জাবির গেস্ট রুমে সাংবাদিক ‘নির্যাতন’ তদন্তে কমিটি

তদন্ত কমিটিকে পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 August 2022, 06:56 PM
Updated : 3 August 2022, 06:56 PM

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে এক গণমাধ্যমকর্মীকে ‘গেস্ট রুমে’ নিয়ে মারধরের অভিযোগ তদন্তে কমিটি গঠন করেছে কর্তৃপক্ষ।

বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের হল কর্তৃপক্ষ বুধবার রাতে তিন সদস্যের এই তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।

হলের ওয়ার্ডেন ও আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আলী আকবরের নেতৃত্বে এই কমিটির বাকি দুই সদস্য হলেন লোক-প্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আবু সাইফ মো. তৌহিদুল আনাম ও একই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাহফুজুর রহমান।

আলী আকবর বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, "আমাদেরকে পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। আগামীকাল যেহেতু ভর্তি পরীক্ষা রয়েছে, তদন্তের কাজ করার জন্য আমরা চার দিন সময় পাব। অভিযোগ এখনও আমাদের হাতে পৌঁছেনি, আগামীকাল হাতে পেয়ে যাব।"

বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের এক শিক্ষার্থীকে মঙ্গলবার রাতে গেস্ট রুমে নিয়ে মারধরসহ নানাভাবে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে।

ক্যারিয়ারটাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকমের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি এই শিক্ষার্থী বুধবার এই হলের প্রাধ্যক্ষ বরাবর করা এই বিষয়ে আট ছাত্রলীগ কর্মীর নামে অভিযোগে করেন।

অভিযোগে বলা হয়, “রুম থেকে গেস্ট রুমে ডেকে নিয়ে আমাকে সিলিং ধরে ঝুলতে বলা হয়, টেবিলের নিচে মাথা দিতে বলা হয়। আমি বাধ্য হয়ে ঝুলেছি। কিন্তু অসুস্থতার কারণে টেবিলের নিচে মাথা দিতে পারিনি। তাদেরকে আমি সাংবাদিক পরিচয় দেওয়ার পর তারা আরও বেশি আক্রমণাত্মক আচরণ করে আমার সাথে।”

অভিযোগে আরও বলা হয়, নির্যাতনের এক পর্যায়ে তিনি মোবাইল ফোনে রেকর্ড করছিলেন কিনা তা নিশ্চিত হওয়ার জন্য তারা ফোনটা দিতে বলে। লক খুলে দিতে বললে তিনি অস্বীকৃতি জানান।

“পরে তারা আমার শার্টের কলার ধরে অনেকে মিলে আক্রমণ করে। তারা আমার ফোন অনেকক্ষণ আটকে রাখে।”

মারধরকারীদের মধ্যে ৪৭তম ব্যাচের অর্থনীতি বিভাগের জিয়াদ মির্জাসহ কয়েজন ‘ছাত্রলীগকর্মী ছিলেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

তবে জিয়াদ মির্জা তার বিরুদ্ধে অভিযোগ অস্বীকার করে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আমি গেস্ট রুমে উপস্থিত ছিলাম। সেখানে কয়েকজন অভিযোগকারীর সাথে বাজে আচরণ করেছে। আমি তেমন কিছুই বলিনি। আমাকে স্পষ্টতই ফাঁসানো হয়েছে।”

আরও পড়ুন:

Also Read: জাবির ‘গেস্ট রুমে’ সাংবাদিক নির্যাতনের অভিযোগ

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক