পুলিশকে উড়িয়ে দিল তেতে থাকা কিংস

দাপুটে জয়ে লিগ টেবিলে দ্বিতীয় স্থানে থাকা মোহামেডানের সাথে পয়েন্ট ব্যবধান বাড়িয়ে নিল বসুন্ধরা কিংস।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 Feb 2024, 11:31 AM
Updated : 10 Feb 2024, 11:31 AM

আগের ম্যাচে মোহামেডানের বিপক্ষের হারে তেতে ছিল বসুন্ধরা কিংস। পুলিশ এফসি কোনোভাবেই আটকাতে পারল না তাদের। প্রথমার্ধেই তিন গোল করে পুলিশকে কোণঠাসা করে প্রিমিয়ার লিগে জয়ে ফিরল অস্কার ব্রুসনের দল।

ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে শনিবার ৩-০ গোলে জিতেছে কিংস। ৭ ম্যাচে ছয় জয়ে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান শক্ত করার পাশাপাশি দ্বিতীয় স্থানে থাকা মোহামেডানের সাথে ব্যবধানও তারা বাড়িয়ে নিয়েছে ৩ পয়েন্টে।

চলতি লিগে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ গোলদাতা দোরিয়েলতন গোমেস নাসিমেন্তোর (৭টি) অনুপস্থিতি একটুও টের পেল না কিংস।

সপ্তম মিনিটে মিগেল ফিগেইরা দামাশেনোর দুর্দান্ত গোলে এগিয়ে যায় তারা। নিজেদের অর্ধ থেকে তপু বর্মনের বাড়ানো লম্বা ক্রস বাউন্স করে লাফিয়ে ওঠার পর বুক দিয়ে নামিয়ে বাঁ পায়ের দৃষ্টিনন্দন ভলিতে জাল খুঁজে নেন এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড।

রবসন দি সিলভা রবিনিয়োর সাথে দারুণ বোঝাপড়ায় ২১তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রাকিব হোসেন। ব্রাজিলিয়ান সতীর্থকে বল বাড়িয়ে তিনি ছুটতে থাকেন বক্সের দিকে। ফিরতি পাস পেয়ে কোনাকুনি শটে লক্ষ্যভেদ করেন জাতীয় দলের এই ফরোয়ার্ড। পুলিশের কোনো ডিফেন্ডারই পেরে ওঠেননি রাকিবের গতির সঙ্গে। চলতি লিগে এটি তার চতুর্থ গোল।

সাত মিনিট পরের গোলে লিগের টানা চার আসরের চ্যাম্পিয়ন কিংস জয়ের পথে অনেকটা এগিয়ে যায়। এবার রবিনিয়োর থ্রু পাস অফসাইডের ফাঁদ ভেঙে বেরিয়ে টোকায় চলতি লিগে গোলের খাতা খোলেন উজবেকিস্তানের মিডফিল্ডার আসরোর গফুরভ। গোলরক্ষক রাসেল মাহমুদ লিটন পোস্ট ছেড়ে বেরিয়ে এসে আটকানোর চেষ্টা করলেও ততক্ষণে দেরি হয়ে যায় অনেক।

জয় অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যাওয়ায় কিংস দ্বিতীয়ার্ধে ব্যবধান বাড়াতে মরিয়া ছিল না। পুলিশও যেন খেলতে থাকে আর গোল না হজম করার মানসিকতা নিয়ে।

৮৮তম মিনিটে দামাশেনোর ফ্রি কিক সরাসরি যায় গোলরক্ষকের কাছে। যোগ করা সময়ে বদলি নামা মতিন মিয়ার দুর্বল শট সুজনের গ্লাভসে জমে যায়। এরপর বক্সে ফাঁকায় থাকা দামাশেনো লক্ষ্যভ্রষ্ট হেডে সুযোগ নষ্ট করে হতাশায় মাথায় হাত দেওয়ার পরপরই বাজে শেষের বাঁশি।

এদিকে গোপালগঞ্জের শেখ ফজলুল হক মনি স্টেডিয়ামে কষ্টে জিতেছে শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাব। ৬৩তম মিনিটে সাজ্জাদ হোসেনের করা গোলটি শেষ পর্যন্ত আগলে রেখে জিতেছে তারা। তবে এমন জয়ের ম্যাচে শেষ দিকে লাল কার্ড দেখেছেন শেখ জামালের ফরোয়ার্ড আতিকুর রহমান ফাহাদ।

মুন্সিগঞ্জের বীরশ্রেষ্ঠ ফ্লাইট লে. মতিউর রহমান স্টেডিয়ামে শেখ রাসেলকে ২-১ গোলে হারিয়েছে চট্টগ্রাম আবাহনী। তিনটি গোলই হয় দ্বিতীয়ার্ধে।

৬১ থেকে ৭০-এই নয় মিনিটের মধ্যে সোহেল রানা ও রাজু উদ্দিনের গোলে ম্যাচে চালকের আসনে বসে যায় বন্দরনগরীর দলটি। শেষ দিকে পেনাল্টি থেকে ব্যবধান কমান শেখ রাসেলের ফরোয়ার্ড সুলেমানে ল্যান্ড্রি।

লিগের সপ্তম রাউন্ড শেষে ৯ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে আছে চট্টগ্রাম আবাহনী। তাদের সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল পার্থক্যে পঞ্চম স্থানে শেখ জামাল।

উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে পথ চলা পুলিশের এটি চতুর্থ হার। ৭ পয়েন্ট নিয়ে তারা আছে সপ্তম স্থানে। বিবর্ণতার খোলসে বন্দি থাকা শেখ রাসেল ৬ পয়েন্ট নিয়ে ঘুরপাক খাচ্ছে অবনমন অঞ্চলে। তাদের নিচে আছে কেবল ব্রাদার্স ইউনিয়ন; ৩ পয়েন্ট নিয়ে।