৩২ বছর পর রংপুর চিড়িয়াখানায় জলহস্তী পরিবারে নতুন অতিথি

৮ মাস গর্ভধারণের পর বৃহস্পতিবার বাচ্চা প্রসব করে জলনূপুর।

রংপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 5 August 2022, 07:06 AM
Updated : 5 August 2022, 07:06 AM

রংপুর চিড়িয়াখানায় জলহস্তী জলনূপুর বাচ্চা প্রসব করেছে। চিড়িয়াখানা প্রতিষ্ঠার দীর্ঘ ৩২ বছর পর জলহস্তীর বাচ্চা প্রসবের ঘটনায় উচ্ছ্বসিত কর্তৃপক্ষ ও দর্শনার্থীরা।

আট মাস গর্ভধারণের পর বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ৯টায় জলনূপুর বাচ্চাটি প্রসব করে বলে রংপুর চিড়িয়াখানায় জ্যু অফিসার এইচএম শাহাদাত হোসেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান।

১৯৮৯-৯০ সালে রংপুর চিড়িয়াখানা প্রতিষ্ঠার পর একটি পুরুষ জলহস্তী ছিল। পরে বয়স হয়ে যাওয়ায় জলহস্তীটি মারা গেলে একটি নারী জলহস্তী আনা হয়। পরে ২০০১ সালে আরও একটি পুরুষ জলহস্তী আনে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। এরপর দীর্ঘ ৩২ বছর পর বাচ্চা হলো ওই নারী জলহস্তীর।

শাহাদাত বলেন, “আমরা যখন বুঝতে পারলাম জলহস্তী জলনূপুরের পেটে বাচ্চা এসেছে তখন থেকে তার বিশেষ পরিচর্চা শুরু করে দেই। সদ্য প্রসব হওয়া বাচ্চাটির ওজন ২৫-৩০ কেজি হবে। বাচ্চা সুস্থ ও সবল আছে।”

এদিকে জলহস্তী সাবকটি দেখতে রংপুর চিড়িয়াখানায় দর্শীনার্থীরা ভিড় করছেন। কোহিনূর আক্তার কেয়া নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, “জলহস্তীর বাচ্চাকে দেখে খুবই ভালো লাগছে।”

আরেক দর্শনার্থী আতিক উল আলোম কল্লোল বলেন, “রংপুর চিড়িয়াখানায় এই প্রথম জলহস্তী বাচ্চা দিলো। দেখেই ভালো লাগছে।”

রংপুর চিড়িয়াখানার কিউরেটর মো. আমবার আলী তালুকদার বলেন, “জলহস্তীর পেটে বাচ্চা আসার পর থেকেই সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় ছিলাম আমরা। নিরাপদে বাচ্চা প্রসবের জন্য পুরুষ জলহস্তীকে আলাদা আবাসস্থলে নেওয়া হয়েছিল। অনুকূল পরিবেশের কারণে রংপুর চিড়িয়াখানার সকল বন্য প্রাণী ও পাখি সুস্থ আছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক