মারাদোনাকে ব্যালন দ’র উৎসর্গ মেসির

বর্ষসেরার মঞ্চে দাঁড়িয়ে পূর্বসূরিকে জন্মদিনের শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন আর্জেন্টাইন একালের মহাতারকা।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 Oct 2023, 10:07 AM
Updated : 31 Oct 2023, 10:07 AM

বিশেষ কোনো উপলক্ষ এলেই দিয়েগো মারাদোনাকে স্মরণ করেন লিওনেল মেসি। ফুটবলার হিসেবে তার ওপর পূর্বসূরির প্রভাবের কথাও বলেন সবসময়। রেকর্ড অষ্টমবারের মত ব্যালন দ’র জয়ের রাতেও শ্রদ্ধাভরে কিংবদন্তিকে স্মরণ করলেন মেসি। দেশকে বিশ্বকাপ জিতিয়ে পাওয়া এবারের ব্যালন দ’অর উৎসর্গ করলেন ওপারে পাড়ি দেওয়া ফুটবল গ্রেটকে।

প্যারিসে সোমবার রাতে ফরাসি সাময়িকী ‘ফ্রান্স ফুটবল’- এর পুরস্কার ব্যালন দ’র ২০২৩ জিতেছেন মেসি। বর্ষসেরার লড়াইয়ে পেছনে ফেলেছেন ম্যানচেস্টার সিটির আর্লিং হলান্ড ও পিএসজির কিলিয়ান এমবাপেকে।

গত বছর ব্যালন দ’রের সেরা ৩০ জনের তালিকায় না থাকা মেসি এবার যে খেতাবটি আবারও জিততে যাচ্ছেন, সেটা একরকম অনুমিতই ছিল। বিশেষ করে গত ডিসেম্বরে কাতার বিশ্বকাপে শিরোপা উঁচিয়ে ধরার পর। বিশ্ব সেরার মঞ্চে দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে ফাইনালে জোড়া গোলসহ মোট ৭টি গোল করেন সাবেক বার্সেলোনা ফরোয়ার্ড। বিশ্বকাপে ‘গোল্ডেন বল’ পুরস্কারও জেতেন তিনি।

এবারের আগে আর্জেন্টিনা সবশেষ বিশ্বকাপ জিতেছিল সেই ১৯৮৬ সালে, মারাদোনার হাত ধরে। ৬০ বছর বয়সে ২০২০ সালের নভেম্বরে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান সর্বকালের সেরা খেলোয়াড়দের একজন মারাদোনা। সোমবার তার জন্মদিন ছিল।

ব্যালন দ’র জিতে প্রতিক্রিয়া জানানোর সময় শেষের দিকে মারাদোনাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতেও ভোলেননি মেসি।

“সবশেষে আমি দিয়েগোর (মারাদোনার) কথা বলতে চাই। আজ তার জন্মদিন। আমার মনে হয় তাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানোর জন্য এর চেয়ে ভালো জায়গা আর নেই।”

“এখানে খেলোয়াড়, কোচ এবং এমন সব মানুষ আছেন যারা ফুটবলকে তার মতই পছন্দ করেন। আপনি যেখানেই থাকেন, শুভ জন্মদিন দিয়েগো। এটা আপনার জন্য, আমি এই খেতাব আপনার এবং আর্জেন্টিনার সঙ্গে ভাগাভাগি করতে চাই।”

এর আগে মেসি সবশেষ ব্যালন দি’অর জিতেছিলেন ২০২১ সালে। তবে এবারের অনুভূতিটা ৩৬ বছর বয়সী এই ফুটবলারের কাছে বিশেষ কিছু।

কারণ দীর্ঘ ক্যারিয়ারে বার্সেলোনা, পিএসজি ও বর্তমান দল ইন্টার মায়ামির হয়ে জিতেছেন অসংখ্য শিরোপা। বিশেষ করে বার্সেলোনার হয়ে চমৎকার সব সাফল্যের কারণেই আগের ব্যালন দ’র গুলো জিতেছিলেন তিনি। সেখানে, এবার স্বীকৃতিটা পেয়েছেন মূলত জাতীয় দলের সাফল্যের কারণে। গত দুই বছরে বিশ্বকাপ ছাড়াও জাতীয় দলের হয়ে তিনি জিতেছেন কোপা আমেরিকাও।

পেছন ফিরে নিজের অর্জনগুলো তৃপ্তি দিচ্ছে মেসিকে।

“এই মুহূর্তটি উপভোগ করার জন্য আরও একবার এখানে আসতে পেরে ভালো লাগছে। জীবনে যা কিছু অর্জন করেছি সবকিছু নিয়েই এমন একটা ক্যারিয়ারের কথা আমি কখনও কল্পনাও করতে পারিনি। বিশ্বের সেরা দল, ইতিহাসের সেরা দলের হয়ে খেলার সৌভাগ্য হয়েছে আমার। এই ব্যক্তিগত পুরস্কার জিততে পেরে ভালো লাগছে। কোপা আমেরিকা ও এরপর বিশ্বকাপ জেতাটা অসাধারণ ব্যাপার।”