তলানির দল ব্রাদার্সকে গোলের মালা পরাল কিংস

প্রিমিয়ার লিগের ফিরতি লেগে ব্রাদার্স ইউনিয়নকে ৭-১ গোলে হারিয়েছে বসুন্ধরা কিংস।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 March 2024, 10:57 AM
Updated : 30 March 2024, 10:57 AM

দাপুটে বসুন্ধরা কিংসের বিপক্ষে ঐতিহ্যের কঙ্কাল হয়ে থাকা ব্রাদার্স ইউনিয়নের দুরবস্থা অনুমিতই ছিল। কৌতুহল ছিল এলিটা কিংসলে তার সাবেক ক্লাবের বিপক্ষে কতটা আলো ছড়াতে পারেন, সেটি ছিল দেখার। নাইজেরিয়ান থেকে বাংলাদেশি হয়ে যাওয়া এই ফরোয়ার্ড জালের দেখা পেলেন বটে, কিন্তু তার আগে পরে কেবল গোলই হজম করে গেল ব্রাদার্স। লিগের দ্বিতীয় পর্বও তারা শুরু করল আরেকটি বড় ব্যবধানের হার দিয়ে। 

রাজশাহীর মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামে শনিবার প্রিমিয়ার লিগের ফিরতি লেগে ৭-১ গোলে উড়িয়ে দেয় কিংস। প্রথম পর্বেও তাদেরকে ৫-২ গোলে গুঁড়িয়ে দিয়েছিল শিরোপাধারীরা। চলতি লিগে এই প্রথম কোনো দল এক ম্যাচে হজম করল ৭ গোল। 

ড্র দিয়ে লিগের প্রথম পর্ব শেষ করা কিংস দ্বিতীয় পর্বের শুরুতে পেল জয়ের দেখা। ১০ ম্যাচে ২৫ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান আরও মজবুত করল অস্কার ব্রুসনের দল। যথারীতি লিগ টেবিলের তলানিতে আছে ব্রাদার্স; সপ্তম হারের তেতো স্বাদ পাওয়া গোপীবাগের দলটির ১০ ম্যাচের পয়েন্ট ৩। 

কিংসের বিপক্ষে অবশ্য শুরুটা ভালো হতে পারত ব্রাদার্সের। অষ্টম মিনিটে ববুরবেকের কাছ থেকে বল কেড়ে নিয়ে আক্রমণে ওঠেন জ্যালো ইয়ানকুবা। বক্সে ঢুকে পড়ে আনিসুর রহমান জিকোকো কাটিয়ে গাম্বিয়ার এই ফরোয়ার্ডের শট রিমন হোসেন শেষ মুহূর্তের স্লাইডে গোললাইন থেকে কোনমতে ফেরান। একটু পরই কিংসের রাকিব হোসেন হেডে জালে বল জড়ালেও অফসাইডের কারণে হয়নি গোল। 

অবশ্য গোলের জন্য কিংসের অপেক্ষা দীর্ঘায়িত হয়নি। ১৯তম মিনিটে মিগেল ফিগেইরা দামাশেনোর ফ্রি কিকে অফসাইডের ফাঁদ ভেঙে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে টোকায় জালে বল জড়িয়ে দেন সাদউদ্দিন। ৩০তম মিনিটে দামাশেনোর ছোট পাসে বক্সের ঠিক উপর থেকে নিচু শটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রবসন দি সিলভা রবিনিয়ো। 

৩৭তম মিনিটে রিমন হোসেনের কাট ব্যাকে রবিনিয়ো ডামি করলে বল চলে যায় দামাশেনোর পায়ে। ঠাণ্ডা মাথায় নিখুঁত শটে কাছের পোস্ট দিয়ে লক্ষ্যভেদ করেন এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। চার মিনিট পর রবিনিয়োর কাটব্যাকে ছোট বক্সের উপরে অরক্ষিত এমফোন উদোহর ডান পায়ের শট আটকানোর কোনো সুযোগই পাননি গোলরক্ষক শওকত হেলাল মিয়া। 

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে মাহবুবুর রহমান সুফিলের ক্রসে রিমন লাফিয়ে উঠে হেডে ক্লিয়ারের চেষ্টা করলেও নাগাল পাননি, দূরের পোস্টে থাকা কিংসলে হেডে পরাস্ত করেন জিকোকে। তাতে ব্যবধান কিছুটা কমিয়ে ম্যাচে ফেরার উপলক্ষ্য পায় ব্রাদার্স। নিজের সাবেক ক্লাবের বিপক্ষে গোল করায় উদযাপনে সাদামাটা ছিলেন কিংসলে। 

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর দিকে ইব্রাহিমের নিচু আড়াআড়ি ক্রসে ডিফেন্ডারকে ফাঁকি দিয়ে বল যায় সোহেল রানার (জুনিয়র) পায়ে, প্লেসিং শটে স্কোরলাইন ৫-১ করেন তিনি। 

৫৮তম মিনিটে গতিতে ডিফেন্ডারদের ছিটকে দিয়ে বক্সে ঢুকে শট নিয়েছিলেন উদোহ, বল পোস্টে লেগে ফেরার পর দামাশেনো ফিরতি শটে লক্ষ্যভেদ করেন। খানিক পরে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন উদোহ, তাতে স্কোরলাইন ৭-১ করার পাশাপাশি নিজেদের শততম ম্যাচও বড় জয়ে রাঙিয়ে রাখা নিশ্চিত হয় কিংসের।