নেপালকে হারিয়ে শুরু বাংলাদেশের

শুরুতে গোলের জন্য অপেক্ষা করতে হলেও শেষ পর্যন্ত প্রত্যাশিত জয়ে সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ উইমেন’স চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু করেছে সাইফুল বারী টিটুর দল।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 2 Feb 2024, 03:05 PM
Updated : 2 Feb 2024, 03:05 PM

শুরু থেকে আক্রমণাত্মক ফুটবলের পসরা মেলেও মিলছিল না জালের দেখা। অনেক প্রচেষ্টা ভেস্তে যাওয়ার পর প্রথমার্ধের শেষ দিকে সাফল্য পায় বাংলাদেশ। দ্বিতীয়ার্ধে নেপাল কিছুটা ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিলেও আত্মবিশ্বাসে ভরপুর বাংলাদেশকে আটকাতে পারেনি।

কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে শুক্রবার ৩-১ গোলে জিতে সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ উইমেন’স চ্যাম্পিয়নশিপে শূভসুচনা করেছে সাইফুল বারী টিটুর দল।

৪০তম মিনিটে সাগরিকা দলকে এগিয়ে নেওয়ার পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মুনকি আক্তার। দ্বিতীয়ার্ধে সুকরিয়া মিয়া ব্যবধান কমানোর পর সাগরিকার গোলে জয় নিশ্চিত হয় বাংলাদেশের।

বাংলাদেশের দারুণ শুরুর সম্ভাবনা উঁকি দেয় চতুর্থ মিনিটেই। কিন্তু ৩০ গজ দূর থেকে স্বপ্না রানীর ফ্রি কিক লাফিয়ে ওঠা গোলরক্ষকের গ্লাভস ছুঁয়ে পোস্টে লেগে ফিরে। এরপর বক্সের ভেতর থেকে মুনকি আক্তারের শট গোললাইনের কাছে আটকান এক ডিফেন্ডার। গোল না পেলেও শুরুতেই ইঙ্গিত মিলে যায় বাংলাদেশের আগ্রাসী মানসিকতার।

তিন মিনিট পর মুনকির শট পোস্ট ছেড়ে বেরিয়ে এসে আটকে দেন নেপাল গোলরক্ষক সুজাতা তামাং। চতুর্দশ মিনিটে পুজা দাসের কোনাকুনি শট দূরের পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়। পাঁচ মিনিট পর এই ফরোয়ার্ডের আরেকটি শট ক্রসবার ঘেঁষে গিয়ে উপরের জাল কাঁপায়।

এরপর খেলার গতি কমে। প্রথমার্ধের শেষ দিকে আবার বাংলাদেশের আক্রমণে ধার বাড়ে, কিন্তু সমান্তরালে থাকে সুযোগ নষ্টের হতাশাও। ৩৯তম মিনিটে ক্রসবারের ওপর দিয়ে শট নেন পুজা।

পরের মিনিটে অবশেষে ডেডলক খোলার আনন্দে মেতে ওঠে গ্যালারি। তামাংয়ের গোল কিকে স্বপ্নার হেড পাস দুই ডিফেন্ডারের ফাঁক গলে বেরিয়ে নিয়ন্ত্রণে নেন সাগরিকা। নিখুঁত টোকায় আগুয়ান গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন এই ফরোয়ার্ড।

৪২তম মিনিটের গোলে দায় আছে নেপাল গোলরক্ষক তামাংয়ের। বিপদমুক্ত করতে লক্ষ্যহীন শট নিয়েছিলেন তিনি, বল গিয়ে পড়ে ইতি খাতুনের পায়ে। এই ফরোয়ার্ডের পাস ধরে বক্সে ফাঁকায় থাকা মুনকি চিপ শটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে ব্যবধান আরও বাড়িয়ে নিতে পারত বাংলাদেশ। কিন্তু আফিদা খাতুনের স্পট কিক পোস্ট কাঁপিয়ে ফেরার পর সাগরিকার নিচু শট গ্লাভসে জমান গোলরক্ষক। বক্সে সাগরিকা ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে ফাঁকা পোস্ট পেয়েও সাগরিকা ক্রসবারের উপর দিয়ে মারেন। এরপর ৫৪তম মিনিটে গোলরক্ষক স্বর্ণা রানী মন্ডলের ভুলে গোল হজম করে বসে বাংলাদেশ। নেপাল অধিনায়ক সাহার পাস ফেরাতে পোস্ট ছেড়ে বেরিয়ে এসেছিলেন স্বর্ণা, কিন্তু তিনি বলের নাগাল পাওয়ার আগেই টোকায় জাল খুঁজে নেন সুকরিয়া মিয়া।

কিছুটা আলগা হয়ে যাওয়া লাগাম ৫৭তম মিনিটে ফের মুঠোয় নেয় বাংলাদেশ। সতীর্থের থ্রু পাস সাগরিকা নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার সময় তার গায়ের সঙ্গেই সেঁটে ছিলেন মায়া মাস্কি। পোস্ট ছেড়ে বেরিয়ে এসে স্লাইড করেছিলেন বদলি গোলরক্ষক কারুন বুধাথোকি। তবে বল বের করে নিয়ে আলতো টোকায় জালে জড়ান সাগরিকা।

৮৮তম মিনিটে বাঁ দিক দিয়ে একক প্রচেষ্টায় আক্রমণে ওঠা সাগরিকা কাছের পোস্ট দিয়ে লক্ষ্যভেদ করতে গিয়ে নষ্ট করেন সুযোগ। গোলমুখে তখন ফাঁকায় ছিলেন নবিরন খাতুন।

দিনের প্রথম ম্যাচে ভুটানকে ১০-০ গোলে উড়িয়ে দেয় ভারত। আগামী রোববার রাউন্ড রবিন লিগে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ।