পিরোজপুরে চুরির অভিযোগে মাদ্রাসার খাদেমকে বেদম লাঠিপেটা

লাঠিপেটার পর চুরির মামলায় তাকে পুলিশে দেন ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য।

পিরোজপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 July 2022, 05:53 AM
Updated : 26 July 2022, 05:53 AM

পিরোজপুরের স্বরূপকাঠী উপজেলায় মাদ্রাসার এক খাদেমকে চুরির অভিযোগ তুলে বেদম লাঠিপেটার ভিডিও ছড়িয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, উপজেলার সোহাগদল ইউনিয়ন পরিষদের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য কামরুল হোসেন খোকন ক্রিকেট স্টাম্প দিয়ে বেধড়ক লাঠিপেটা করছেন জহিরুল ইসলাম নামে এক খাদেমকে। তাকে জামা খুলে লাঠিপেটা করা হয়। পরে জহিরুলকে হাত বাঁধা অবস্থায় দেখা যায়।

জহিরুল ঝালকাঠীর হদুয়া বৈশাখিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার খাদেম। ঝালাকাঠির শেখেরহাট ইউনিয়নের নওয়াপাড়ার নূরুল ইসলামের ছেলে তিনি।

মারধরের এই ভিডিও সোমবার ফেইসবুকে ছড়ালে সাংবাদিকরা জানতে পারেন।

যোগাযোগ করা হলে ইউপি সদস্য কামরুল হোসেন খোকন বলেন, “জহিরুল ছদ্মবেশ নিয়ে ঘুরে বেড়ায়। আগেও জহিরুল চুরি করেছে। শনিবার চুরি করার পর ধরা পড়ে। তখন ক্রিকেট খেলার স্ট্যাম্প দিয়ে ভয় দেখালে জহিরুল সব স্বীকার করে।”

মারধরের পর মামলা করে পুলিশে দেওয়া হয় খাদেম জহিরুলকে।

স্বরূপকাঠী থানার ওসি আবির মোহাম্মদ হোসেন বলেন, জহিরুল মসজিদের মালামাল চুরির কথা স্বীকার করেছেন। তার কাছ থেকে মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় ইউপি সদস্য বাদী হয়ে মামলা করেন। রোববার তাকে আদালতে পাঠানো হলে বিচারক কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

তবে মারধরের অভিযোগ পুলিশ পায়নি বলে জানান ওসি।

স্বরূপকাঠীর ইউএনও মো. মোশারেফ হোসেন বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি জেনেছেন তিনি।

“কোনো ব্যক্তিকে এভাবে মারার অধিকার কারও নেই। এ ব্যাপারে ওসি ও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানকে বিস্তারিত জানার জন্য বলা হয়েছে। পাশাপাশি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত করা হয়েছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক