বঙ্গোপসাগরে ১ লাখ ইয়াবা উদ্ধার, মিয়ানমারের নাগরিক আটক

ট্রলারে মাছ ধরার জালের ভেতর বিশেষ কৌশলে লুকিয়ে রাখা এক লাখ ইয়াবা পাওয়া যায়।

কক্সবাজার প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 August 2022, 02:18 PM
Updated : 4 August 2022, 02:18 PM

কক্সবাজার সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে ট্রলার থেকে এক লাখ ইয়াবাসহ নয় ব্যক্তি আটক হয়েছেন, যাদের আটজন মিয়ানমারের নাগরিক বলে র‌্যাব জানিয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকালে র‍্যাব-১৫ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. খাইরুল ইসলাম সরকার জানিয়েছেন।

কক্সবাজার ব্যাটালিয়ন কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে খাইরুল ইসলাম সরকার জানান, গোপন তথ্য পেয়ে ভোরে টেকনাফ উপজেলার সেন্টমার্টিনের ছেঁড়াদ্বীপ সংলগ্ন গভীর সাগরে অভিযান চালায় র‌্যাব।

আটকরা হলেন টেকনাফ পৌরসভার দক্ষিণ জালিয়াপাড়ার ওসমান গণির ছেলে জিয়াবুল হোসেন (২১), টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মৃত জাফর আমানের ছেলে আলী উল্লাহ (৫০), জাদিমুড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মৃত ফজল আহমেদের ছেলে আবু তাহের (৪০), মিয়ানমারের আইক্যাপর মেহেরকুলের মো. শফিকের ছেলে মো. ইউনুস (৩৫), নূরে আলমের ছেলে বদি আলম (২৩), আমিন হোসেনের ছেলে এনামুল হাছান (২০), হাফেজ আহমদের ছেলে নূর মোহাম্মদ (২২), মাহমুদ হোসেনের ছেলে মো. রফিক (২১), সৈয়দ আহমেদের ছেলে মো. সাদেক (২২)।

খাইরুল ইসলাম সরকার বলেন, সমুদ্রপথে অভিনব কায়দায় ইয়াবাসহ মাদকের বড় বড় চালান বাংলাদেশে পাচার হচ্ছে বলে খবর পায় র‍্যাব। এ খবরে র‍্যাবের একটি চৌকস দল সোমবার থেকে টেকনাফের সেন্টমার্টিন দ্বীপ সংলগ্ন গভীর সাগরে সম্ভাব্য বিভিন্ন এলাকায় নজরদারি শুরু করে।

"বৃহস্পতিবার ভোরে একটি সংঘবদ্ধ চক্র অবৈধ পন্থায় ডাঙ্গায় মোটা অংকের টাকা লেনদেন করবে এবং গভীর সাগরে ইয়াবার চালান হস্তান্তর করবে খবর পায় র‍্যাব। এরপর সাগরে অভিযান চালায়।”

তিনি আরও বলেন, এক পর্যায়ে মিয়ানমার দিক থেকে আসা একটি সন্দেহজনক ট্রলার দেখতে পেয়ে র‌্যাবের দলটি থামার জন্য নির্দেশ দেয়। র‍্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে ট্রলারটি দ্রুত চালিয়ে পাচারকারীরা পালানোর চেষ্টা চালায়। পরে ধাওয়া দিয়ে ট্রলারটি আটক করা হয়।

র‍্যাবের এ কর্মকর্তা আরও বলেন, ট্রলারটিতে তল্লাশি করে মাছ ধরার জালের মধ্যে বিশেষ কৌশলে লুকিয়ে রাখা এক লাখ ইয়াবা পাওয়া যায়। এ সময় ট্রলারে থাকা নয় জন মাদক পাচারকারীকে আটক করা হয়। আটকদের মধ্যে আট জন মিয়ানমারের নাগরিক।

“দীর্ঘদিন ধরে হুন্ডির মাধ্যমে সংঘবদ্ধ চক্রটির সদস্যরা টাকা লেনদেন করে গভীর সাগরে মাদকের চালানে জড়িত।"

আটকদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে টেকনাফ থানায় মামলা করা হয়েছে বলে জানান খাইরুল।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক