রংপুরে এক শিশুর অণ্ডকোষ কেটে ফেলা হয়েছে, সন্দেহ সিভিল সার্জনের

একজন চিকিৎসক ‘৪০ হাজার টাকার চুক্তিতে’ ১৫ মাসের এই শিশুর অস্ত্রোপচার করেন।

রংপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 July 2022, 05:50 AM
Updated : 28 July 2022, 05:50 AM

রংপুরে বেসরকারি মা ও শিশু জেনারেল হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভুল অস্ত্রোপচারে এক শিশুর অণ্ডকোষ কেটে ফেলা হয়েছে সন্দেহে তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন সিভিল সার্জন।

‘অস্ত্রোপচারের নোট যাচাই করতে গিয়ে শিশুটির দুটি অণ্ডকোই কেটে ফেলার তথ্য নজরে এলে’ এই উদ্যোগ নেওয়া হয় বলে সিভিল সার্জন শামীম আহমেদ জানান।

রংপুর সিভিল সার্জন দপ্তরের একজন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জানান, সোমবার দুপুরে শহরের ধাপ শ্যামলী লেন পুলিশ ফাঁড়ির দক্ষিণে ওই হাসপাতাল পরিদর্শনে যান তারা। সেখানে রোগীদের থাকার জন্য সংকুচিত পরিবেশ ও নোংরা অবস্থায় পোস্ট অপারেটিভ কেয়ার পরিলক্ষিত হয়। পঞ্চম তলায় ১৫ মাসের এক শিশুকে অণ্ডকোষ অপারেশন অবস্থায় পান তারা। ফাইলপত্র ও ভর্তির ফরমের অপারেশন নোট যাচাই করতে গিয়ে শিশুটির দুটি অণ্ডকোষই কেটে ফেলার তথ্যও নজরে আসে। এ নিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কোনো জবাব দিতে পারেনি।

ঘটনা খতিয়ে দেখার জন্য বুধবার তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয় বলে জানান সিভিল সার্জন শামীম আহমেদ।

কমিটির সদস্যরা হলেন সিভিল সার্জন, রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের শিশু সার্জারি বিভাগের প্রধান বাবলু কুমার সাহা ও সদর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা রবি শংকর মণ্ডল।

শিশুটি ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার পলাশবাড়ী এলাকার এক দরিদ্র পরিবারের সন্তান।

শিশুর নানা মোজাম্মেল হোসেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, তার নাতির অণ্ডকোষে সমস্যা দেখা দিলে তারা বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে যান। একপর্যায়ে এই হাসপাতালের চিকিৎসক মাহফুজুল হক মানিক দ্রুত অস্ত্রোপচার করতে বলেন।

“চিকিৎসক মানিক নিজে অপারেশন করার পাশাপাশি কম খরচে সবকিছু করার আশ্বাস দেন। ৪০ হাজার টাকার চুক্তিতে গত ২৩ জুলাই মানিক অপারেশন করেন। পরে সিভিল সার্জনের পরিদর্শনে ভুল অপারেশনের ঘটনা জানাজানি হলে মঙ্গলবার রিলিজ দেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।”

তবে চিকিৎসক মানিকের দাবি ‘অস্ত্রোপচার ঠিকমতই হয়েছে’।

মানিক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “যা শুনেছেন তা ভুল। অস্ত্রোপচার ঠিকমতই হয়েছে। শিশুটির অণ্ডকোষ ওপরে ছিল। নিচে নামিয়ে দেওয়া হয়েছে। আর অপারেশন নোটে অণ্ডকোষ কেটে ফেলার বিষয়টি ভুল করে লেখা হয়েছে। পরে আমি সংশোধন করে দেব।”

সব দেখেশুনে তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন শামীম আহমেদ।

তিনি বলেন, “ভুল অপারেশন হয়েছে কিনা তা তদন্তের জন্যই কমিটি গঠন করা হয়েছে। শিশুটিকে নিয়ে তার পরিবার গ্রামে চলে গেছে। আমরা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছি। সবকিছু দেখে ও পর্যবেক্ষণ শেষে তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়া হবে।

“অণ্ডকোষ কেটে ফেলার বিষয়টি এখনই সঠিক কিনা তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক