ধামরাইয়ে ‘জমে থাকা গ্যাস’ থেকে ঘরে আগুনে দগ্ধ ৪

বিকট শব্দ হয়ে আগুন লেগে ঘরের মালামাল পুড়ে যায়। ভেঙে পড়ে জানালার কাচ।

সাভার প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 March 2024, 01:01 PM
Updated : 27 March 2024, 01:01 PM

ঢাকার ধামরাইয়ে ঘরে 'জমে থাকা গ্যাসের' আগুন থেকে একই পরিবারের চারজন দগ্ধ হয়েছেন।

ধামরাই ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ইনচার্জ সোহেল রানা জানান, বুধবার গভীর রাতে ধামরাই পৌরসভার মোকামটোলা এলাকায় প্রবাসী ইব্রাহিম মিয়ার ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে।

দগ্ধরা হলেন- নুরুল ইসলাম (৬৩), তার স্ত্রী সুফিয়া বেগম (৪৮), মেয়ে গণবিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী সাথী আক্তার মৌ (২৩) ও ছেলে কলেজছাত্র আল হাদী সোহাগ (১৯)।

দগ্ধদের রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের বাড়ি ধামরাইয়ের বাইশাকান্দা ইউনিয়নের উত্তরপাড়া এলাকায়।

দগ্ধদের অবস্থা আশঙ্কাজনক জানিয়ে সোহেল রানা বলেন, “রাত আনুমানিক ৩টার দিকে চারতলা ভবনটির নিচতলায় বিকট শব্দ হয়ে আগুন লেগে ঘরের মালামাল পুড়ে যায়। ভেঙে পড়ে জানালার কাচ। বাড়িটিতে লাইনের গ্যাসের পাশাপাশি সিলিন্ডার গ্যাসও ছিল। কিন্তু সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হয়নি। 

“ধারণা করা হচ্ছে, ঘরে জমে থাকা গ্যাস থেকে আগুন ধরে যায়। পরে স্থানীয়রাই আগুন নিভিয়ে ফেলে।” 

খবর পেয়ে ধামরাই ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দগ্ধ অবস্থায় চারজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায় বলে জানান এ ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা। 

ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নূর রিফফাত আরা বলেন, “সেহরির সময় অগ্নিদগ্ধ হওয়া চারজনকে প্রথমে এ হাসপাতালে আনা হয়েছিল। তবে তাদের শারীরিক অবস্থা খারাপ থাকায় শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটে পাঠানো হয়েছে।”

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক মো. তরিকুল ইসলাম বলেন, দগ্ধদের মধ্যে নুরুলের ৪৮ শতাংশ, সোহাগের ৩৮ শতাংশ (মুখমণ্ডলসহ), সুফিয়ার ৮০ শতাংশ (মুখমণ্ডলসহ) এবং সাথীর ১৬ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে।