‘গোল ফোডেনের শিরায়-শিরায়’

পেপ গুয়ার্দিওলার বিশ্বাস, লক্ষ্য ঠিক রেখে পরিশ্রম করে গেলে ফোডেন সেরাদের কাতারে জায়গা করে নিতে পারবে।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 April 2024, 10:45 AM
Updated : 4 April 2024, 10:45 AM

টানা দুই ম্যাচে পয়েন্ট হারানোর হতাশা এবং চাপের মধ্যে, অ্যাস্টন ভিলার বিপক্ষে অসাধারণ এক হ্যাটট্রিক করা ফিল ফোডেনের পারফরম্যান্সে যেন মুগ্ধতার শেষ নেই পেপ গুয়ার্দিওলার। প্রতিপক্ষের গোলমুখে ক্রমেই আরও ধারাল হয়ে ওঠা ইংলিশ মিডফিল্ডার প্রশংসায় ম্যানচেস্টার সিটি বললেন, গোল যেন ফোডেনের শিরায় শিরায় প্রবাহিত হয়। 

প্রিমিয়ার লিগে ভিলার বিপক্ষে ম্যাচের আগের দুই রাউন্ডে পয়েন্ট হারিয়েছিল সিটি; লিভারপুলের সঙ্গে ১-১ ও আর্সেনালের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করেছিল তারা। শিরোপা লড়াইয়ে ভালোমতো টিকে থাকতে তাই জয়ে ফেরার বিকল্প ছিল না শিরোপাধারীদের সামনে। 

সেই লক্ষ্যে বুধবার রাতে ঘরের মাঠে শুরুটা দারুণ করে সিটি, এগিয়ে যায় একাদশ মিনিটে। তবে খানিক বাদেই সমতা টানে ভিলা। তাতে হয়তো দলটির বিপক্ষে আবার পয়েন্ট হারানোর শঙ্কা জাগে সিটির; আসরে প্রথম দেখায় ভিলার মাঠেই যে ১-০ গোলে হেরেছিল তারা। 

কিন্তু, ফোডেন তা হতে দেননি। বিরতির আগে অসাধারণ ফ্রি কিকে দলকে ফের এগিয়ে নেন তিনি। ৬২তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করার সাত মিনিট পর ২৫ গজ দূর থেকে নিখুঁত শটে হ্যাটট্রিক পূরণের পাশাপাশি দলের জয় নিশ্চিত করেন ২৩ বছর বয়সী মিডফিল্ডার। 

চলতি মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে সিটির হয়ে এটি ফোডেনের ২১তম গোল।

ম্যাচের পর খুব স্বাভাবিকভাবেই ফোডেনকে ঘিরে আলোচনার ঝড় উঠল। প্রিয় শিষ্যের প্রশংসায় গুয়ার্দিওলাও কোনো কার্পণ্য করলেন না। 

“(সাফল্য পেতে) তার চেষ্টা, কাজ করার মানসিকতা অসাধারণ। সে সেন্ট্রাল পজিশনে খেলে এবং গোল করার ক্ষেত্রে তার… গোল যেন তার শিরায়-উপশিরায় এবং তাকে আমাদের কাজে লাগাতে হবে।” 

দলের সেরা স্ট্রাইকার আর্লিং হলান্ডকে বেঞ্চে রেখেই এদিন একাদশ সাজান গুয়ার্দিওলা। ছিলেন না প্লেমেকার কেভিন ডে ব্রুইনেও। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে স্কোরলাইন ১-১ থাকার সময় এই দুই তারকাকে মাঠে নামানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন কোচ। ফোডেনের জাদুতে তা আর দরকার হয়নি। 

গুয়ার্দিওলার বিশ্বাস, লক্ষ্য ঠিক রেখে পরিশ্রম করে গেলে ফোডেন সেরাদের কাতারে জায়গা করে নিতে পারবে। 

“সে যা চায়, তাই করতে পারবে। সে সত্যিই শীর্ষ মানের খেলোয়াড়, আমরা সেটা জানি।” 

দারুণ এই জয়ে পয়েন্টের হিসাবে লিভারপুলকে ছুঁয়েছে সিটি। যদিও তাদের অবস্থানে পরিবর্তন হয়নি। 

৩০ ম্যাচে ৬৭ পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে তৃতীয় স্থানে সিটি। দুই নম্বরে লিভারপুল অবশ্য একটি ম্যাচ কম খেলেছে। 

৩০ ম্যাচে ৬৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আর্সেনাল।