ভারতের বিপক্ষে ‘ডু অর ডাই’ ম্যাচ, বললেন বাংলাদেশ কোচ

ভারতের বিপক্ষে হতাশার পরিসংখ্যান নিয়ে মোটেও ভাবছে না বাংলাদেশ।

কাঠমান্ডু থেকে মোহাম্মদ জুবায়েরবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 Sept 2022, 03:21 PM
Updated : 12 Sept 2022, 03:21 PM

মাঠে ঢুকেই ঘড়িতে চোখ গোলাম রব্বানী ছোটনের। ‘রেডি হও তাড়াতাড়ি’, তাগাদা দিলেন মেয়েদের। দ্রুত গোছগাছ সেরে নিয়ে মাঠে নেমে পড়লেন সাবিনা খাতুন-মারিয়া মান্দারা। আগের দিনের ফুরফুরে মেজাজের ছিঠেফোঁটাও নেই। থাকবে কী করে? রাত পোহালেই যে গ্রুপ সেরা হওয়ার মহারণে ভারতের মুখোমুখি হতে হবে।

ভারতের মতো বাংলাদেশও সেমি-ফাইনাল নিশ্চিত করেছে এক ম্যাচ হাতে রেখে। কিন্তু সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সমীকরণ মেলানোর এখনও বাকি। গ্রুপ সেরা হওয়ার তীব্র আকাঙ্খা নিয়ে মঙ্গলবার পাঁচবারের চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে নামবে বাংলাদেশ। নেপালের কাঠমান্ডুর দশরথ স্টেডিয়ামে স্থানীয় সময় সাড়ে ৫টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

দুই দলের পয়েন্ট সমান হলেও গোল পার্থক্যে বাংলাদেশের চেয়ে (+৯) এগিয়ে ভারত (+১২)। গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে আসছে ম্যাচটি তাই জিততেই হবে বাংলাদেশের।

শ্রীলঙ্কাকে ৬-০ গোলে উড়িয়ে টানা দুই ম্যাচ জিতে ‘বি’ গ্রুপের সেরা হয়েছে স্বাগতিক নেপাল। ছোটন খুব করে চাইছেন সেরা চারের ম্যাচে স্বাগতিকদের এড়াতে। তাই ভারত ম্যাচ তার কাছে ‘বাঁচা-মরার লড়াই’।

দশরথ স্টেডিয়ামের পাশে আর্মি হেডকোয়াটার মাঠে সোমবারের প্রস্তুতিতেও স্পষ্ট ফুটে উঠল কোচ-খেলোয়াড়দের মরিয়া হয়ে ওঠার ছাপ। দ্বৈরথের ক্ষণ ঘণিয়ে আসতে কিছুটা স্নায়ুর চাপ যে ছোটনকে জেঁকে ধরেছে, তাও যেন প্রতিফলিত হলো অনুশীলনে দুইবার বলে শট নিতে গিয়ে তার আছাড় খাওয়ার দৃশ্যে! অবশ্য এর পেছনে দায় আছে মাঠেরও, বৃষ্টিতে মাঠ ছিল কিছুটা পিচ্ছিল।

পরিসংখ্যানের পাতায় ভারত যোজন যোজন এগিয়ে। সাফের ছয় ম্যাচ এবং সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ১০ বারের মুখোমুখি লড়াইয়ে কখনও তাদেরকে হারাতে পারেনি বাংলাদেশ। ৯ হারের বিপরীতে ড্র মাত্র একটি; ভারতের শিলিগুঁড়িতে ২০১৬ সালের আসরে গোলশূন্য ড্র করেছিল বাংলাদেশ। ছোটনের দাবি, পেছনের কোনো হতাশা গ্রাস করতে পারছে না তার দলকে।

“আমরা আগেও বলেছি, অতীতে যেটা হয়েছে…এবার নতুন করে ভালো কিছু করার জন্য আমরা এসেছি। মেয়েরা ভালো শুরুও পেয়েছে। কালকে মেয়েরা ভালো এবং প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচ খেলবে; আশা করি, ভালো ফল বয়ে আনবে। অতীতে আমরা যে ম্যাচ খেলেছি, মেয়েরা সেই অতীত পরিসংখ্যান দেখছে না। তারা এবার ভালো শুরু করেছে, এ ম্যাচেও ভালো কিছু আশা করছে।”

শিলিগুঁড়ির ওই আসরে খেলা সাবিনা, মারিয়া, কৃষ্ণা, স্বপ্নাদের অনেকে আছেন বর্তমান দলে। ২০১৯ সালে বিরাটনগরের সাফে খেলাদের মধ্যে আছেন ১৫ জন। শিলিগুঁড়ি ও বিরাটনগরের কিশোরীদের অনেকে এখন অনেক পরিণত এবং অভিজ্ঞ। ছোটন এই তারুণ্যের রথে সওয়ার হয়ে পেরুতে চান ভারত বাধা।

“এটা অস্বীকার করার উপায় নেই, দক্ষিণ এশিয়ায় ভারত সেরা দল। তাদের অনেক অভিজ্ঞ খেলোয়াড় আছে। কিন্তু আমাদের মেয়েরাও অনেক আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছে, অভিজ্ঞ হয়েছে। আমরা অপেক্ষা করছি, কাল দশরথে আমাদের মেয়েরা ভালো ফুটবল খেলবে। একটা ভালো ম্যাচ দেখব।”

“ভারতের বিপক্ষে আমরা বিগত দিনে যেমন খেলেছি, (মাঝের সময়ে) আমাদের যে উন্নতি হয়েছে, সেটার পরীক্ষা কাল মেয়েরা দিবে এবং ভালোভাবেই দিবে আশা করি। দলের সবাই সুস্থ আছে। কাল যেহেতু ম্যাচ সাড়ে ৫টায়। আমরা সবাইকে দেখব এবং তখন সেরা একাদশ সাজানোর ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব। সবাই সুস্থ থাকলে আমাদের সেরা টিমটাই খেলবে।”

কিন্তু সেরা ফল পাওয়ার প্রত্যাশা পূরণ হওয়ার পথটা মসৃণ নয় মোটেও। পাকিস্তানকে ৩-০ গোলে হারানোর পর মালদ্বীপকে ৯-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ভারত। দলটির আক্রমণভাগ বড্ড ধারালো। উজবেকিস্তানের দলে নাসাফ কোরাইশিতে খেলা দাঙ্গমেই গ্রেস, ক্রোয়েশিয়ার দল দিনামো জাগরেভে খেলা সোমিয়া গোগুলোথের মতো ফরোয়ার্ড আছেন।

চলতি আসরে গ্রেসের গোল ৩টি, সোমিয়ার ২টি। মিডফিল্ডার আঞ্জু তামাং মালদ্বীপ ম্যাচে ৪ গোল করে বুঝিয়ে দিয়েছেন পায়ের কাজ।

গোল করার সামর্থ্য, পায়ের কাজে উন্নতির ছাপ গত দুই ম্যাচে দেখিয়েছেন সাবিনা-মারিয়া মান্দা-মনিকা চাকমারাও। আসরের প্রথম হ্যাটট্রিক উপহার দিয়েছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক সাবিনা। রক্ষণে আঁখি খাতুন-মাসুরা পারভীনদের দৃঢ়তায় এখন পর্যন্ত অক্ষত বাংলাদেশের জাল। পায়ের চোট সেরে ওঠায় অনুশীলন করেছেন রক্ষণভাগের নির্ভরতা আনাই মোগিনি। ২০১৬ সালের সাফের রানার্সআপ বাংলাদেশ দলের কোচ তাই আশার জাল বুনছেন আত্মবিশ্বাসের সুঁতোয়।

“ভারত অভিজ্ঞ দল, অভিজ্ঞ খেলোয়াড় তাদের আছে। তাদের দলে বাইরের লিগে খেলা প্লেয়ারও আছে এবং তারা বর্তমান চ্যাম্পিয়ন। সবদিক দিয়ে তারা শক্তিশালী দল, কিন্তু আমাদের মেয়েরাও এই টুর্নামেন্টে তাদের যে উন্নতির ধারা, সেটা অব্যাহত রেখেছে। ভারত শক্তিশালী, কিন্তু আমরাও পুরোপুরি প্রস্তুত। এ ম্যাচ দিয়েই আমাদের ডু অর ডাই মিশন শুরু হয়ে গেল।”

আরও পড়ুন:

Also Read: বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচে সাবিনা-আঞ্জু দ্বৈরথ!

Also Read: ভারতের বিপক্ষে গোল পেতে মরিয়া স্বপ্না-কৃষ্ণাও

Also Read: ভারত অধিনায়কের চোখে বাংলাদেশ কঠিন প্রতিপক্ষ

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক