বরিশালে বাল্কহেড ডুবিতে নিখোঁজ সুকানীর লাশ উদ্ধার

গত সোমবার রাতে সন্ধ্যা নদীতে বাল্কহেড ডুবে দুজন নিখোঁজ হন। একদিন পর একজনের এবং পাঁচ দিন পর মিলল আরেকজনের লাশ।

বরিশাল প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 August 2022, 07:03 PM
Updated : 12 August 2022, 07:03 PM

বরিশালে সন্ধ্যা নদীতে লঞ্চের ধাক্কায় বালুবাহী বাল্কহেড ডুবির পাঁচ দিন পর নিখোঁজ সুকানীর লাশ পাওয়া গেছে।

শুক্রবার বিকালে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা ওই বাল্কহেডের মধ্যে তার লাশ পান বলে বানারীপাড়া থানার ওসি মো. মাকসুদ আলম চৌধুরী জানিয়েছেন।

নিহত মিলন হাওলাদার (৩৫) পিরোজপুরের স্বরুপকাঠি উপজেলার সুটিয়াকাঠি ইউনিয়নের নান্দুহার গ্রামের মো. বাদশা মিয়ার ছেলে।

ওসি মো. মাকসুদ আলম চৌধুরী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, শুক্রবার সকাল থেকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি হুমায়ুন কবিরের নেতৃত্বে একদল ডুবুরি মিলনের খোঁজে ডুবে যাওয়া বাল্কহেডে তল্লাশি চালায়।

“বিকাল ৪টার দিকে বাল্কহেডের ভিতরে থেকে মিলনের লাশ উদ্ধার করা হয়।”

ওসি আরও জানান, লাশের ময়নাতদন্তের জন্য বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

গত ৮ অগাস্ট রাত ৯টার দিকে বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলায় সন্ধ্যা নদীর মসজিদবাড়ি এলাকায় ‘মর্নিং সান-৯’ লঞ্চের ধাক্কায় ‘এমবি ইফতি+রিজভী’ নামের বাল্কহেডটি ডুবে যায়।

ঘটনার পর বাল্কহেডে থাকা চালক কালাম ও সুকানী মিলন নিখোঁজ হন। এর মধ্যে ৯ অগাস্ট বাল্কহেডের ইঞ্জিন রুম থেকে চালক কালাম হাওলাদারের লাশ উদ্ধার করেন স্থানীয় ডুবুরিরা। পাঁচদিন পর উদ্ধার হয়েছে মিলনের লাশ।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক