মৌসুমে 'চারটি ট্রফি জিতে' এমবাপেকে ধরে রাখার আশায় পিএসজি কোচ

শেষ মুহূর্তে ক্লাব ছাড়ার সিদ্ধান্ত বদলাতেও পারেন কিলিয়ান এমবাপে, আশা পিএসজি কোচ লুইস এনরিকের।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 March 2024, 05:13 AM
Updated : 31 March 2024, 05:13 AM

মৌসুম শেষে কিলিয়ান এমবাপের পিএসজি ছেড়ে যাওয়া একরকম অবধারিতই মনে হচ্ছে এখনকার বাস্তবতায়। তবে তাকে ধরে রাখার আশা পুরোপুরি ছেড়ে দেননি লুইস এনরিকে। দলের সবচেয়ে বড় তারকার প্যারিসে থেকে যাওয়ার আদর্শ একটা পরিস্থিতি কল্পনা করে রেখেছেন পিএসজি কোচ। তার মতে, এই মৌসুমে যদি চারটি ট্রফি জয় করতে পারে তার দল, এমবাপের সিদ্ধান্ত তাহলে বদলাতেও পারে!

পিএসজির সঙ্গে এমবাপের চুক্তি শেষ হচ্ছে এই মৌসুমেই। ফরাসি এই তারকা তার শৈশবের প্রিয় ক্লাব রেয়াল মাদ্রিদে নাম লেখাবেন বলেই আভাস মিলেছে নানাভাবে।

তিনি নিজে যদিও এখনও পর্যন্ত এটা নিয়ে কিছু বলেননি। তবে সংবাদমাধ্যমে এসব উঠে আসছে নিয়মিতই। পিএসজির ফুটবলারদের কেউ কেউ, এমনকি স্বয়ং কোচ এনরিকের কথায়ও এরকম ইঙ্গিত মিলেছে বেশ কয়েকবার। এমবাপেকে ছাড়া খেলতে মানিয়ে নিতে হবে দলকে, গত মাসে এমন মন্তব্যও করেছেন কোচ।

তবে দলের সেরা ফুটবলারকে ধরে রাখার ইচ্ছাও এখনও মনের কোণে পুষছেন এনরিকে। লিগ ওয়ানে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী অলিম্পিক মার্শেইয়ের বিপক্ষে লড়াইয়ের আগে পিএসজি কোচের কণ্ঠে ফুটে উঠল সেই আশার প্রতিধ্বনি।

“আমি তো সবসময়ই আশাবাদী যে কিলিয়ান তার ভাবনা বদলাবে… এখনও পর্যন্ত কিছু তো সে বলেনি। তার ভাবনা বদলাতেও পারে।”

“চিন্তা করে দেখুন, আমরা যদি এই মৌসুমে চারটি ট্রফি জিততে পারি, শেষ মুহূর্তে কিলিয়ান এমবাপে প্যারিসে থেকে যেতেও পারে। কেন নয়? আমরা দেখব কী হয়…।”

এমবাপেকে ছাড়া খেলতে অভ্যস্ত হওয়া কিংবা দলকে সেভাবে তৈরি করার অংশ হিসেবেই হয়তো চলতি মৌসুমে বেশ কবার এই ফরোয়ার্ডকে পুরো সময় খেলাননি কোচ। এমনকি তাকে প্রথম একাদশেও রাখেননি একাধিক ম্যাচে। রোববার মার্শেইয়ের বিপক্ষে তাকে শুরুতে খেলানো হবে কি না, সেটি নিয়ে নিশ্চিত করে কিছু বললেন না এনরিকে।

“আমার চাওয়া হলো, সবকিছু যেন ঠিকঠাক হয়, খুব ভালো দুটি দলের মধ্যে দর্শনীয় ম্যাচ ও দারুণ লড়াই হয়। আমাদের লক্ষ্য, চিরপ্রতিদ্বন্দ্বিদের বিপক্ষে ম্যাচটি জেতা।”

“এই ক্লাব ও দলের ম্যানেজার হিসেবে ম্যাচটিকে খুব স্বচ্ছতার দিক থেকে দেখতে হবে আমাকে, আমাদের জন্য সেরা সিদ্ধান্তটিই নিতে হবে। এটাই আমার কাজ। দলের জন্য যা সবচেয়ে ভালো, সেটি নিয়েই ভাবতে হবে আমাকে। অবশ্যই লোকে সবাই সবসময় আমার সিদ্ধান্তের সঙ্গে একমত হবেন না। তবে আমরা মার্শেইয়ে যাব লড়াই করতে ও আমাদের সমর্থকদের দারুণ আনন্দ দিতে।”

এই ম্যাচের ফলাফলে অবশ্য শিরোপা লড়াইয়ের প্রভাব খুব একটা থাকার সুযোগ নেই। গত ১১ মৌসুমের ৯টিতেই শিরোপাজয়ী পিএসজি আরও একবার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পথে অনেকটাই এগিয়ে। ২৬ ম্যাচে ৫৯ পয়েন্ট তাদের। দুইয়ে থাকা মোনাকো ১০ পয়েন্ট পেছনে আছে এক ম্যাচ বেশি খেলে। ২০০৯-১০ মৌসুমে সবশেষ শিরোপার স্বাদ পাওয়া মার্শেই এবার ২৬ ম্যাচে মাত্র ৩৯ পয়েন্ট নিয়ে এখন আছে সাত নম্বরে।