 PM

ম্যাচের শুরুতেই রিয়াল মাদ্রিদের জালে বল! ব্যবধান ঘোচাতে মরিয়া হয়ে একের পর এক আক্রমণ করল তারা। তাদের সামনে বাধার দেয়াল হয়ে দাঁড়িয়ে একেকটি প্রচেষ্টা ব্যর্থ করে দিলেন আলমেরিয়ার গোলরক্ষক ফের্নান্দো মার্তিনেস। সেই বাঁধ ভাঙতেই অবশ্য গোল মিলল আরও একটি। জয় দিয়ে লা লিগার শিরোপা ধরে রাখার অভিযান শুরু করল কার্লো আনচেলত্তির দল।

আলমেরিয়ার পাওয়ার হর্স স্টেডিয়ামে রোববার রাতে লিগ ম্যাচটি ২-১ গোলে জিতেছে রিয়াল মাদ্রিদ।

সাত বছর পর লা লিগায় ফেরা আলমেরিয়া শুরুতে এগিয়ে যাওয়ার পর দারুণ এক জয়ের আশায় বুক বেঁধেছিল। তাদের সেই আশা পূর্ণ হলো না।

দ্বিতীয়ার্ধে লুকাস ভাসকেস সমতা টানার পর বদলি নেমেই রিয়ালের জয়সূচক গোলটি করেন ডাভিড আলাবা।

ম্যাচ শুরুর আগে গতবারের চ্যাম্পিয়ন রিয়ালকে ‘গার্ড অব অনার’ দেয় আলমেরিয়ার খেলোয়াড়রা। রিয়ালের হয়ে লা লিগায় অভিষেক হয় জার্মান ডিফেন্ডার আন্টোনিও রুডিগার ও ফরাসি মিডফিল্ডার অহেলিয়া চুয়ামেনির। দুজনই আইনট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্টের বিপক্ষে উয়েফা সুপার কাপ জয়ের ম্যাচে বদলি হিসেবে মাঠে নেমেছিলেন।

রিয়াল শুরুটা করে আত্মবিশ্বাসী। চতুর্থ মিনিটে গোলে ম্যাচের প্রথম শটটা নেয় তারাই। চুয়ামেনির পাসে ২৫ গজ দূর থেকে ভাসকেসের সেই প্রচেষ্টা যদিও লক্ষ্যে থাকেনি।

ষষ্ঠ মিনিটে রিয়ালকে স্তব্ধ করে এগিয়ে যায় আলমেরিয়া। মাঝমাঠ থেকে সতীর্থের লম্বা করে বাড়ানো বল ধরে বিনা বাধায় ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন রামাজানি। এরপর ডান পায়ের নিচু শটে ঠিকানা খুঁজে নেন তরুণ এই বেলজিয়ান ফরোয়ার্ড। ঝাঁপিয়ে পড়েও বলের নাগাল পাননি থিবো কোর্তোয়া।

ম্যাচে ফেরার লড়াইয়ে দুই মিনিট পরই একটি সুযোগ তৈরি করে রিয়াল। এদুয়ার্দো কামাভিঙ্গার পাস থেকে ফেদেরিকো ভালভেরদের প্রচেষ্টা ক্রসবারের ওপর দিয়ে পাঠান আলমেরিয়ার গোলরক্ষক মার্তিনেস।

একটু পর সুযোগ আসে গত আসরের সর্বোচ্চ স্কোরার করিম বেনজেমার সামনে। প্রতিপক্ষের বক্সে ঢুকে বাঁ দিক থেকে পাস দেন ভিনিসিউস জুনিয়র। ছুটে গিয়ে ছয় গজ বক্সের সামনে থেকে ক্রসবারের ওপর দিয়ে মারেন ফরাসি ফরোয়ার্ড।

২৮তম মিনিটে টনি ক্রুসের ক্রসে বেনজেমার হেড সহজেই ঠেকান মার্তিনেস। ৩৭তম মিনিটে ক্রুসের দারুণ থ্রু বল পেয়ে বক্সে ঢুকে পড়েন ভিনিসিউস। ওয়ান-অন-ওয়ানে ঠিকমতো শট নিতে পারেননি ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড, ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক।

৪০তম মিনিটে আবারও রিয়ালের সামনে দেয়াল হয়ে দাঁড়ান মার্তিনেস। ক্রুসের কর্নারে রুডিগারের হেড দারুণ দক্ষতায় ফেরান তিনি। ৪৩তম মিনিটে ভাসকেস কাছ থেকে ভলিতে জালে বল পাঠালেও তিনি অফসাইডে থাকায় গোল মেলেনি।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে কামাভিঙ্গার জায়গায় লুকা মদ্রিচকে নামান রিয়াল কোচ আনচেলত্তি। ৪৭তম মিনিটে দূর থেকে ভিনিসিউসের লব পোস্টের বাইরের দিকে হালকা ছুঁয়ে বেরিয়ে যায়।

তিন মিনিট পর ২৫ গজ দূর থেকে আচমকা শট নেন আলমেরিয়ার ইনিগো এগুরাস, পোস্টের সামান্য বাইরে দিয়ে যায় বল। একটু পর কাছ থেকে দলটির ফরোয়ার্ড উমর সাদিকের শট ফিরিয়ে দেন কোর্তোয়া।

পরের মিনিটে রিয়াল পেয়ে যায় আরেকটি সুযোগ। ভিনিসিউসের পাসে বাঁ দিক থেকে বেনজেমার শট ঠেকান ৩২ বছর বয়সী মার্তিনেস।

৫৮তম মিনিটে চুয়ামেনিকে তুলে এদেন আজারকে নামান আনচেলত্তি। এর দুই মিনিট পরই কাঙ্ক্ষিত গোল পায় রিয়াল। এবারও শুরুতে ভিনিসিউসের প্রচেষ্টা এগিয়ে এসে ব্যর্থ করে দেন মার্তিনেস। বল পেয়ে বেনজেমা পাস দেন ভাসকেসকে। ছয় গজ বক্সের মুখে বাঁ পায়ের জোরাল শটে ফাঁকা জালে বল পাঠান স্প্যানিশ মিডফিল্ডার।

৭৫তম মিনিটে এগিয়ে যায় রিয়াল। আগের মিনিটেই ফেরলঁদ মঁদির বদলি নামা আলাবা প্রথম স্পর্শেই পেয়ে যান গোল। তার চমৎকার ফ্রি-কিক পোস্টের ভেতরের দিকে লেগে জালে জড়ায়।

মৌসুমে রিয়ালের প্রথম দুটি প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচেই জালের দেখা পেলেন অস্ট্রিয়ার ৩০ বছর বয়সী এই ডিফেন্ডার। সুপার কাপে আইনট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্টের বিপক্ষে ২-০ গোলে জয়ের ম্যাচে প্রথমটি করেছিলেন তিনি।

নির্ধারিত সময়ের পাঁচ মিনিট বাকি থাকতে বড় একটি সুযোগ পেয়ে যান আলমেরিয়ার সানচেস। বক্সের ভেতর থেকে গোলরক্ষক বরাবর শট মেরে বসেন তিনি।

ম্যাচে পজেশন ও আক্রমণ, সবকিছুতেই আধিপত্য ছিল রিয়ালের। পরিসংখ্যানেও সেটি স্পষ্ট। গোলের জন্য চ্যাম্পিয়নদের ২৯ শটের ১৫টি ছিল লক্ষ্যে। আর আলমেরিয়ার ১০ শটের ৬টি লক্ষ্যে ছিল।

আগের দিন ঘরের মাঠে রায়ো ভাইয়েকানোর বিপক্ষে গোলশূন্য ড্রয়ে আসর শুরু করে বার্সেলোনা। তাদের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়ালের শুরুটা হলো জয় দিয়েই।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক