হাত পায়ের যত্নে রিফ্লেক্সোলজি

ম্যানিকিউর এবং পেডিকিউরের আধুনিক পদ্ধতি।

মরিয়ম সেঁজুতিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 March 2016, 11:21 AM
Updated : 19 July 2016, 11:02 AM

আমরা অনেক সময়ই হাত-পায়ের যত্ন নিতে একটু গাফিলতি করি। দেখা যায় মুখটা অনেক সুন্দর তবে হাত পা রুক্ষ, শুষ্ক। অনেকেরই হাতের ত্বকে এক ধরনের কালো ছোপ পড়ে। সাধারণত যারা বাইরে বেশি বের হন; স্কুল, কলেজ, অফিসে যাওয় আসা করেন তাদের এরকম সমস্যা হতে পারে।

একটু সচেতনতা আপনার হাত পা সুন্দর রাখতে পারে। আর এ জন্য করাতে পারেন রিফ্লেক্সোলজি ম্যানিকিউর এবং পেডিকিউর।

এ বিষয়ে পরামর্শ দিচ্ছেন আকাঙ্ক্ষা’স গ্ল্যামার ওয়ার্ল্ড’য়ের কর্ণধার অ্যারোমা থেরাপিস্ট জুলিয়া আজাদ।

দিনের বেলা যখনই বাইরে বের হন হাতে অবশ্যই সান্সক্রিন লোশন লাগিয়ে পাঁচ দশ মিনিট পর বের হন। এতে হাতের ত্বক কালো হয়ে যাওয়া থেকে রক্ষা পাবে।

বাসায় ফিরে ভালো ভাবে হাত মুখ ধুয়ে ময়েশ্চারাইজার বা হ্যান্ড ও বডি লোশন লাগিয়ে নিন। হাত-পা ধুয়ে হাল্কা করে মুছেই সঙ্গে সঙ্গে লোশন লাগাতে ভুলবেন না। এতে আপনার হাত ও পা নরম থাকবে।

সপ্তাহে একদিন বডি স্কার্ব বা বাথ-সল্ট দিয়ে হাত পা ভালো ভাবে মালিশ করতে ভুলবেন না। এরপর বেশি পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। হাল্কা করে শুকিয়ে ময়েশ্চারাইজিং করুন।

রাতের বেলা ভালোভাবে হাত-পা ধুয়ে পেট্রোলিয়াম জেলি অল্প পরিমাণে নিয়ে মালিশ করুন। পাঁচ মিনিট পর ভেজা রুমাল দিয়ে মুছে ফেলুন। এভাবে করলেও আপনার হাত পায়ের ত্বক সুন্দর হবে।

এছাড়া মাসে একবার ভালো কোনো পার্লারে গিয়ে ম্যানিকিউর ও পেডিকিউর করান। ম্যানিকিউর প্যাডিকিউর নানা ধরনের হয়। সমস্যা অনুযায়ী একজন অভিজ্ঞ রূপবিশেষজ্ঞ ঠিক করে দেবেন আপনার জন্য কী ধরনের যত্ন দরকার।

ম্যানিকিউর এবং প্যাডিকিউরের নতুন সংযোজন রিফ্লেক্সোলজিক্যাল ম্যানিকিউর প্যাডিকিউর।

এটা প্রাথমিকভাবে হাত ও পায়ের পাতার নিচে একটি নির্দিষ্ট অংশে টিপে শরীরের নির্দিষ্ট অংশগুলো পরিবর্তন ঘটানোর সদ্ব্যবহার করার থেরাপি।

এটা অ্যারোমা থেরাপির মাধ্যমে নির্দিষ্ট নিয়মে করা হয়। সাধারণত যাদের ত্বক খুব রুক্ষ বা অসুন্দর অথবা পা ফেটে খারাপ অবস্থা তাদের এই ধরনের একটি সিটিংয়ের মাধ্যমে সমস্যা অনেকটা কমে যাবে।

অনেক সময় দেখা যায় নখের রং হলদে বা কালো হয়ে গেছে। তারাও এই থেরাপির মাধ্যমে নখের রং ফিরিয়ে আনতে পারবেন।

সমস্যা যাই হোক এই থেরাপি সমস্যা অনেকাংশে সারিয়ে তুলতে সক্ষম। এ ধরনের একটি পেডিকিউর করতে সময় লাগে এক ঘণ্টা। নখে নখকুনি, পায়ে কড়া, পা ফাটা, নখ কালো বা বিবর্ণ হয়ে যাওয়া সব কিছুই ধীরে ধীরে কমে যাবে।

এতে ব্যবহার করা হয় বিভিন্ন এসেনশিয়াল অয়েল, পেরাফিন ওয়াক্স, বাথ সল্ট, সমস্যা অনুযায়ী ফলের রস। সঙ্গে স্টিমিউলেটিং মালিশের মাধ্যমে এই ধরনের ম্যানিকিওর পেডিকিওর করা হয়।

প্রতীকী মডেল: তাসমিয়া মীম। ছবি: দীপ্ত। কৃতজ্ঞতায়: আকাঙ্ক্ষা’স গ্ল্যামার ওয়ার্ল্ড।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক