নিরাপদ হলের দাবিতে বরিশাল মেডিকেল শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

মঙ্গলবার রাতেও হলের এক শিক্ষার্থীর কক্ষের পলেস্তারা খসে পড়ে।

বরিশাল প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 August 2022, 06:31 AM
Updated : 17 August 2022, 06:31 AM

নিরাপদ হলের দাবিতে একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ রেখে অধ্যক্ষের কার্যালয় ঘেরাও করে বিক্ষোভ করছেন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ শিক্ষার্থীরা।

বুধবার সকাল ৮টা থেকে অধ্যক্ষ কার্যালয় ও প্রশাসনিক ভবনে তালা দিয়ে ঘিরে এই বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করছেন তারা।

শিক্ষার্থীরা জানান, বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজে ছাত্র ও ছাত্রীদের জন্য তিনটি করে ছয়টি হল রয়েছে। প্রতিটি হলই জরাজীর্ণ। হলের ছাদের পলেস্তারা প্রতিনিয়তই খসে পড়ছে। এতে অনেক শিক্ষার্থী আহতও হচ্ছে।

ছাত্রী হলের শিক্ষার্থীরা জানান, তাদের হলের অবস্থা খুবই খারাপ। প্রতিনিয়ত আতঙ্কের মধ্যে থাকতে হয়। এখন নিরাপদ হল তাদের দাবি।

শিক্ষার্থী এহসান উল্লাহ বলেন, “ছেলেদের তিন হলের মধ্যে হাবিবুর রহমান ছাত্রাবাসের অবস্থা খুবই খারাপ। গতরাতেও এক সহপাঠীর কক্ষের পলেস্তারা খসে পড়লে অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পায়। তাই আমাদের এক দাবি- নিরাপদ হল।”

আন্দোলনরত আরেক শিক্ষার্থী তাহসিন আহম্মেদ বলেন, কর্তৃপক্ষ হাবিবুর রহমান ছাত্রাবাস পরিত্যক্ত ঘোষণা করলেও আবাসনের অভাবে ছাত্ররা এখনও সেখানে থাকতে বাধ্য হচ্ছেন। দ্রুত এই ছাত্রদের পুনঃআবাসনের ব্যবস্থা করতে হবে। এই সংকট নিরসনে নতুন হল নির্মাণে দৃশ্যমান অগ্রগতি না ঘটলে আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

চতুর্থ বর্ষের ছাত্র সাগর হোসেন বলেন, সাত দিনের মধ্যে হল নির্মাণের দৃশ্যমান কাজ দেখতে চাই। এ ছাড়া ঝুঁকিপূর্ণ হলের ছাত্র ও ছাত্রীদের নিরাপদ স্থানে রাখার দাবি করছি। তা না হলে অনির্দিষ্টকালের জন্য একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ থাকবে।

বরিশাল মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. মনিরুজ্জামান শাহীন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “কলেজে দুইটি হল নির্মাণ কাজ অচিরেই শুরু হবে। এ ছাড়া হলের সংস্কার কাজও দ্রুতই শুরু হবে।”

তবে দাবি মেনে নেওয়ার পরেও নিরাপদ হলের দৃশ্যমান অগ্রগতির দাবিতে বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছেন শিক্ষার্থীরা।

এ বিষয়ে অধ্যক্ষ বলেন, “শিক্ষার্থীদের শান্ত করার চেষ্টা করছি। বিষয়টি সমাধানে মিটিংয়ে বসা হয়েছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক