কুসিক নির্বাচন: আওয়ামী লীগের প্রার্থিতার দৌড়ে ১৪ জন

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকেই ক্ষমতাশীন আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীরা কেন্দ্রে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। এরই মধ্যে ১৪ জন নৌকা প্রত্যাশী দলের মনোনয়ন ফরম কিনে জমা দিয়েছেন।

কুমিল্লা প্রতিনিধিআবদুর রহমান, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 May 2022, 05:25 PM
Updated : 12 May 2022, 05:25 PM

তবে এখন পর্যন্ত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিএনপি দলীয়ভাবে এ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ঘোষণা না দেওয়ায় দলের সম্ভাব্য প্রার্থীদের কেন্দ্রে ছুটতে হচ্ছে না। এরই মধ্যে বর্তমান মেয়র মনিরুল হক সাক্কুসহ দুইজন বিএনপিপন্থী সম্ভাব্য মেয়র পদপ্রার্থী স্বতন্ত্র হিসেবে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছ থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন।

এদিকে, শুক্রবার আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। ওই সভায় দলের মেয়র পদপ্রার্থীর নাম ঘোষণা করা হবে বলে বৃহস্পতিবার কেন্দ্রের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।  

গত ৫ মে থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের ফরম বিতরণ করেছে দলটি। বুধবার বিকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত পর্যন্ত দলীয় মনোনয়নের আবেদনপত্র সংগ্রহ ও জমা প্রদানের শেষ সময় ছিল। শেষ সময় পর্যন্ত ১৪ জন সম্ভাব্য মেয়র পদপ্রার্থীরা দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে যথারীতি জমা দিয়েছেন।

এদের মধ্যে বুধবার একেবারে শেষ সময়ে এসে দলীয় মনোনয়ন ফরম তুলে জমা দেন সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য ও কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আঞ্জুম সুলতানা সীমা। তিনি কুমিল্লার প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা আফজল খানের মেয়ে।

সর্বশেষ ২০১৭ সালের ৩০ মার্চ অনুষ্ঠিত কুসিকের দ্বিতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ছিলেন সীমা। সে সময় তাকে হারিয়ে মেয়র নির্বাচিত হন বিএনপি নেতা মনিরুল হক সাক্কু।

আঞ্জুম সুলতানা সীমা ছাড়াও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন কুমিল্লা মহানগর সাধারণ সম্পাদক আরফানুল হক রিফাত, সহ-সভাপতি মো. ওমর ফারুক, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক নূর-উর রহমান মাহমুদ তানিম, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আনিসুর রহমান মিঠু, দক্ষিণ জেলার সাবেক যুগ্ম-আহবায়ক সফিকুল ইসলাম শিকদার, তার ছোট ভাই মহানগর শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক কবিরুল ইসলাম শিকদার, প্রয়াত আফজল খানের ছেলে কুমিল্লা চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি মাসুদ পারভেজ খান ইমরান, মুক্তিযোদ্ধা মেজর মমিন ফাউন্ডেশনের সদস্য সচিব কাজী ফারুক আহাম্মেদ।

এছাড়াও রয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা জাকির হোসেন, শাহজাহান বিপ্লব, মাহাবুবুর রহমান, শ্যামল চন্দ্র ভট্টাচার্য ও শফিউর রহমান।

দলের মনোনয়ন সংগ্রহকারী সবাই নৌকার মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী।

আঞ্জুম সুলতানা সীমা বলেন, “আমি দলের মনোনয়ন ফরম নিয়ে সেটি পূরণ করে জমাও দিয়েছি। আমি এখন নেত্রীর সিদ্ধান্তের দিকে তাকিয়ে আছি। নেত্রী যেটা ভালো মনে করবেন, আমি সেটাই করব। নেত্রী যদি চান আমি নির্বাচন করি- তাহলে এমপি পদ থেকে পদত্যাগ করব।”

মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরফানুল হক রিফাত বলেন, “দলের মনোনয়ন নিয়েছি। আশা করি জননেত্রী শেখ হাসিনা ও দল আমাকেই নৌকার মনোনয়ন দেবেন।”

মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক নূর-উর রহমান মাহমুদ তানিম বলেন, “আল্লাহর রহমত ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্নেহ দৃষ্টি আমার প্রতি রয়েছে। আশা করি দল ও প্রিয় নেত্রী আমাকে নগরবাসীর সেবা করার সুযোগ দেবেন।”

মহানগর আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আনিসুর রহমান মিঠু বলেন, “আমি এখন নেত্রীর সিদ্ধান্তের দিকে চেয়ে আছি। এবার যারা নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী, তাদের চেয়ে দলে আমার ত্যাগ ও শ্রম অনেক বেশি। আমার বিশ্বাস দল এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সবকিছু বিবেচনা করে আমাকেই দলীয় মনোনয়ন দেবেন।”

মাসুদ পারভেজ খান ইমরান বলেন, “দলের মনোনয়ন ফরম নিয়েছি। আশা করছি আমার পরিবারের ত্যাগের কথা বিবেচনা করে নেত্রী আমাকেই দলের মনোনয়ন দেবেন।”

এদিকে, গত ৮ মে কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে বর্তমান মেয়র ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক মো. মনিরুল হক সাক্কুর পক্ষে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন তার পরিবারের সদস্য ও দলীয় নেতাকর্মীরা।

এছাড়া কুমিল্লা মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নিজাম উদ্দিন কায়সারের পক্ষে একইদিন মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন দলের নেতাকর্মীরা।

বিএনপিপন্থী এই দুই নেতা এরই মধ্যে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে নির্বাচন করার ঘোষণা দিয়েছেন।

সাক্কু বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আমার অনুসারী, নেতাকর্মী ও সমর্থকদের অনুরোধে স্বতন্ত্র পদে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। গত দুই মেয়াদে নগরীর সর্বত্র ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। আশা করছি মানুষ এবারও আমাকেই বেছে নেবে।”

কুমিল্লা মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নিজাম উদ্দিন কায়সার বলেন, “মানুষ এখন পরিবর্তন চায়। আশা করছি কুমিল্লা নগরবাসী আমাকেই তাদের সেবক হিসেবে বেছে নেবে। এরই মধ্যে আমার মনোনয়ন সংগ্রহ করা হয়ে গেছে।”

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে জানা গেছে, ২৭টি ওয়ার্ডের পৃথক ভোটার তালিকা প্রণয়ন করাসহ নির্বাচনের যাবতীয় প্রস্তুতি এরই মধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে। বর্তমানে এই সিটিতে মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ২৭ হাজার ৭৯২। এর মধ্যে নারী ভোটার ১ লাখ ১৬ হাজার ১৯১ জন ও পুরুষ ভোটার ১ লাখ ১১ হাজার ৬০০ জন। আর তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন একজন।

সর্বশেষ ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত এই সিটির নির্বাচনে ভোটার ছিল ২ লাখ ৭ হাজার ৫৬৬ জন। আগামী ১৫ জুন ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে নির্বাচনের ভোট গ্রহণ হবে।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ১৭ মে পর্যন্ত রিটার্নিং অফিসারের কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া যাবে। ১৯ মে বাছাইয়ের পর ২৬ মে পর্যন্ত মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে। প্রতীক বরাদ্দ হবে ২৭ মে। ভোট হবে ১৫ জুন।

আরও পড়ুন:

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক