মুন্সীগঞ্জে বৃদ্ধাকে হত্যায় যুবকের যাবজ্জীবন

২০১২ সালের ১৫ অগাস্ট গলায় থাকা সোনার চেইন চুরি করার সময় বাধা দেওয়ায় আবেদাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে আল-আমিম।

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 Nov 2023, 02:07 PM
Updated : 29 Nov 2023, 02:07 PM

মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলায় বৃদ্ধাকে শ্বাসরোধে হত্যার দায়ে ১৩ বছর পর একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

বুধবার মুন্সীগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ বেগম খালেদা ইয়াসমিন উর্মি আসামির উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন বলে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মো. সিরাজুল ইসলাম পল্টু জানান।

দণ্ডিত আল আমিন মল্লিক (৩৩) ওই উপজেলার পালগাঁও গ্রামে বাসিন্দা।

যাবজ্জীবন পাশাপাশি আল-আমিনকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় রায়ে।

এছাড়া তাকে আরেকটি ধারায় দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং পাঁচ হাজার জরিমানা; অনাদায়ে আরও একমাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয় বলে জানান আইনজীবী।

মামলার বরাত দিয়ে আইনজীবী সিরাজুল ইসলাম বলেন, ২০১২ সালের ১৫ অগাস্ট ঈদের ছুটিতে ঢাকা থেকে ওই গ্রামের আসেন নিহত আবেদা খাতুনের (৭৫) ছেলে ফরহাদ হাওলাদার। বাড়িতে এসে ফরহাদ তার মাকে না পেয়ে তার ছেলে ও স্ত্রীকে বাইরে খুঁজতে পাঠান।

সে সময় ফরহাদের স্ত্রী আল-আমিনকে তাদের বাড়ির পিছনে বসে থাকতে দেখেন। তাকে দেখে তিনি দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে খোঁজাখুঁজি এক পর্যায়ে বসত ঘরের পিছনে ধানক্ষেতের পানিতে তার মাকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান ফরহাদ।

তিনি আরও বলেন, তার মা স্বাভাবিকভাবে মারা গেছেন ভেবে দাফন শেষে সন্ধ্যার দিকে বাড়িতে ফিরলে তাদের বাড়িতে আল-আমিনের স্যান্ডেল পড়ে থাকতে দেখতে পায় ফরহাদ।

পরদিন ওই গ্রামের লোকজনসহ ফরহাদ আল-আমিনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি জানান, আবেদা খাতুনের গলায় থাকা ৯ আনার সোনার চেইন টান দিয়ে নিয়ে যাওয়ার সময় বাধা দিলে তাকে ধরে ধানক্ষেতের পানিতে শ্বাসরোধে হত্যা করে।

ওই দিনই ফরহাদ বাদী হয়ে লৌহজং থানায় হত্যা মামলা করেন। তদন্ত শেষে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।

১৭ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত বুধবার তাকে দোষী সাব্যস্ত করে রায় দিল।