‘অভ্যন্তরীণ রাজনীতি বার্সেলোনায় কোচদের কাজ কঠিন করে তোলে’

শাভি এর্নান্দেসের বার্সেলোনা ছাড়ার প্রসঙ্গে এমন মন্তব্য করেছেন দলটির সাবেক কোচ রোনাল্ড কুমান।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 5 Feb 2024, 05:56 PM
Updated : 5 Feb 2024, 05:56 PM

বার্সেলোনার কোচের দায়িত্ব ছাড়ার ঘোষণা দেওয়ার পর থেকে মাঠের বাইরের পরিবেশ ও নানা চাপের কথা বলে আসছেন শাভি এর্নান্দেস। এই স্প্যানিয়ার্ডের অবস্থা খুব ভালো করেই উপলব্ধি করতে পারছেন রোনাল্ড কুমান। কাতালান দলটির সাবেক এই কোচের মতে, ক্লাবের রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে বার্সেলোনায় কোচদের কাজ করা অনেক কঠিন।

এই মৌসুমে ভালো অবস্থায় নেই বার্সেলোনা। এর মধ্যেই সম্প্রতি শাভি ঘোষণা দেন, মৌসুম শেষে কোচের দায়িত্ব ছেড়ে দেবেন তিনি। সিদ্ধান্তের পেছনের কারণগুলো নিয়ে শুরুতে একটু রাখঢাক রাখলেও পরে সরাসরিই তা বলে চলেছেন তিনি। বলেছেন, এই ক্লাবে প্রতিদিনের কাজ তিনি উপভোগ করেন না, কোচ হিসেবে এখানে তার জীবন বিষিয়ে উঠেছে।

ইএসপিএন নেদারল্যান্ডসের সঙ্গে আলাপচারিতায় কুমান বললেন, তার নিজের অভিজ্ঞতা থেকে শাভির অবস্থা বুঝতে পারছেন তিনি।

“কোচের চেয়ে বার্সেলোনায় একজন খেলোয়াড় হওয়া অনেক বেশি মজার। এখানে প্রত্যাশার চাপ ও মানসিক চাপের কারণে আমাকে অনেক ভুগতে হয়েছিল। এটা আমার ক্যারিয়ারে সবচেয়ে কঠিন চাকরি।”

“আমি নিজের সঙ্গে তুলনা করে শাভির অবস্থা বুঝতে পারছি। প্রেসিডেন্টের (হুয়ান লাপোর্তা) সঙ্গে আমার একটি দ্বন্দ্ব ছিল। তার (শাভি) ক্ষেত্রে, একজন কাতালান এবং বার্সার সন্তান হওয়ার পরও, সে অনুধাবন করেছে যে এখানে কোচ হওয়ার চেয়ে খেলোয়াড় হওয়া অনেক বেশি আনন্দের। আমার জন্যও বিষয়টা (কোচ হওয়া) ছিল অনেক কঠিন।”

২০২০ সালের অগাস্টে কুমানকে কোচ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছিলেন বার্সেলোনার সেই সময়ের প্রেসিডেন্ট জোজেপ মারিয়া বার্তোমেউ। বার্সেলোনার সাবেক এই খেলোয়াড়ের কোচিংয়ে প্রথম মৌসুমে ২০২০-২১ লা লিগায় তৃতীয় হয় দল, ঘরে তোলে কোপা দেল রের শিরোপা।

তবে পরের মৌসুমে দলের একের পর এক বাজে পারফরম্যান্সে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয় তাকে। পরে তিনি দাবি করেন, সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর লাপোর্তা তাকে কোনো সমর্থন দেননি।

বর্তমানে নেদারল্যান্ডস জাতীয় দলের দায়িত্বে থাকা ৬০ বছর বয়সী কুমান আবারও বললেন, মূল সমস্যাটা লাপোর্তাকে ঘিরেই।

“যথার্থ সম্মান রেখেই বলছি, শাভি কাতারের (ক্লাবে) কোচ ছিল, তারপর সে বার্সেলোনায় যোগ দিল... সবসময় সে প্রশংসিত হয়েছে, কিন্তু এখন বিপরীত দিকটিও দেখছে। মিডিয়া যেন তার ওপর সবসময় বন্দুক তাক করে রেখেছে এবং ক্লাবের রাজনৈতিক পরিস্থিতিও ভালো নয়। ক্লাবের প্রধানকে ঘিরেই সমস্যা।