মসজিদে ঘোষণা দিয়ে ড্যাফোডিল শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা, সংঘর্ষ

সন্ধ্যার পর আশুলিয়া ইউনিয়নের চাঁনগাও এলাকায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে বলে সাভার মডেল থানার ওসি।

সাভার প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 5 Nov 2023, 07:01 PM
Updated : 5 Nov 2023, 07:01 PM

ছাত্রের মৃত্যুর ঘটনায় জড়িত হামলাকারীদের গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবিতে বিক্ষোভরত ঢাকার সাভারে বেসরকারি ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে এলাকাবাসীর সংঘর্ষ হয়েছে।

শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেছেন, রোববার সন্ধ্যার পর মসজিদের মাইক থেকে ঘোষণা দিয়ে এলাকাবাসী তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

অপরদিকে এলাকাবাসী দাবি করেছেন, শিক্ষার্থীরা হামলা চালিয়ে তাদের দোকানপাট-বাড়িঘরে ভাঙচুর ও লুটপাট চালিয়েছে।

সন্ধ্যার পর আশুলিয়া ইউনিয়নের চাঁনগাও এলাকায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে বলে সাভার মডেল থানার ওসি দীপক চন্দ্র সাহা জানান।

তিনি বলেন, “শিক্ষার্থীদের সঙ্গে এলাকাবাসীর সংঘর্ষ হয়েছিল। তবে বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক। ওই এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।”

শিক্ষার্থীরা জানায়, একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে ২৭ অক্টোবর স্থানীয় কয়েক যুবক মিলে বস্ত্র প্রকৌশল বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী হাসিবুল হাসান অন্তরকে বিরুলিয়া ব্রিজের নীচে মারধর করে। এতে তিনি অচেতন হয়ে পড়েন। পরে ওই যুবকরাই তাকে খাগান বাজারে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়।

Also Read: মারধরে আহত ড্যাফোডিল শিক্ষার্থীর মৃত্যু, সাভারে সংঘর্ষ-ভাঙচুর

পরে স্থানীয়রা অন্তরকে প্রথমে ড্যাফোডিল কেয়ারে নিয়ে যায়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে তার পরিবারে তাকে ময়মনসিংহের একটি হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। বৃহস্পতিবার সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

এর জেরে শনিবার বিকালে সাভারের খাগানে আকরান বাজারে বিক্ষোভে নামে শিক্ষার্থীরা। এ সময় স্থানীয়দের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষ, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

এরই ধারাবাহিকতায় রোববার সন্ধ্যার পর শিক্ষার্থীরা বিরুলিয়া ও আশুলিয়া সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে। তখন হঠাৎ করে স্থানীয়রা মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে লাঠিসোঁটা নিয়ে বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থীদের উপর হামলা চালায় বলে কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান।  

হামলার খবর ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পড়লে শিক্ষার্থীরা এসে গ্রামবাসীর সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। দফায় দফায় সংঘর্ষের পর বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বাড়িঘর ও দোকানপাটে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর করে।

সড়কে বাঁশ দিয়ে অবরোধের পাশাপাশি কাঠের টুকরো ও টায়ার জ্বালিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আশুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য বেলায়েত হোসেন বলেন, “সন্ধ্যার পর চানগাঁও এলাকায় হঠাৎ করে দোকানপাট ভাঙচুর শুরু করে শিক্ষার্থীরা। পরে এলাকাবাসী এগিয়ে গেলেও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে না পেরে একপর্যায়ে স্থানীয় মসজিদে মাইকিং করে লোকজন।”

এলাকার একাধিক বাসিন্দা সাংবাদিকদের বলেন, এ সময় দোকানপাটে থাকা নগদ টাকা, মালামালও লুট হয়। ভাঙচুর ও লুটপাট হওয়া দোকানিরা দোকানের সামনে এসে কান্নায় ভেঙে পড়েন।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর মোহাম্মদ বদরুজ্জামান বলেন, “সন্ধ্যার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা করার সময় হঠাৎ খবর আসে চানগাঁও এলাকায় কিছু শিক্ষার্থীর ওপর হামলা করা হয়েছে।

“তারা অতর্কিত হামলা করে। এতে আমাদের কয়েক শিক্ষার্থী আহত হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিক্যাল সেন্টারে চিকিৎসা নিয়েছে। তবে আপাতত পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ স্থানে ফিরে গেছে।”