‘সাবিনাদের মানসিক দৃঢ়তা আছে’, সিঙ্গাপুর ম্যাচ নিয়ে তাই আশাবাদী টিটু

ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে ১২ ধাপ এগিয়ে থাকা সিঙ্গাপুরকে হারাতে আশাবাদী বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবল দলের কোচ।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 Nov 2023, 11:42 AM
Updated : 29 Nov 2023, 11:42 AM

গত সেপ্টেম্বরে এশিয়ান গেমসে খেলার পর প্রথমবার আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে নামছেন সাবিনা-মারিয়ারা। প্রতিপক্ষ ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে ১২ ধাপ এগিয়ে থাকা সিঙ্গাপুর। তবে এশিয়ান গেমসের অভিজ্ঞতা, নিজেদের মাঠে খেলার সুবিধা ও মেয়েদের মানসিক দৃঢ়তা আশাবাদী করে তুলেছে কোচ সাইফুল বারী টিটুকে।

কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে শুক্রবার প্রথম প্রীতি ম্যাচে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও সিঙ্গাপুর। দুই দলের দ্বিতীয় প্রীতি ম্যাচটি একই স্টেডিয়ামে হবে ৪ ডিসেম্বরে।

চীনের এশিয়ান গেমসে মেয়েদের অভিজ্ঞতা ভালো ছিল না মোটেও। তিন ম্যাচের দুটিতে হার ও এক ড্র নিয়ে গ্রুপ পর্ব শেষ করে তলানিতে থেকে। ১৫ গোল হজম করে দিয়েছিল মাত্র ২টি। নেপালের বিপক্ষে ১-১ ড্রই ছিল একমাত্র তৃপ্তি।

এরপর লেবাননের বিপক্ষে খেলার কথা থাকলেও ম্যাচটি আয়োজন করতে পারেনি বাফুফে। তবে প্রস্তুতির মধ্যেই ছিল মেয়েরা। সিঙ্গাপুর ম্যাচ নিয়ে টিটুর আশাবাদী হওয়ার কারণগুলোর একটি এটি।

“এশিয়ান গেমস থেকে ফেরার পর লেবাননের বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে আমাদের খুব ভালো প্রস্তুতি ছিল। দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমরা ওই ম্যাচটা খেলতে পারিনি। ওটা খেলতে পারলে…আমাদের অনেক কিছু পাওয়ার ছিল। সিঙ্গাপুরের বিপক্ষে ম্যাচ আয়োজনের জন্য বাফুফেকে ধন্যবাদ। এটা আসলে একটা প্রক্রিয়া, নিয়মিত বিরতিতে প্র্যাকটিস বা ফিফা ফ্রেন্ডলিগুলো খেলা। আমাদের তো ওইভাবে ইন্টারন্যাশনাল টুর্নামেন্ট খেলার সম্ভাবনা থাকে কম, সে হিসেবে আমরা এই ধরনের ম্যাচগুলোর দিকে তাকিয়ে থাকি।”

“প্রতি সপ্তাহে আমি ছয় দিনের ট্রেনিং করালাম, কিন্তু ট্রেনিংয়ের যে বেস্ট ইফেক্ট, সেটা ম্যাচের মাধ্যমে বোঝা যায়। সেটা যদি ইন্টারন্যাশনাল ম্যাচ হয়, তাহলে তো কথাই নেই। এশিয়ান গেমসের পর আমরা প্রস্তুতির ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছি। এখন আপাতত আমরা ১ তারিখের ম্যাচ নিয়েই ভাবছি, ম্যাচ বাই ম্যাচ ভাবাটাই শ্রেয়। সিঙ্গাপুর আমাদের কাছে একটু অপরিচিত। ওদের কোচকে আমি খুব ভালো করে চিনি। ভারতের মোহন বাগান, চার্চিল ব্রাদার্সে কাজ করেছে, চার্চিল ব্রাদার্সেই ওর সঙ্গে আমার দেখা হয়েছিল।”

এশিয়ান গেমসের সময়ই বাংলাদেশের বিপক্ষে একটি প্রীতি ম্যাচ খেলার আগ্রহ দেখিয়েছিল সিঙ্গাপুর। কিন্তু দেশে ফেরার তাড়া থাকায় ম্যাচটি খেলতে পারেনি বাংলাদেশ। এবার অভিজ্ঞ ও তারুণ্যের মিশেলে গড়া দল নিয়ে সিঙ্গাপুর এসেছে বলে মনে করেন টিটু। তাদের বিপক্ষে প্রথম জয়ের ব্যাপারেও আশাবাদী তিনি।

“এশিয়ান গেমসে যাওয়ার আগেই বলেছিলাম, এটা আমাদের জন্য কঠিন হবে। ওখানে নিজেদের মেধা যাচাই করার বিষয় ছিল, এর সঙ্গে এবার যেটা যোগ হবে নিজেদের মাঠে খেলা, যে দর্শক আসবে, এগেুলোর যে অনুপ্রেরণা, সেগুলো কাজে লাগানো। এগুলো যদিও বাহ্যিক ব্যাপার।”

“সিঙ্গাপুর…আমার ধারণা, ওরা রি-বিল্ডিংয়ের মধ্যে আছে। ওদের একটা খেলোয়াড় দেখলাম ৩৮ বছর বয়সী গোলরক্ষক; দুইটা প্লেয়ার আছে ৩১ বছর, ২৬ বছর বয়সী, বাকিরা তরুণ। আমাদের অ্যাপ্রোচ থাকবে এই জায়গাগুলোতে আমরা যেন ওদেরকে অতিক্রম করতে পারি ফিজিক্যালি। আমাদের মেয়েদের অবশ্যই ইচ্ছা আছে (ভালো খেলার), তবে আমি দেখেছি, মেয়েরা যদি খুব ইচ্ছা করে, তাহলে যে কোনো বাধা পেরুতে পারে, ওই মানসিক দৃঢ়তা ওদের আছে।”